শিরোনাম
বুধবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৪ ০০:০০ টা

ক্যান্সার যখন যকৃৎ ও ফুসফুসে

ডা. আহম্মেদ সারওয়ার মুর্শেদ

ক্যান্সার যখন যকৃৎ ও ফুসফুসে

ক্যান্সারের মূল চিকিৎসা হচ্ছে সার্জারি। এসব রোগীর ফলাফলও চমৎকার। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্যি শতকরা ৮০ ভাগ লিভার ও ফুসফুস ক্যান্সার রোগীর বিভিন্ন কারণে সার্জারি করা সম্ভব নয়। এসব রোগীকে কেমোথেরাপি ও রেডিওথেরাপি দিয়ে চিকিৎসা করা হয়। এর মাধ্যমে শতকরা ৫-১০ ভাগ রোগীর ক্যান্সার টিউমার সম্পূর্ণ ধ্বংস করে দেওয়া যায় এবং শতকরা ৩০-৫০ ভাগ রোগীর ক্যান্সার টিউমার কিছুটা ছোট হয়। এছাড়া বাকি শতকরা ৪০-৫০ ভাগ রোগীর ক্যান্সার টিউমারে কোনো কাজ করে না বরং রোগীকে ভয়াবহ পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া সহ্য করতে হয়। এসব রোগীর জন্য RFA বা RAdio Frequency Ablation হচ্ছে সবচেয়ে কার্যকরী বিকল্প চিকিৎসা। কারণ  RFA ক্যান্সার টিউমারকে সম্পূর্ণভাবে ধ্বংস করে দিতে পারে অথচ আশপাশের সুস্থ টিস্যুর ক্ষতি হয় না, সাফল্যের হার ৮০ ভাগ।

RFA কি : অতি উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন তরঙ্গ ব্যবহার করে টিউমারের তাপমাত্রা ৬০ ডিগ্রি সেঃ এর বেশি করা হয়। এতে ক্যান্সার কোষগুলোর প্রোটিন নষ্ট হয়ে যায়। ফলে টিউমারটি সম্পূর্ণভাবে ধ্বংস হয়ে যায় কিন্তু সুস্থ টিস্যুর কোনো ক্ষতি হয় না।

কাদেরকে RFA করা হয় : ১) যাদের সার্জারি করা যায় না তারাই সবচেয়ে উপযুক্ত রোগী। ২) যারা সার্জারি করতে ইচ্ছুক না, বিকল্প হিসেবে RFA তাদের জন্য সবচেয়ে কার্যকরী চিকিৎসা পদ্ধতি। কারণ RFA এর মাধ্যমে পুরো ক্যান্সার টিউমারটিকে সম্পূর্ণভাবে ধ্বংস করা সম্ভব। ৩) যাদের কেমোথেরাপি বা রেডিওথেরাপি দেওয়ার পরও ক্যান্সার টিউমার রয়ে গেছে বা পুনরায় ক্যান্সার দেখা গেছে বা বড় হয়ে গেছে তাদের ক্ষেত্রে সবচেয়ে সফল চিকিৎসা হচ্ছে RFA এবং কোনো কোনো ক্ষেত্রে কেমোথেরাপির সমন্বিত প্রয়োগ।

বর্তমানে ইউরোপ, আমেরিকার সব স্বনামধন্য ক্যান্সার হাসপাতালে ফুসফুস, লিভার, কিডনি, হাড়, স্তন ক্যান্সার রোগে RFA কে ব্যাপক হারে ব্যবহার করা হচ্ছে।

ফুসফুসে ক্যান্সার : ১। যাদের ফুসফুস ক্যান্সার টিউমার ৪ সে. মি. এর নিচে তাদের ৯৭% রোগীর টিউমার RFA দিয়ে সম্পূর্ণ ধ্বংস সম্ভব এবং এর সঙ্গে রেডিওথেরাপি প্রয়োগ করলে ৯৫% ১ বছর, ৮৫% ২ বছর, ৭৫% ৩ বছর, ৬২% ৫ বছর রোগমুক্ত থাকে। ২। যাদের ফুসফুস ক্যান্সার টিউমার ৪ সে. মি. এর বেশি, তাদের ৮৭% রোগীর টিউমার RFA দিয়ে সম্পূর্ণ ধ্বংস করা সম্ভব এবং এর সঙ্গে রেডিওথেরাপি এবং কোনো কোনো ক্ষেত্রে কেমোথেরাপি প্রয়োগ করে ৫৭% রোগী ৩ বছর রোগমুক্ত থাকে।

৩। যাদের ফুসফুস ক্যান্সার টিউমার ৫ সে. মি. এর বেশি, বুকের সঙ্গে লেগে থাকে, হৃৎপিণ্ড অথবা রক্তনালির সঙ্গে লেগে থাকে অথবা লিম্পফ গ্রন্থি ছড়িয়ে পড়েছে, তাদের টিউমার RFA দিয়ে ধ্বংস করে রেডিওথেরাপি।

লিভার বা যকৃৎ ক্যান্সার : ১। যাদের লিভার ক্যান্সার টিউমার ৩-৫ সে. মি. এর নিচে তাদের RFA এ দিয়ে চিকিৎসা করে সার্জারির মতো ভালো ফলাফল পাওয়া যায় অথচ পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই বলেই চলে। ২। যাদের লিভার ক্যান্সার টিউমার ৫-৮ সে. মি. তাদের RFA এ দিয়ে চিকিৎসা করে দেখা গেছে, ৯০% রোগী ১ বছর, ৮০% ২ বছর, ৬৫% ৩ বছর সুস্থ থাকে। ৩। যাদের লিভার ক্যান্সার টিউমার ১০-১২ সে. মি. তাদের RFA এ দিয়ে চিকিৎসা করে দেখা গেছে, ৮০% রোগী ১ বছর, ৬৫% ২ বছর, ৩০% ৩ বছর সুস্থ থাকে।

লেখক : অনকোলজিস্ট, ধানমন্ডি ক্লিনিক

প্রাইভেট লিমিটেড, গ্রীণ রোড, ঢাকা।

 

 

 

সর্বশেষ খবর