শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ২৩:৫১

অনুতপ্ত ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়

কূটনৈতিক প্রতিবেদক

অনুতপ্ত ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়

আগাম ঘোষণা না দিয়ে পিঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করায় ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় অনুতপ্ত বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন। তিনি বলেন, পিঁয়াজ রপ্তানি হঠাৎ বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর ভারতের সঙ্গে আমরা যোগাযোগ করেছি। ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ও জানত না হঠাৎ করে এটা বন্ধ হয়েছে। আমাদের একটি বোঝাপড়া হচ্ছে এ ধরনের সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে আমাদের জানানো প্রয়োজন। আসলে এ সম্পর্কে তাদের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কিছুই জানত না। এর আগে, পিঁয়াজ রপ্তানি বন্ধে ভারতের আদেশ প্রত্যাহার করতে আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ। গত ১৪ সেপ্টেম্বর ভারত থেকে হঠাৎ করেই দেশে  পিঁয়াজ আসা বন্ধ হয়ে যায়।

ওই দিন রাতে ভারতের বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রণালয়ের বৈদেশিক বাণিজ্য বিভাগের মহাপরিচালক অমিত যাদব স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়, ১৯৯২ সালের ভারতের বৈদেশিক বাণিজ্য আইনের তিন ধারা অনুযায়ী পরবর্তী আদেশ না দেওয়া পর্যন্ত সব ধরনের পিঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ থাকবে। তবে, পিঁয়াজের কুচি, পাউডার ও অন্য কোনো অবস্থায় পিঁয়াজ রপ্তানি অব্যাহত থাকবে। ভারতের  বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপন জারির পর বিষয়টি পরিষ্কার হয়ে যায়। এর আগে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম জানিয়েছিলেন, ভারত থেকে পিঁয়াজ রপ্তানির নোটিস আমাদের নজরে আসার সঙ্গে সঙ্গেই আমাদের দিল্লি মিশন, দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে। কারণ আমাদের মধ্যে অলিখিত কথাটি ছিল যে, ভারত অব্যাহতভাবে বাংলাদেশে পিঁয়াজ রপ্তানি করবে। তবে, ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় যদি কোনো পরিবর্তন আনে, আগে থেকে আমাদের জানিয়ে দেবে। এ ধরনের বোঝাপড়ার মধ্যে আছে, এটা বন্ধুপ্রতিম রাষ্ট্র হিসেবে। আমরা তাদের খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে এই সিদ্ধান্তটি প্রত্যাহারের জন্য অনুরোধ জানিয়েছি। প্রত্যাশা করছি, এটার একটা ভালো ফলাফল পাব।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর