শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ৩০ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩০ অক্টোবর, ২০১৯ ০২:১৭

ক্যাসিনোকাণ্ডের সর্বশেষ

আজিজ মোহাম্মদের ভাতিজা ওমরকে খোঁজা হচ্ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীর গুলশান-২ নম্বরে আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের বাসায় অভিযানের পরই বিকল্প পথ দিয়ে পালিয়ে যান তার ভাতিজা ওমর মোহাম্মদ ভাই। অভিযানের দুই দিন পার হলেও ওমর মোহাম্মদ ভাইকে গ্রেফতার করতে পারেনি মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর (ডিএনসি)। তবে ডিএনসির কর্মকর্তারা বলছেন, ওমর মোহাম্মদ ভাইকে গ্রেফতার করতে কর্মকর্তারা মাঠে কাজ করছেন। তার বাসাসহ সম্ভাব্য সব স্থানে নজরদারি করা হচ্ছে। তিনি মাদকদ্রব্য আইনে দায়ের করা একটি মামলার আসামি। গত রবিবার বিকালে গুলশান-২ নম্বরের ৫৭ নম্বর রোডে আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের দুই বাড়িতে অভিযান চালায় ডিএনসি। একটি বাড়ির নম্বর ১১/এ এবং অপর বাড়ির নম্বর ১১/বি। সেখান থেকে গ্রেফতার করা হয় বাড়ির কেয়ারটেকার নবীন ম ল ও পারভেজকে। অভিযান শুরুর সময় ওমর মোহাম্মদ ভাই ১১/এ নম্বর ভবনের একটি ফ্ল্যাটে ছিলেন। অভিযানের বিষয় টের পেয়ে ফ্ল্যাটের বিকল্প পথ দিয়ে তিনি পালিয়ে যান। ১১/এ নম্বর বাড়ির ৬ষ্ঠ তলার ছাদে দীর্ঘদিন ধরে তিনি ও তার ভাই আহাদ মোহাম্মদ ভাই মিনি বার চালিয়ে আসছিলেন। ১১/বি নম্বর বাড়ির ৪র্থ তলার ফ্ল্যাটে গড়ে তোলা হয়েছিল বিদেশি মদের গোডাউন। এ ছাড়া আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের গুলশান-১ নম্বরে অপর একটি ফ্ল্যাটেও মদের আড্ডা বসত নিয়মিত। সেখানেও অভিযান চালানো হয়। অভিযানে মোট ৩৮২ বোতল বিদেশি মদ, সিসা, সিসার উপকরণ, গাঁজা ও ক্যাসিনো সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় গুলশান থানায় ওমর মোহাম্মদ ভাইয়ের বিরুদ্ধে মাদক আইনে একটি এবং দুই কেয়ারটেকার নবীন ও পারভেজের বিরুদ্ধে আরেকটি মামলা করে ডিএনসি। ডিএনসির গুলশান জোনের পরিদর্শক এস এম শামসুল কবির বাদী হয়ে একটি এবং এসআই আতাউর রহমান বাদী হয়ে অপর মামলাটি করেন। দুটি মামলার একটিতেও আজিজ মোহাম্মদ ভাইকে আসামি করা হয়নি। গ্রেফতার হওয়া নবীন ও পারভেজকে সোমবার ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে পাঠানো হয়। তাদের রিমান্ডের আবেদন করা হয়নি। আদালত তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। বর্তমানে তারা কারাগারে রয়েছেন। তদন্ত-সংশ্লিষ্টরা বলছেন, পলাতক ওমর মোহাম্মদ ভাইয়ের অবস্থান নিশ্চিত হতে গোয়েন্দারা কাজ করছেন। তার বাসাসহ তিনি অবস্থান করতে পারেন এমন সম্ভাব্য সব স্থান নজরদারিতে রাখা হয়েছে। গ্রেফতার নবীন ও পারভেজকে রিমান্ডের জন্য আজকালের মধ্যে আদালতে আবেদন করা হবে। আলোচিত চলচ্চিত্র প্রযোজক আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের ব্যাংক হিসাব স্থগিত করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ) তার হিসাব স্থগিত করতে সোমবার ব্যাংকগুলোতে চিঠি দিয়েছে বলে জানা গেছে। আগামী ৩০ দিন আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের ব্যাংক হিসাবগুলোতে কোনো ধরনের লেনদেন করতে পারবেন না। চিঠিতে ব্যাংক হিসাব স্থগিত ও হিসাবের সব ধরনের তথ্য তলব করা হয়েছে। ৩০ অক্টোবরের মধ্যে এসব তথ্য বাংলাদেশ ব্যাংকে পাঠাতে হবে। চিঠিতে বলা হয়, আজিজ মোহাম্মদ ভাই ও তার স্বার্থ-সংশ্লিষ্ট হিসাবগুলোতে এখন থেকে কোনো লেনদেন করা যাবে না। মানিলন্ডারিং আইন অনুযায়ী আগামী ৩০ দিন হিসাবগুলো স্থগিত থাকবে। এরপর প্রয়োজন মনে করলে বিএফআইইউয়ের মেয়াদ আরও বাড়াতে পারবে।

জানা গেছে, আজিজ মোহাম্মদ ভাই ব্যবসায়ী হলেও চলচ্চিত্র প্রযোজক হিসেবেই বেশি পরিচিত। ১৯৯৬ সালে শেয়ারবাজার কেলেঙ্কারি মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয় তার বিরুদ্ধে। দীর্ঘদিন ধরে তিনি বিদেশে পালিয়ে রয়েছেন। ১৯৯৭ সালে জনপ্রিয় চিত্রনায়ক সালমান শাহের মৃত্যুর পর যে কয়জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে তাদের মধ্যে তিনি অন্যতম। সালমান শাহের মৃত্যুর দুই বছর পর ১৯৯৯ সালে ঢাকা ক্লাবে খুন করা হয় আরেক চিত্রনায়ক সোহেল চৌধুরীকে। এ হত্যায়ও তার সম্পৃক্ততার অভিযোগ ওঠে।


আপনার মন্তব্য