শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ৫ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ৪ অক্টোবর, ২০১৮ ২১:৩২

উৎসবে কেশসাজ

নূরজাহান জেবিন

উৎসবে কেশসাজ
♦ মডেল : সুস্মিতা বিশ্বাস ♦ ছবি : রাহুল রায়

পূজা নিয়ে সপ্তাহজুড়েই থাকে নানা পরিকল্পনা। মহালয়া নিয়ে আসে মা দুর্গার আগমনী বার্তা আর পঞ্চমী দিয়ে শুরু হয় হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের এই মহোৎসব।  আর এই উৎসবে সাজগোজে ট্রেন্ডি সাজ না হলে কি চলে! সাজগোজের এই মহাপ্রলয়ে চুলের সাজ হলো অন্যতম। তাই চুলের সাজও হওয়া চাই ট্রেন্ডি।

 

তবে এক্ষেত্রে মনে রাখতে হবে, পূজার কেশসজ্জা আপনার পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে হলেই মানানসই হবে। আর এক্ষেত্রে ফিউশনকে প্রাধান্য দেবেন না তা কি হয়! তাই চুলের স্টাইলটি এমনভাবে করুন, যেন তা দুই ধরনের পোশাকের সঙ্গেই মানিয়ে যায়। তেমনই কিছু টিপস রইল ফ্রাইডের পাঠকের জন্য।

 

চুল কোঁকড়ানো করতে চাইলে :

মাথাভর্তি কোঁকড়ানো এখন বেশ ট্রেন্ডি। ছেড়ে রাখলেও মানিয়ে যায়, আর স্টাইলিশ লুক দিতে একটু ভিন্নতা দিলে তো কথাই নেই। এক্ষেত্রে কোঁকড়ানো ঝুল বা থুড়ি বেশ কুল ক্যাজুয়াল লুক আনতে পারে। এমন চুলে হাতে কাজ করা শাড়ি বা লং কামিজ বেশ মানাবে। সঙ্গে অক্সিডাইজের গয়না পরুন।

 

লেয়ার্ড কাটিং চুলের স্টাইল :

এই হেয়ার কাটটা সব ধরনের মুখে মানায় না। কেবল গোলাকার মুখে এটি রাজযোটক! চুল লেয়ার্ড হবে। মুখের চারদিক দিয়ে কার্ভস নামবে। মনে হবে, চুল দিয়ে মুখ ঘেরা রয়েছে। এ ধরনের চুলের রমণীরা চুড়িদার এবং স্লিভলেস কামিজ পরতে পারেন।

 

বান স্টাইলে মাততে চাইলে :

চুলে বান স্টাইল লো লেন্থ কুর্তির সঙ্গে পুরোপুরি যায়। তবে একটু ভিন্নতা আনতে ঘাড়ের ওপর আলুথালু খোঁপা করে নিতে পারেন। শান্ত, স্নিগ্ধ লুক নিয়ে আসবে অনায়াসেই।

 

চুলে পনিটেইল কাট দিতে :

শাড়ি কিংবা কামিজ; পনিটেইল হেয়ার স্টাইলটি যেন এই দুই ধরনের পোশাকের সঙ্গে মিল রেখেই উদ্ভাবন করা হয়েছে। উৎসব বলে কথা, শাড়ির সঙ্গে পনিটেইল হেয়ার স্টাইলে ফুল জুড়ে দিন। ব্যস, সাজ হবে বাঙালি ঘরানার এবং আপনি হবেন অনন্য।

 

পিক্সি কাটিংয়ে স্মার্টলুক :

লম্বা চুল পছন্দ নয়! কিন্তু পূজায় শাড়ি পরার লোভ সামলাতে পারছেন না। এক্ষেত্রে বেছে নিন পিক্সি কাট। এতে মাথার পেছন ও পাশের দুই অংশের চুল একেবারে ছোট করে কাটা হয়। শুধু সামনের অংশ লম্বা থাকে। সঙ্গে সার্প এজেস। চুড়িদার ছাড়া সব পোশাকের সঙ্গেই মানিয়ে যায় এই কাট।

 

তবে দেরি কিসের! আজই শুরু হোক পূজার সাজ নিয়ে চুলচেরা বিশ্øেষণ। উৎসব হোক আনন্দময়।


আপনার মন্তব্য