শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ৩ জুন, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২ জুন, ২০২১ ২৩:৩০

নিবন্ধিতরা ১০ দিনের মধ্যে পাবেন ফাইজারের টিকা

নিজস্ব প্রতিবেদক

Google News

টিকার সঙ্গে মেশানোর উপাদান ডাইলুয়েন্ট আসার পর সাত থেকে ১০ দিনের মধ্যে ফাইজারের টিকা দেওয়ার কার্যক্রম শুরু করা যাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের মুখপাত্র ও রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখার পরিচালক অধ্যাপক ডা. নাজমুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘কোভ্যাক্স থেকে এ ডাইলুয়েন্ট আনা হচ্ছে। যারা আগে নিবন্ধন করেছেন তাদের মধ্য থেকে এ টিকা দেওয়া হবে।’ গতকাল অধিদফতরের স্বাস্থ্য বুলেটিনে তিনি এ কথা জানান।

ডা. নাজমুল ইসলাম বলেন, ‘ফাইজারের টিকা ১ লাখের বেশি ডোজ ঢাকায় এসে পৌঁছেছে। সেগুলো ঢাকাতেই সংরক্ষণ করা হচ্ছে। এটি একটি বিশেষ ধরনের টিকা। মাইনাস ৯০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় সংরক্ষণ করতে হয়। এটিকে সক্রিয় টিকায় রূপান্তর করতে একটি ডাইলুয়েন্টের প্রয়োজন হয়। সেটি ৭ জুন কোভ্যাক্স থেকে আমাদের কাছে এসে পৌঁছাবে বলে আশা করা হচ্ছে। তারপর অন্যান্য আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে সাত থেকে ১০ দিনের মধ্যে টিকা দেওয়া শুরু করা হবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘টিকা কাদের দেওয়া হবে, কোথায় দেওয়া হবে এ বিষয়ে সংশ্লিষ্টরা কাজ করছেন; যাতে এ টিকা কোনোভাবেই নষ্ট না হয়। যখনই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে, কতজনকে কোন কোন প্রতিষ্ঠানে দেওয়া হবে এ সংখ্যা আমরা পরে জানিয়ে দেব। যেহেতু টিকার পরিমাণ অত্যন্ত কম, যারা রেজিস্ট্রেশন ইতিমধ্যে করেছেন তাদের ভিতর থেকে এ টিকা দেওয়া হবে।’ করোনা পরিস্থিতি বিষয়ে ডা. নাজমুল ইসলাম বলেন, ‘শনাক্ত হারের বিপরীতে ১১ জেলায় সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি দেখা গেছে। এ মুহূর্তে রাজধানীর হাসপাতালগুলোয় করোনা আক্রান্তের চাপ কম। জেলাগুলোয় সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় সতর্কতা অবলম্বনের ক্ষেত্রে শিথিলতা দেখানোর সুযোগ নেই। মে পর্যন্ত ৪১ হাজার ৪০৮ জন নতুন আক্রান্তকে চিহ্নিত করা গেছে। এপ্রিলের সঙ্গে তুলনা করলে এ সংখ্যা কিছুটা কম। কিন্তু সামগ্রিক বিবেচনায় আমরা চাই আরও কমে থাকুক।’