শিরোনাম
প্রকাশ : ২ ডিসেম্বর, ২০২০ ০৯:১৯
আপডেট : ২ ডিসেম্বর, ২০২০ ১২:২০
প্রিন্ট করুন printer

বালিশ, বিছানা, ত্রিপল, অ্যাম্বুল্যান্স সঙ্গে নিয়ে দিল্লি অভিমুখে কৃষকরা

অনলাইন ডেস্ক

বালিশ, বিছানা, ত্রিপল, অ্যাম্বুল্যান্স সঙ্গে নিয়ে দিল্লি অভিমুখে কৃষকরা

কৃষকদের অবরোধে দিল্লি। ভারতের হরিয়ানার কুরুক্ষেত্র থেকে ১৫০ কিলোমিটার দূরে রাজধানীতে এ যেন আর এক ‘কুরুক্ষেত্র’। দাবি আদায়ের লড়াইয়ে সময় লাগতে পারে অনেক। তার উপর রয়েছে করোনা এবং উত্তর ভারতের কড়া শীত। এ সব কথা মাথায় রেখেই বেশ কয়েক মাসের সরঞ্জাম সঙ্গে নিয়েই দিল্লির দরবারে উপস্থিত বিক্ষোভকারীরা।

মঙ্গলবার কৃষকদের বিক্ষোভ ষষ্ঠ দিনে অতিক্রম করলো। বিজ্ঞানভবনে এক দফা আলোচনাও হয়েছে সরকারের সঙ্গে। কিন্তু তাতে বরফ গলেনি। 

বিক্ষোভকারীদের দাবি মেনে নতুন ৩ কৃষি আইন প্রত্যাহারে নারাজ কেন্দ্র। উল্টো দিকে অনড় কৃষকরাও। টানাপড়েন যে আরও কত দিন চলবে তার নিশ্চয়তা নেই। তাই আগেভাগে পরিকল্পনা করে খাবার, পানি, বালিশ, বিছানা, কম্বল, ত্রিপল, ওষুধ, অ্যাম্বুল্যান্স-এ সব গুছিয়ে নিয়েই পথে নেমে পড়েছেন পাঞ্জাব, হরিয়ানা, উত্তরপ্রদেশ, উত্তরাখণ্ড-সহ বেশ কয়েকটি রাজ্যের কৃষকরা।

বিশাল সেনাবাহিনী নিয়ে রাজা-মহারাজাদের অভিযান। প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে দীর্ঘকাল ধরে সীমানা অবরুদ্ধ করে রাখার কৌশল। এমন সব অভিযানে সঙ্গে থাকত প্রচুর খাবারদাবার, চিকিৎসা সরঞ্জাম এবং নিত্য প্রয়োজনীয় অন্য জিনিসপত্রও। ইতিহাসে এমন বর্ণনা মেলে বিস্তর। কয়েকশো কিলোমিটার রাস্তা পেরিয়ে কৃষকদের ‘দিল্লি চলো’ অভিযানেও ঠিক যেন সেই ছবি। হরিয়ানা-দিল্লির সিঙ্ঘু সীমানায় জিটি কার্নাল রোডের পাশে সাজানো বিক্ষোভকারীদের একের পর এক শিবির।

দাঁত মাজার ব্রাশ, মাজন থেকে শুরু করে খাবার, পানীয় জল, ওষুধ বা ঘুমনোর জন্য প্রয়োজনীয় কম্বল, বিছানা-সবই মজুত কৃষকদের ট্রাক্টরে। জামাকাপড় কাচার জন্য রয়েছে ডিটারজেন্ট এবং সাবান। তা শুকনোর জন্য ট্রাক্টরে বাঁধা হয়েছে দড়ি। এক ঝলকে দেখলে মনে হবে রাজপথের পাশেই নতুন কোনও জনপদ।

সকালে ঘুম ভাঙার পর বিক্ষোভকারীদের হাতে হাতে চা, ক্ষীর ইত্যাদি সরবরাহ করছে খালসা এড ফাউন্ডেশন। দেওয়া হচ্ছে মিনারেল ওয়াটারের বোতলও। 

ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তা অমরপ্রীত সিংহ বলছেন, খাবার ছাড়াও নারীদের জন্য আমরা ২০টি মোবাইল শৌচাগার বসিয়েছি। কৃষকরা এখানে দিনরাত বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন। আমরা চাই না ওরা কোনও অসুবিধার সম্মুখীন হোন।

এদিকে পাঞ্জাবের কপূরথালা থেকে একদল কৃষক দিল্লি পৌঁছেছেন অ্যাম্বুল্যান্স নিয়ে। সঙ্গে রয়েছে বিপুল পরিমাণ ওষুধপত্রও। দিল্লির সীমানায় যেখানে অবরোধ চলছে, সেই সিঙ্ঘু এলাকায় খোলা হয়েছে স্বাস্থ্যশিবির। 

মঙ্গলবার দেশটির বিজ্ঞানভবনে কৃষক সংগঠনগুলির ৩৫ জনের একটি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠকে বসেন কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিংহ তোমর, কেন্দ্রীয় বাণিজ্যমন্ত্রী পীযূষ গয়াল এবং শিল্প প্রতিমন্ত্রী সোম প্রকাশ। কিন্তু প্রথম দফার সেই আলোচনা ব্যর্থ।

সূত্র: আনন্দবাজার।

বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১৪:০৬
প্রিন্ট করুন printer

বেপরোয়া আচরণ করছে চীনা বিমানবাহিনী, অভিযোগ তাইওয়ানের

অনলাইন ডেস্ক

বেপরোয়া আচরণ করছে চীনা বিমানবাহিনী, অভিযোগ তাইওয়ানের

তাইওয়ানের সঙ্গে বেপরোয়া আচরণ করছে চীনা বিমানবাহিনী। এমন অভিযোগ করেছে তাইওয়ান কর্তৃপক্ষ।

দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, গত শনিবার চীনের আটটি বোমারু বিমান এবং চারটি যুদ্ধবিমান দ্বীপের বিমান প্রতিরক্ষা শনাক্তকরণ অঞ্চলের দক্ষিণ-পশ্চিম কোণে প্রবেশ করেছিল। খবর দ্য সিঙ্গাপুর পোস্টের।

এদিকে চীনের দাবি, তাইওয়ান তাদের নিজস্ব অঞ্চল। আর সাম্প্রতিক মাসগুলোতে তাইওয়ানের দক্ষিণাঞ্চল এবং দক্ষিণ চীন সাগরের তাইওয়ান নিয়ন্ত্রিত প্রাতাস দ্বীপপুঞ্জের মাঝামাঝি স্থান দিয়ে প্রায় প্রতিদিন বিমান পরিচালনা করেছে চীন।

সেখানে এতগুলো চীনা যুদ্ধবিমানের উপস্থিতি ভাবিয়ে তুলেছে তাইওয়ানকে। তাইওয়ান বলছে, আটটি পারমাণবিক-ক্ষমতা সম্পন্ন এইচ-৬কে বোমারু বিমান এবং চারটি জে-১৬ যুদ্ধবিমান নিয়ে এভাবে উড়ে যাওয়ার বিষয়টি অস্বাভাবিক ছিল।

তাইওয়ানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় একটি মানচিত্রে দেখিয়েছে, ওয়াই-৮ অ্যান্টি-সাবমেরিন বিমানসহ চীনা বিমানগুলো যে জায়গা দিয়ে গেছে, প্রাতাস দ্বীপপুঞ্জের নিকটের সেই জায়গা থেকে অনেক দূরে সাম্প্রতিক চীনের অন্য মিশনগুলো হয়েছে। কিন্তু এবার তারা তাইওয়ানের মূল ভূখণ্ডে ঢুকে পড়েছে।

তাইওয়ানের বিমানবাহিনী চীনের বিমানকে সতর্ক করে দিয়ে বলছে, পর্যবেক্ষণের জন্য ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েন করা হয়েছে। এক বিবৃতিতে তারা বলছে, বিমান আসার ব্যাপারে সতর্কতা জারি করা হয়েছিল, রেডিও সতর্কতা জারি করা হয়েছিল এবং বিমান প্রতিরক্ষা ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থাটি মোতায়েন করা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলছে, তাইওয়ানের ওপর চাপ প্রয়োগ বন্ধ করা দরকার চীনের। দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নেড প্রাইস বলেছেন, আমরা বলব যে, চীন তাদের সেনা, কূটনীতি এবং অর্থনৈতিকভাবে তাইওয়ানের ওপর চাপ প্রয়োগ বন্ধ করুক। এর বদলে তাইওয়ানের গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে নির্বাচিত ব্যক্তিবর্গের সঙ্গে অর্থপূর্ণ আলোচনায় বসুক। সূত্র: দ্য সিঙ্গাপুর পোস্ট

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১৩:১৫
প্রিন্ট করুন printer

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিযোগ শুনতে সুপ্রিম কোর্টের অস্বীকৃতি

অনলাইন ডেস্ক

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিযোগ শুনতে সুপ্রিম কোর্টের অস্বীকৃতি

ক্ষমতায় নেই তাই সদ্য সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিযোগ শুনবেন না মার্কিন সুপ্রিম কোর্ট। স্থানীয় সময় সোমবার মার্কিন সুপ্রিম কোর্ট এ অস্বীকৃতি জানান। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বিদেশি সরকার থেকে মুনাফা করতে পারবেন না। এ বিষয়ে দেশটির সংবিধানে বিধি আছে। বিধিটি ট্রাম্প লঙ্গন করেছেন কী না- সে বিষয়েই অভিযোগটি তোলা হয়েছিল।

মার্কিন সুপ্রিম কোর্ট অভিযোগ শুনতে শুধু অস্বীকৃতি জানিয়েছেন, তা নয়।  ট্রাম্পের বিরুদ্ধে দেওয়া মতামত মুছে ফেলতে নিম্ন আদালতকেও নির্দেশ দিয়েছেন। কারণ ট্রাম্প আর ক্ষমতায় নেই।

প্রসঙ্গত, যুক্তরাষ্ট্রে সাধারণত সাবেক প্রেসিডেন্টদের বিচার হয় না। যদিও ট্রাম্পের ক্ষেত্রে এর ব্যত্যয় ঘটছে। তাকে চলতি জানুয়ারি মাসেই দ্বিতীয়বারের মতো অভিসংশিত করে মার্কিন কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদ। এবার সিনেটে তাকে অভিসংশনের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। 

গত নভেম্বরে অনুষ্ঠিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ফলাফল মানতে না পারলেও গত ২০ জানুয়ারি হোয়াইট হাউজ ছেড়ে চলে যান ট্রাম্প। একই দিন ক্ষমতাগ্রহণের পর পুরোদমে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে জো বাইডেন প্রশাসন।   

বিডি প্রতিদিন/ফারজানা


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১২:৫৮
প্রিন্ট করুন printer

কাশ্মীরে হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়ে ভারতীয় পাইলট নিহত

অনলাইন ডেস্ক

কাশ্মীরে হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়ে ভারতীয় পাইলট নিহত

ভারত অধিকৃত কাশ্মীরের কাঠুয়া জেলায় দেশটির সেনাবাহিনীর একটি হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়ে এক পাইলট নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় অপর পাইলটকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

সোমবার সন্ধ্যায় পাঞ্জাবের পাঠানকোট থেকে সেনাবাহিনীর ওই হেলিকপ্টারটি কাশ্মীরে আসার পথে কাঠুয়া জেলার লাখানপুরে দুর্ঘটনায় পড়ে। 

ভারতীয় গণমাধ্যম জানায়, জরুরি অবতরণের সময় দুর্ঘটনার কবলে পড়ে গুরুতর আহত হেলিকপ্টারের দুই পাইলটকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক এক পাইলটকে মৃত ঘোষণা করেন। আরেকজন চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ ধারণা করছে, আকাশে হেলিকপ্টারটিতে যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা যায়। এরপর অবতরণের সময় তা দুর্ঘটনার কবলে পড়ে।

বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১২:২৪
প্রিন্ট করুন printer

‘নতুন স্নায়ু যুদ্ধের’ বিষয়ে বিশ্ব সম্প্রদায়কে সতর্ক করলেন চীনা প্রেসিডেন্ট

অনলাইন ডেস্ক

 ‘নতুন স্নায়ু যুদ্ধের’ বিষয়ে বিশ্ব সম্প্রদায়কে সতর্ক করলেন চীনা প্রেসিডেন্ট
শি জিনপিং

বিশ্ব সম্প্রদায়কে ‘নতুন স্নায়ু যুদ্ধের’ বিষয়ে সতর্ক করলেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। 

সোমবার দাভোসের ভার্চুয়াল সম্মেলনে তিনি বলেন, ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ না করলে মহামারী নির্মূল অসম্ভব। সেক্ষেত্রে চীনকে বর্জনের মাধ্যমে কেবল সংঘাতই বাড়বে।

শি জিনপিং বলেন, আমাদের সবাইকে নিঃসংকোচে মহামারী মোকাবেলায় অংশ নিতে হবে। সবাই যদি বর্জনের মন-মানসিকতা নিয়ে এগোই, তাহলে ‘নতুন স্নায়ু যুদ্ধ’ বেশি দূরে নয়।

শি জিনপিং আরও বলেন, করোনাভাইরাস নির্মূলে সবাইকে জোটবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। কারণ হুমকি-হুঁশিয়ারি বা নিষেধাজ্ঞা শুধু দেশে-দেশে বিভাজনই সৃষ্টি করবে, বাড়াবে সংঘাত। মানবিকতা না বাড়ালে যেকোনও সংকটের সমাধান অসম্ভব।

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১২:০৯
প্রিন্ট করুন printer

পুলিশ ব্যারিকেড ভেঙে দিল্লিতে কৃষকদের ট্রাক্টর মিছিল

অনলাইন ডেস্ক

পুলিশ ব্যারিকেড ভেঙে দিল্লিতে কৃষকদের ট্রাক্টর মিছিল

তিন বিতর্কিত কৃষি আইনের প্রতিবাদে ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবসে রাজধানী দিল্লিতে সকাল থেকেই কৃষকরা বিক্ষোভ শুরু করেন। কথা ছিল স্থানীয় সময় দুপুর ১২টার পর শুরু হবে ট্রাক্টর মিছিল। কিন্তু সকাল সাড়ে ৮টার দিকেই সিংঘু সীমান্তে পুলিশের ব্যারিকেড ভেঙে ফেলেন কৃষকরা। নির্ধারিত সময়ের অনেক আগেই ট্রাক্টর নিয়ে দিল্লিরেতে ঢুকতে শুরু কছেন তারা। হাজার হাজার কৃষক ট্রাক্টর নিয়ে সকাল সাড়ে ৮টা থেকেই মিছিল শুরু করে দেন।

ট্রাক্টর র‍্যালি ঘিরে উত্তেজনার মধ্যে কৃষকদের উপর লাঠিচার্জের অভিযোগ পুলিশের বিরুদ্ধে। পরিস্থিতি সামলাতে কাঁদানে গ্যাসও নিক্ষেপ করে পুলিশ। 

ভারতীয় গণমাধ্যম জানা যায়, প্রজাতন্ত্র দিবস উপলক্ষে তিনটি নির্দিষ্ট রাস্তায় কৃষকদের ট্রাক্টর মিছিল করার অনুমতি দিয়েছিল দিল্লি পুলিশ। কিন্তু মঙ্গলবার সরকারি নির্দেশনা উপেক্ষা করে সকাল সকাল মিছিল শুরু করে দেন কৃষকরা। পুলিশ বারবার অনুরোধ করে ধীর গতিতে এগোতে। কিন্তু সিংঘু সীমানায় ৫ হাজার কৃষকের জমায়েতের সামনে উপস্থিত সামান্য সংখ্যায় পুলিশকর্মীরা রীতিমতো অসহায় হয়ে পড়েন।

পশ্চিম দিল্লি সীমান্তে, টিকরি সীমান্তেও ছবিটা কিছুটা একই রকম ছিল সকাল থেকে। যদিও সেখানে কৃষক নেতারা ঘোষণা করেন, প্রতিবাদীরা যেন শান্তি বজায় রাখেন। পুলিশের সঙ্গে কথা বলে তারা নিয়ম মেনে ট্রাক্টর মিছিল শুরু করবেন।

নতুন কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে সকাল থেকেই হাজার হাজার কৃষক জড়ো হয়েছেন দিল্লির বিভিন্ন সীমান্তে। দিল্লি পুলিশ রাজপথে সরকারি প্যারেডের পর কৃষকদের মিছিল শুরু করার কথা বললেও শেষ পর্যন্ত কৃষকরা সকাল থেকেই শুরু করে দিয়েছেন প্রতিবাদ। যা পরে আরও বড় আকার ধারণ করতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

সূত্র: আনন্দবাজার।

বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

এই বিভাগের আরও খবর