শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৩ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৩ ০০:০০

জুরাইন ও বাগেরহাট আওয়ামী লীগ অফিসে আগুন

জুরাইন ও বাগেরহাট আওয়ামী লীগ অফিসে আগুন

রাজধানীর জুরাইনে ৮৮ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে আগুন দিয়েছে জামায়াত-শিবির কর্মীরা। গতকাল সকাল সাড়ে ৬টার দিকে মুরাদপুর রোডের মাথায় এ ঘটনা ঘটে। এতে ১৫/২০ জন জামায়াত-শিবির কর্মী অংশগ্রহণ করে বলে জানা গেছে। আগুন দেওয়ার খবর শুনে স্থানীয় জনগণসহ আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা তাদের ধাওয়া করে। ধাওয়ার মুখে তারা ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। কদমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাজহারুল ইসলাম জানান, সকালে জামায়াত-শিবিরের ১৫-২০ জন কর্মী ৮৮ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাবেক কার্যালয়ে আগুন ধরিয়ে দিলে অফিসের দরজা পুড়ে যায়। পরে স্থানীয় জনগণ ও আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মী ধাওয়া দিলে তারা স্থান ত্যাগ করে। খবর পেয়ে টহলরত পুলিশও জামায়াত-শিবির কর্মীদের ধাওয়া করে। ঘটনাস্থল থেকে কাউকে আটক করতে পারেনি পুলিশ। তবে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা জানান, টিনের তৈরি ওই কার্যালয়টি এখন আর ব্যবহার করা হচ্ছে না। এদিকে, বাগেরহাটের কচুয়া উপজেলায় আওয়ামী লীগের একটি ওয়ার্ড কার্যালয় পুড়িয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। শুক্রবার গভীর রাতে উপজেলার শাঁখারীকাঠি বাজারে বাধাল ইউনিয়ন ৬ নম্বর ওয়ার্ড কার্যালয়টি পুড়িয়ে দেওয়া হয়।

এ ঘটনার জন্য জামায়াত-শিবিরকর্মীদের দায়ী করেছে আওয়ামী লীগ। বাধাল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও যুবলীগ নেতা খান আব্দুল কাদের বলেন, গত ১২ ডিসেম্বর শাঁখারীকাঠি বাজারে গোপন বৈঠকের সময় আক্কাস শেখ (৩২) নামে এক জামায়াতকর্মীকে গ্রেপ্তারের জেরে জামায়াত-শিবির কর্মীরা এই ঘটনা ঘটিয়েছে। কচুয়া থানার উপ-পরিদর্শক হুমায়ুন কবির জানান, রাত আড়াইটার দিকে কে বা কারা শাখারীকাঠি বাজারে ৬ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে আগুন দেয়। আগুনে পাশের চারটি দোকানও পুড়ে যায়। তিনি বলেন, এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে রাতেই ঘটনাস্থল থেকে দুই যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এছাড়া শুক্রবার রাতে জামায়াত-শিবির কর্মীরা বাগেরহাট শহরের মেগনিতলা এলাকায় শ্রমিক লীগের এক নেতার অটোরিকশা পুড়িয়ে দিয়েছে। সদর উপজেলার কাড়াপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ফারুক শেখ ও শ্রমিক লীগ কর্মী আব্দুস সবুরের বাড়িতে আগুন দেয় তারা।


আপনার মন্তব্য