Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper

শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ৫ ডিসেম্বর, ২০১৮ ২৩:৩৯

ভোটের হাওয়া সারাদেশে

রাঙ্গার হাতেই জাপার চূড়ান্ত মনোনয়ন ক্ষমতা

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাঙ্গার হাতেই জাপার চূড়ান্ত মনোনয়ন ক্ষমতা

জাতীয় পার্টির প্রার্থীদের চূড়ান্ত মনোনয়ন দেওয়ার ক্ষমতা নতুন মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গাকে দিয়েছেন পার্টি চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। গতকাল ‘চূড়ান্ত মনোনয়ন ও প্রতীক বরাদ্দে’ ক্ষমতাপ্রাপ্ত ব্যক্তির নতুন তালিকা নির্বাচন কমিশনে জমা দেওয়া হয়। রুহুল আমিন হাওলাদারকে সরিয়ে নতুন মহাসচিব ঘোষণার পর একাধিক দলীয় প্রার্থীর চূড়ান্ত মনোনয়ন নিয়ে জটিলতা তৈরির পরিপ্রেক্ষিতে এ পদক্ষেপ নেয় জাপা। নবনিযুক্ত মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা গণমাধ্যমকে বলেন, আমাকে চূড়ান্ত মনোনয়নের ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে। বুধবার সকালেই এ সংক্রান্ত চিঠি ইসিতে পাঠানো হয়েছে। ইসির উপসচিব আবদুল হালিম খান জানান, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের স্বাক্ষরে চূড়ান্ত মনোনয়ন ও প্রতীক বরাদ্দের বিষয়ে চিঠি এসেছে। সেক্ষেত্রে আগের মহাসচিবের চূড়ান্ত মনোনয়নের আর সুযাগ থাকবে না। জাপার মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গাকে ক্ষমতা দিয়ে নতুন চিঠিটি কমিশনের বিবেচনার জন্য উপস্থাপন করা হয়েছে। যথাসময়ে রিটার্নিং কর্মকর্তাদের তা জানানো হবে। ভোটে অংশ নিচ্ছে ৩৯টি নিবন্ধিত দল : দলীয় প্রার্থী প্রত্যয়নে অধিকাংশ দলই একজনকে দায়িত্ব দিয়েছে। সেক্ষেত্রে কোনো দল সভাপতি/চেয়ারম্যানকে, কোনো দল সাধারণ সম্পাদক/মহাসচিবকে ক্ষমতা দিয়েছে। কয়েকটি দল দুই থেকে তিনজনকেও প্রত্যয়নের ক্ষমতা দিয়েছে। ইসি কর্মকর্তারা জানান, রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছেই দলীয় প্রত্যয়নে ক্ষমতাপ্রাপ্ত ব্যক্তির পদবি, নাম ও নুমনা স্বাক্ষর দিতে হবে। পাশাপাশি নির্বাচন কমিশনে অনুলিপি দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে। প্রত্যয়ন ক্ষমতা যাদের কাছে— ইসি ইতিমধ্যে যেসব দলের তথ্য পেয়েছে সেগুলো হলো— আওয়ামী লীগের শেখ হাসিনা, বিএনপির মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের ইউনুস আহমদ সেখ, বিএনএফ-এর আবুল কালাম আজাদ, ইসলামী ঐক্যজোটের আবদুল লতিফ নেজামী, বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের এম এ মতিন, পিডিপির এম এ হোসেন, এনপিপির শেখ ছালাউদ্দিন ছালু, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের মাওলানা আয়াতুল্লাহ, জাকের পার্টির মোস্তফা আমির ফয়সাল, গণফ্রন্টের জাকির হোসেন, সিপিবির মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, জাগপার তাসমিয়া প্রধান ও লুত্ফুর রহমান খন্দকার, এলডিপির অলি আহমদ, জেএসডির আ স ম রব, খেলাফত মজলিসের মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক, সাম্যবাদী দলের দিলীপ বড়ুয়া, কল্যাণ পার্টির এম এম আমিনুর রহমান, জেপির শেখ শহীদুল ইসলাম, বাংলাদেশ ন্যাপের গোলাম মোস্তফা ভুঁইয়া, গণফোরামের মোস্তফা মোহসীন মন্টু, জাসদের হাসানুল হক ইনু, সাংস্কৃতিক মুক্তিজোটের আবু লায়েস মুন্না, ন্যাপের আমিনা আহমেদ, বিকল্পধারার আবদুল মান্নান, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের হাবিবুর রহমান, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাইফুল হক, বাংলাদেশ মুসলীম লীগের জুবাইদা কাদের চৌধুরী, জাতীয় পার্টির মসিউর রহমান রাঙ্গা, তরিকত ফেডারেশনের নজিবুল বশর মাইজভাণ্ডারী ও সৈয়দ রেজাউল হক চাঁদপুরী; বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির এম এ মুকিত, এ এন এম সিরাজুল ইসলাম ও জাফর আহম্মদ জয়।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর