শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৩০ জুন, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩০ জুন, ২০২০ ০০:০৯

বড় লঞ্চটি যেভাবে উঠে পড়ে ছোটটির ওপর

সিসিটিভির ফুটেজে বেরিয়ে এলো সবকিছু

নিজস্ব প্রতিবেদক

বড় লঞ্চটি যেভাবে উঠে পড়ে ছোটটির ওপর
ময়ূর-২ লঞ্চ মর্নিং বার্ডকে ধাক্কা দেওয়ার দৃশ্য ধরা পড়ে সিসিটিভি ক্যামেরায়। ছবি : ফুটেজ থেকে নেওয়া

সিসিটিভির ফুটেজেই বেরিয়ে এলো বুড়িগঙ্গায় দুর্ঘটনার সবকিছু। এতে দেখা গেল, কীভাবে দৈত্যাকার ‘ময়ূর-২’-এর ধাক্কায় মুহূর্তেই তলিয়ে যায় যাত্রীবোঝাই ‘মর্নিং বার্ড’ নামের দেড়তলা ছোট্ট লঞ্চটি। ৩৭ সেকেন্ডের ভিডিও ফুটেজ অনুযায়ী সকাল ৯টা ১২ মিনিটে দুর্ঘটনাটি ঘটে। ঘাট থেকে পেছন দিকে (ব্যাকে) যাচ্ছিল ময়ূর। আর ঠিক পেছন দিকেই ছিল মর্নিং বার্ড। বিশালাকার ময়ূরের তৈরি করা স্রোতের তোড়ে কাত হয়ে যায় মর্নিং বার্ড। ওই সময়ই ময়ূরের ধাক্কা। সেই ধাক্কাতেই ডুবতে থাকে ছোট লঞ্চটি। মুহূর্তে ডুবন্ত ছোট লঞ্চটির ওপর পুরো শরীর উঠিয়ে দেয় ময়ূর। ততক্ষণে পানির নিচে তলিয়ে গেল আস্ত লঞ্চ। ঘটনাটি এতটাই দ্রুততার সঙ্গে ঘটেছে যে যাত্রীরাও তা বুঝতে পারেননি। এ কারণে অল্পসংখ্যক যাত্রী লঞ্চ তলিয়ে যাওয়ার আগে নদীতে লাফিয়ে পড়ে সাঁতরে তীরে পৌঁছাতে পারেন। ঘটনার পরই সিসিটিভি ফুটেজটি পাওয়া যায়। কর্তৃপক্ষ জানায়, পন্টুনগুলোতে বিআইডব্লিউটিএ নৌ-পুলিশের সিসি ক্যামেরা আছে। এরই একটির ছোট এক ফুটেজ পাওয়া যায়। সেখানে দেখা যাচ্ছে, ফরাশগঞ্জ ঘাট-সংলগ্ন কুমিল্লা ডক এরিয়ায় ঘাট থেকে পেছন দিকে (ব্যাকে) যাচ্ছিল ময়ূর-২। এ সময় পেছনে থাকা মুন্সীগঞ্জের কাঠপট্টি থেকে আসা যাত্রীবোঝাই ‘মর্নিং বার্ড’-এর ওপর উঠে যায় দৈত্যাকার ময়ূর-২। মুহূর্তেই তলিয়ে যায় ‘মর্নিং বার্ড’। বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) যুগ্ম-পরিচালক (বন্দর ও পরিবহন বিভাগ) এ কে এম আরিফ উদ্দিন বলেন, সিসি ক্যামেরায় দুর্ঘটনার বিষয়টি ধরা পড়েছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে কীভাবে দুর্ঘটনাটি ঘটেছে। তদন্ত দল অবশ্যই তদন্তে এ বিষয়টি কাজে লাগাতে পারবে। ঢুবে যাওয়া মর্নিং বার্ড লঞ্চে ৫০ জন যাত্রী ছিল জানা গেছে। তবে স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, লঞ্চে শতাধিক যাত্রী ছিল। গতকাল রাতে এ প্রতিবেদন তৈরি করা পর্যন্ত উদ্ধারকারীরা ৩২ জনের লাশ উদ্ধার করতে পেরেছেন। অনেকে এখনো নিখোঁজ আছেন। লঞ্চটি ডোবার পর পরই যাত্রীদের সন্ধানে উদ্ধার তৎপরতা চালান ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট, নৌবাহিনীর ডুবুরি দলের সদস্য ও স্থানীয় বাসিন্দারা।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর