শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৮ নভেম্বর, ২০২০ ২৩:২৩

ট্রাম্পের আবেদন আপিলেও খারিজ

প্রতিদিন ডেস্ক

পেনসিলভেনিয়াতে জো বাইডেনকে জয়ী ঘোষণা করা ঠেকাতে শেষ চেষ্টায় ছিল ডোনাল্ড ট্রাম্প শিবির। আশা করা হচ্ছিল, এটা ঠেকাতে পারলে ভাগ্যের জট খুলতে পারে। কিন্তু বিধিবাম, গত শুক্রবার কেন্দ্রীয় আপিল আদালত এ আবেদনও খারিজ করে দিয়েছে। ফলে ট্রাম্পের শেষ চেষ্টাও ব্যর্থ হয়ে গেছে। সব মিলে তিনি দারুণ খেপেছেন সাংবাদিকদের ওপর। বিবিসি জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ব্যাটলগ্রাউন্ড রাজ্য পেনসিলভেনিয়াতে  জো বাইডেনকে জয়ী ঘোষণা করা আটকাতে ডোনাল্ড ট্রাম্প শিবিরের চেষ্টা খারিজ করে দিয়েছে  দেশটির একটি কেন্দ্রীয় আপিল আদালত। আদালতের তিন বিচারকের প্যানেল জানিয়েছে, ট্রাম্প শিবিরের করা মামলার কোনো ‘মেরিট’ই  নেই। রিপাবলিকানরা ভোটে কারচুপি নিয়ে সুস্পষ্ট  কোনো অভিযোগ বা এ সংক্রান্ত কোনো প্রমাণ হাজির করতে।

আপিল আদালতের এ রায়কে যুক্তরাষ্ট্রের ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের জন্য আরেকটি বড় ধাক্কা হিসেবে দেখা হচ্ছে। ৭৪ বছর বয়সী এ রিপাবলিকান নভেম্বরের ৩ তারিখের ভোটের ফল বদলে দেওয়ার চেষ্টা করছেন। বৃহস্পতিবার তিনি ‘বাইডেনকে জয়ী ঘোষণা করা হলে হোয়াইট হাউস  ছেড়ে দেবেন’ বলে ইঙ্গিত দিলেও পরদিনই আবার ‘ভোটে ব্যাপক জালিয়াতি’ হয়েছে মন্তব্য করে প্রমাণ ছাড়াই করে যাওয়া আগের অভিযোগের পথে ফিরে যান। টুইটে  ট্রাম্প বলেন, তার প্রাপ্ত ৮ কোটি ভোট  যে জালিয়াতি করে বা অবৈধভাবে পাওয়া নয়, তা প্রমাণ করতে পারলেই কেবল বাইডেন প্রেসিডেন্ট হিসেবে হোয়াইট হাউসে ঢুকতে পারবেন। খবরে বলা হয়, যে বিচারক পেনসিলভেনিয়ার ফলাফল ঠেকানোর আবেদন নিয়ে রায় দিয়েছেন, তাকে বিচারক হিসেবে ট্রাম্পই মনোনয়ন দিয়েছিলেন।

ক্ষেপলেন সাংবাদিকদের ওপর : গত শুক্রবার এক সাংবাদিক সম্মেলন করছিলেন ট্রাম্প। সেখানে নিজের এই ক’দিনের বক্তব্যে অনড় থেকেই তিনি বলেন, ‘ব্যাপারটা মেনে নেওয়া কঠিন। কেননা আমরা জানি প্রভূত কারচুপি হয়েছে। কিন্তু সময়টা আমাদের সঙ্গে নেই। তাই এই বিষয়ে তাড়াতাড়ি পদক্ষেপ করতে পারছি ন?া।’ এরপরই সংবাদমাধ্যমের ওপর ক্ষোভ ঝাড়লেন তিনি। তার কথায়, ‘সব কিছুই আমাদের পক্ষে আছে। সত্যিটা আমাদের পক্ষেই আছে। কিন্তু আপনারা প্রবলভাবে কারচুপি করেছেন।’ ঠিক এই সময়ই ঘটে বিপত্তি। তার এই কথার মাঝেই পাল্টা প্রশ্ন করতে গিয়েছিলেন এক সাংবাদিক। তখনই মেজাজ হারান ট্রাম্প। ক্ষিপ্ত হয়ে বলে ওঠেন, ‘আমার সঙ্গে এভাবে কথা বলবেন না। আপনি নেহাতই সামান্য একজন। আমি আমেরিকার প্রেসিডেন্ট। এইভাবে  প্রেসিডেন্টের সঙ্গে কখনো কথা বলা যায় না।’ ট্রাম্প এই সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘অবশ্যই আমি  হোয়াইট হাউস ছেড়ে যাব। আর সেটা তো আপনারা জানেনই। কিন্তু ২০ জানুয়ারির আগে আরও অনেক কিছু ঘটবে। বিরাট জালিয়াতি হয়েছে। তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলোর মতো আমরা কম্পিউটার ব্যবহার করছি, যা সহজেই হ্যাক করা সম্ভব।’


আপনার মন্তব্য