শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ১ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২৩:১৬

শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে রাবার বুলেট ছুড়েছে পুলিশ : মোশাররফ

নিজস্ব প্রতিবেদক

জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ছাত্রদলের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে পুলিশ নির্দয়ভাবে কাঁদানে গ্যাস ও রাবার বুলেট ছুড়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। তিনি বলেন, পুলিশ অমানুষিকভাবে ছাত্রদের লাঠিপেটা করেছে। এতে বহু কর্মী আহত হয়েছেন। গতকাল দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের মাওলানা আকরম খাঁ হলে এক প্রতিবাদ সভায় এসব অভিযোগ করেন তিনি। জিয়াউর রহমানের খেতাব বাতিলের প্রতিবাদে এ সভার আয়োজন করে জিয়া পরিষদ। জিয়া পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল কুদ্দুসের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন বিএনপির শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপক এ বি এম ওবায়দুল ইসলাম, ঢাবির অধ্যাপক লুৎফর রহমান, জাবির অধ্যাপক আবদুল লতিফ মাসুম প্রমুখ।

গণতান্ত্রিক দেশে প্রতিবাদ করা সাংবিধানিক অধিকার উল্লেখ করে খন্দকার মোশাররফ বলেন, ফ্যাসিবাদী ও স্বৈরাচারী সরকার এ ধরনের প্রতিবাদকে দাবিয়ে দিতে চাচ্ছে। কিন্তু এটা কখনোই সফল হবে না।

 সাময়িকভাবে হয়তো দাবিয়ে রাখা যায়। কিন্তু জনগণের প্রতিবাদকে, জনগণের ক্রোধকে সারা জীবনের জন্য দাবিয়ে রাখা যায় না। একদিন জনগণ ইস্পাত কঠিন ঐক্য তৈরি করে ফ্যাসিবাদী সরকারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবে। বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের খেতাব বাতিলের প্রতিবাদ জানিয়ে ড. মোশাররফ হোসেন বলেন, জিয়াউর রহমানের খেতাব কাগজ থেকে মুছে ফেলা যেতে পারে। কিন্তু জিয়াউর রহমান বীর উত্তম, যিনি দেশে প্রথম স্বাধীনতার ডাক দিয়েছেন, এটা তো এ দেশের মানুষের মন থেকে মুছে দেওয়া যাবে না। যাঁরা এই চেষ্টা করছেন, তারা বৃথা চেষ্টা করছেন। তিনি বলেন, প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা ও সুবিধা নিশ্চিত করতে জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল (জামুকা) প্রতিষ্ঠা করা হয়েছিল। সেই জামুকা কারও খেতাব কেড়ে নেওয়ার প্রস্তাব করতে পারে না। আমি যদি জিজ্ঞাসা করি, এখন কি জামুকা নতুন কোনো বীর উত্তম বা বীর বিক্রম পদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিতে পারবে? পারবে না। নতুন যদি সিদ্ধান্ত নিতে না পারে, খেতাব যারা দিয়ে গেছে তাদের দেওয়া খেতাব বাতিলের এখতিয়ার তাদের নেই।