Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২৩:৪২

স্পোর্টস ক্লাবের খেলাধুলা ধ্বংস করে গড়ে তোলা হয়েছে ক্যাসিনো

নিজস্ব প্রতিবেদক

স্পোর্টস ক্লাবের খেলাধুলা ধ্বংস করে গড়ে তোলা হয়েছে ক্যাসিনো
সৈয়দ আবুল মকসুদ

বিশিষ্ট সাংবাদিক, লেখক ও গবেষক সৈয়দ আবুল মকসুদ বলেছেন, অবৈধ পথে উপার্জিত অর্থ কখনো রাষ্ট্রের কল্যাণে আসে না বরং ক্ষতির কারণ। এসব অর্থ বিদেশে পাচার হয় নয়তো আরেকটি অপরাধে ব্যয় হয়। স্পোর্টস ক্লাবের খেলাধুলাকে ধ্বংস করে দিয়ে গড়ে তোলা হয়েছে ক্যাসিনো। অপরাধের এই সাম্রাজ্য গড়ে উঠেছে সরকারি দল ও তার সহযোগী সংগঠনের নেতাদের সুযোগ্য নেতৃত্বে। গতকাল বাংলাদেশ প্রতিদিনের সঙ্গে আলাপচারিতায় তিনি আরও বলেন, আমাদের দেশে অনেক কিছুই দেখে না দেখার ভান করে রাষ্ট্রযন্ত্র। যারা অন্যায় ও বেআইনি কাজে লিপ্ত তারা জানেন অপরাধ করলে কিছুই হয় না। বিশেষ করে উপযুক্ত জায়গায় টাকা ঢাললে যা খুশি তাই করে পার পাওয়া যায়। আমাদের প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী কোনো কিছুই শুরুতে বিনষ্ট করে না। সীমা ছাড়িয়ে গেলে কিংবা টাকা-পয়সার ভাগবাটোয়ারা নিয়ে স্বার্থের ব্যাঘাত ঘটলে ব্যবস্থা নিতে দেখা যায়। সৈয়দ আবুল মকসুদ আরও বলেন, ঢাকার নামিদামি স্পোর্টস ক্লাবগুলোতে জমজমাট জুয়ার আসর বসে তা মানুষ জানত। এ তথ্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও প্রশাসনের কর্মকর্তাদের না জানার কারণ নেই। বছর চারেক আগে জুয়ার আসরগুলোতে যোগ হয়েছে ক্যাসিনো। ক্যাসিনোর অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি বিদেশ থেকে দেশে ঢুকেছে। কাস্টমসের কর্মকর্তারা তা জানতে পারেননি এটা বিশ্বাসযোগ্য নয়। অন্যায় ও অবৈধ প্রক্রিয়ায় সবকিছু ঘটেছে ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে। উচ্চ পর্যায়ের পৃষ্ঠপোষকতা ছাড়া এটা সম্ভব নয়। র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) চৌকস কর্মকর্তাদের অতর্কিত অভিযানে কয়েকটি ক্যাসিনো সাম্রাজ্যের পতন ঘটেছে। একটি ক্যাসিনোতে টর্চার সেল রয়েছে। ভাবলে গা শিউরে ওঠে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তাদের দায়িত্ব পালন করেছে। এখন দায়িত্ব পালনের পালা সরকারের।


আপনার মন্তব্য