শিরোনাম
প্রকাশ : ১৭ মে, ২০২১ ০৮:০৮
প্রিন্ট করুন printer

হামাসের সঙ্গে যদি এই অবস্থা হয় তাহলে ইরানের সঙ্গে কি হবে?

অনলাইন ডেস্ক

হামাসের সঙ্গে যদি এই অবস্থা হয় তাহলে ইরানের সঙ্গে কি হবে?
ইসরায়েলের সাবেক যুদ্ধমন্ত্রী এভিগডোর লিবারম্যান
Google News

ইসরায়েলের সাবেক যুদ্ধমন্ত্রী এভিগডোর লিবারম্যান প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহুর তীব্র সমালোচনা করে বলেছেন, হামাসের হামলা মোকাবিলায় যদি ইসরায়েলের এরকম ছন্নছাড়া অবস্থা হয় তাহলে ইরান বা হিজবুল্লাহর সঙ্গে যুদ্ধ বাধলে কি হবে?

তিনি ইসরায়েলের ১২ নম্বর টিভি চ্যানেলকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এ মন্তব্য করেন বলে রুশ বার্তা সংস্থা স্পুটনিক জানিয়েছে। 

ফিলিস্তিন-ইসরায়েল সংঘাতের সর্বশেষ পরিস্থিতি বিশ্লেষণ করতে গিয়ে সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ যোদ্ধাদের মোকাবিলায় ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর দুর্বলতা স্পষ্টভাবে চোখে পড়ছে।

লিবারম্যান বলেন, ইসরায়েলি মন্ত্রিসভা এর আগে ফিলিস্তিনিদের মোকাবিলায় এতটা দুর্বলতা দেখায়নি। তিনি এজন্য নেতানিয়াহুর চলমান রাজনৈতিক দুর্বল অবস্থানের কথাও উল্লেখ করেন। 

সাবেক ইসরায়েলি যুদ্ধমন্ত্রী বলেন, “এই প্রথম আমাদেরকে দু’টি ফ্রন্টে লড়াই করতে হচ্ছে। একটি গাজার বিরুদ্ধে আরেকটি ইসরায়েলের মধ্যে।”

এভিগডোর লিবারম্যান ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহুর সমালোচনা করে আরও বলেন, “নেতানিয়াহু ইসরায়েলি জনগণের সামনে নিজের ভাবমর্যাদা উজ্জ্বল করতে গিয়ে সেনাবাহিনীকে বিপদের মুখে ঠেলে দিয়েছেন। আর এর ফলে হামাসের বিজয়ের সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে।”

লিবারম্যান এমন সময় এসব কথা বললেন যখন অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকা থেকে হামাসসহ অন্যান্য প্রতিরোধ যোদ্ধাদের নিক্ষিপ্ত ক্ষেপণাস্ত্র ইসরায়েলের রাজধানী তেল আবিবসহ প্রায় প্রতিটি শহরে আঘাত হানছে। আয়রন ডোম নামক ইসরায়েলি আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা দিয়ে হামাসের সব রকেট ও ক্ষেপণাস্ত্র ঠেকানো সম্ভব হচ্ছে না। এসব হামলার মোকাবিলায় প্রতিরোধ যোদ্ধাদের কোনও ক্ষতি করতে না পারলেও গাজার বেসামরিক অবস্থানে নির্বিচারে বিমান হামলা চালিয়ে অসংখ্য নিরপরাধ ফিলিস্তিনিকে হত্যা করে যাচ্ছে ইসরায়েল।

বিডি প্রতিদিন/কালাম

এই বিভাগের আরও খবর