শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ১২ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১১ জানুয়ারি, ২০২০ ২৩:২১

জুনের মধ্যে অবসরে আরও সাত সচিব

আর চুক্তি চান না প্রশাসনের কর্মকর্তারা

নিজামুল হক বিপুল

জুনের মধ্যে অবসরে আরও সাত সচিব

আগামী জুন পর্যন্ত প্রশাসনের আরও সাত সচিব বিদায় নেবেন। সরকার নতুন করে কাউকে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ না দিলে এরা চাকরির নির্ধারিত মেয়াদ শেষ করেই অবসরে যাবেন। ইতিমধ্যে গত বছর ডিসেম্বর থেকে চলতি মাসের ১০ তারিখ পর্যন্ত ১১ সচিব অবসরে গেছেন। এদের মধ্যে পাঁচজন চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ পেয়েছেন। যার মধ্যে দুজন আছেন সচিব হিসেবে। চুক্তিভিত্তিক নিয়োগের বিরুদ্ধে একাট্টা প্রশাসনের কর্মকর্তারা। সরকারের উচ্চপর্যায় থেকেও চুক্তিভিত্তিক নিয়োগকে নিরুৎসাহিত করা হয়েছে। এ কারণে এবার সরকার খুব কম সংখ্যক সচিবকে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দিয়েছে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে কর্মরত সচিবদের মধ্যে আগামী ৩১ জানুয়ারি অবসরে যাবেন ভূমি সংস্কার বোর্ডের চেয়ারম্যান (সচিব) আবদুল হান্নান। এর পর ২৮ ফেব্রুয়ারি সরকারি চাকরির বয়সসীমা শেষ হবে নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আবদুস সামাদের। ৪ মে অবসরে যাওয়ার কথা রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোফাজ্জল হোসেনের। ১ জুন চাকরির বয়সসীমা শেষ হবে পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য (সচিব) শাহীন আহমেদ চৌধুরীর, ৯ জুন বিদায় নেবেন পরিকল্পনা বিভাগের সচিব মো. নুরুল আমিন, পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব সৌরেন্দ্র নাথ চৌধুরী এবং ২৯ জুন নিয়মিত চাকরির মেয়াদ শেষ হবে দুর্যোগব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. শাহ কামালের। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, গত ডিসেম্বর থেকে চলতি মাস পর্যন্ত যে কয়জন সচিব চাকরির নির্ধারিত মেয়াদ শেষ করে অবসরে গেছেন তাদের অনেকেই চেষ্টা করেছিলেন চুক্তিতে নিয়োগ পাওয়ার জন্য। কিন্তু প্রশাসনের ভিতর থেকে কর্মকর্তারা চুক্তির বিরুদ্ধে অসন্তোষ ও ক্ষোভ প্রকাশ করলে সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায় থেকে বিষয়টি আমলে নেওয়া হয়। বিসিএস অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে বিভিন্ন সময়ে লিখিতভাবে চুক্তিভিক্তিক নিয়োগের বিরুদ্ধে কর্মকর্তারা তাদের অবস্থান সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায় পর্যন্ত জানিয়েছিলেন। শেষ পর্যন্ত সরকার প্রশাসনের কর্মকর্তাদের ক্ষোভ অসন্তোষকে আমলে নিয়ে বিদায়ী সচিবদের চুক্তিভিক্তিক নিয়োগের ব্যাপারে নিরুৎসাহ দেখায়। প্রশাসনের কর্মকর্তারা বলছেন, আগামী জুন পর্যন্ত যারা অবসরে যাবেন তাদের কাউকে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ না দিলে নতুন কর্মকর্তারা সচিব পদে পদোন্নতি পাওয়ার সুযোগ পাবেন। তাই সরকার এ বিষয়টি যেন গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনায় রাখে। এদিকে গত ডিসেম¦র থেকে এখন পর্যন্ত অবসরে যাওয়া সচিবদের মধ্যে অন্তত পাঁচজন চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ পেয়েছেন। এদের মধ্যে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম ও বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মহিবুল হক এক বছরের চুক্তিতে একই মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে নিয়োগ পেয়েছেন। এ ছাড়া জ্বালানি ও খনিজসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব আবু হেনা মো. রাহমাতুল মুনিমের অবসরোত্তর ছুটি স্থগিত করে সরকার তাকে আগামী তিন বছরের জন্য জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে। একইভাবে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব জুয়েনা আজিজের অবসরোত্তর ছুটি বাতিল করে সরকার তাকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সমন্বয়ক হিসেবে তিন বছরের জন্য চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দিয়েছে। এ ছাড়া জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়েল সচিব মো. ফয়েজ আহম্মেদের অবসরোত্তর ছুটি স্থগিত করে তাকে সরকারি কর্ম-কমিশনের সদস্য হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে সরকার।


আপনার মন্তব্য