শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৫ নভেম্বর, ২০১৮ ২২:২৪

শীতকালে ফিটনেস

শীতকালে ফিটনেস
মডেল : কোরাইশী মিশা

শীত পড়তে পড়তেও পড়ছে না! কিন্তু শীতের আমেজ ঠিকই টের পাওয়া যাচ্ছে। দিনে গরম আর সন্ধ্যা হলেই ঠাণ্ডা। এ সময় ফিট থাকতে প্রয়োজন সতর্কতা

 

♦  শীতে এয়ারকন্ডিশনার থেকে যতটা সম্ভব দূরে থাকুন। ত্বক এবং শরীর সহজেই শুষ্ক করে ফেলে এটা। একান্তই যদি এসিতেই থাকতে হয় তবে প্রচুর পানি পান করুন। ঘণ্টা দুয়েক পর পর ময়েশ্চারাইজার লোশন ও লিপ জেল ব্যবহার করুন।

♦  শীতে কম্বল ছেড়ে বাইরে বেরিয়ে আসুন। কেননা, সূর্য্যরশ্মীতে রয়েছে প্রয়োজনীয় ভিটামিন ডি। যা আমাদের সবারই জানা। আর বাড়ির বাইরে থাকলে ‘সান এক্সপোজও’ হবে। তবে খুব বেশি সময় নয়। শীতের সময়টায় ওয়ার্কআউট অ্যাক্টিভিটিসের পরিমাণ বাড়িয়ে দিন। নিয়মিত এক্সারসাইজ করুন। বেশি বেশি সাইক্লিং এবং দৌড়ঝাঁপ করুন। প্রয়োজনীয় এনজাইমের নিঃসরণ হবে।

♦  সম্ভব হলে শীতে গরম পানি দিয়ে গোসল করা থেকে বিরত থাকুন। তবে প্রচণ্ড ঠাণ্ডায় গরম পানি ব্যবহার করলে দেখে নিন পানি যেন খুব বেশি গরম না হয়। গরম পানি আর্দ্রতা ধরে রাখতে সাহায্য করে। আর শীতকালে ধুলোময়লার আধিক্য থাকে বেশি। তাই ব্যাকটেরিয়া থেকে বাঁচতে সব সময় হাত পরিষ্কার রাখুন।

♦  গরমের সময় পানি পানের কথা মনে করিয়ে দিতে হয় না। কিন্তু শীত আসলেই যত মুশকিল। পানি পান করতে অনীহা প্রকাশ করেন বেশিরভাগ মানুষই। বিশেষজ্ঞদের মতে, শীতে শরীরে প্রচুর পরিমাণ পানির প্রয়োজন হয়। আর ডিহাইড্রেশন এড়াতে পানি পানের বিকল্প নেই। এ ছাড়া মনে করে ভিটামিন নিন। শীতে শাক-সবজিতে বাজার সয়লাব থাকে। মিষ্টি আলু, গাঁজর, পালং শাক, অ্যাপ্রিকট, লেটুস পাতা এবং মাছ খান বেশি বেশি। জুস না খেয়ে গোটা ফল খান।

♦ যাদের ঠাণ্ডা লেগে যাওয়ার সমস্যা থাকে তারা স্ট্রেস কাটানোর উপায় জেনে নিন। বডি স্ট্রেসের কারণে ইনফ্লুয়েঞ্জা হতে পারে। তাই সপ্তাহে দুয়েক দিন পরিবার ও বন্ধুদের সঙ্গে সময় কাটান।


আপনার মন্তব্য