শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২৩:১৭

মেয়র প্রার্থীদের কত সম্পদ

হলফনামা অনুযায়ী পাঁচ প্রার্থীর মধ্যে তিনজন কোটিপতি। আতিকের বাড়ি থাকলেও নিজ নামে গাড়ি নেই। ববি হাজজাজের গাড়ি আছে বাড়ি নেই। আবদুর রহিমের শিক্ষাগত যোগ্যতা অষ্টম শ্রেণি

গোলাম রাব্বানী

মেয়র প্রার্থীদের কত সম্পদ

ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র পদের উপনির্বাচনে ভোটের লড়াইয়ে রয়েছেন ৫ প্রার্থী। এর মধ্যে চার প্রার্থীর পেশা ব্যবসা, একজনের রাজনীতি। তবে সবার আয়ের মূল উৎস ব্যবসা। শিক্ষাগত যোগ্যতায় স্বশিক্ষিত থেকে এমবিএ পাস পর্যন্ত রয়েছেন। তবে পাঁচজনের মধ্যে তিন প্রার্থী কোটিপতি। আওয়ামী লীগ প্রার্থীর বাড়ি থাকলেও নিজের নামে গাড়ি নেই। এনডিএম প্রার্থীর গাড়ি থাকলেও বাড়ি নেই। নির্বাচন কমিশনে জমা দেওয়া পাঁচ প্রার্থীর হলফনামা বিশ্লেষণ করে এসব তথ্য পাওয়া গেছে। ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র পদের উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আতিকুল ইসলাম। পেশায় তিনি ব্যবসায়ী। শিক্ষাগত যোগ্যতায় তিনি বিকম পাস। তবে এই প্রার্থীর বাড়ি থাকলেও নিজের নামে গাড়ি নেই। নির্বাচন কমিশনে জমা দেওয়া হলফনামা থেকে এসব তথ্য পাওয়া গেছে। হলফনামায় দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, তার বার্ষিক আয় কোটি টাকার  বেশি। এর মধ্যে কৃষি খাতে ৩ লাখ ৫৫ হাজার টাকা, বাড়ি/অ্যাপার্টমেন্ট/দোকান বা অন্যান্য ভাড়া বাবদ ৩৬ লাখ ৫০ হাজার ৪০৪ টাকা, ব্যবসা (পরিতোষিক) ৫১ লাখ ৪০ হাজার টাকা, অন্যান্য খাত থেকে আয় ১৭ লাখ ৮৬ হাজার ৫৭১ টাকা। এ ছাড়া তার স্ত্রী শায়লা শগুফতা ইসলামের পেশা থেকে আয় ১৯ লাখ ৫০ হাজার এবং অন্যান্য খাতে আয় ৫ লাখ ৮৭ হাজার ৩৯২ টাকা। অস্থাবর সম্পদের মধ্যে তার নিজের নামে নগদ টাকা দেখানো হয়েছে ৮৭ হাজার ৬৩ টাকা, বৈদেশিক মুদ্রা ব্যাংকে জমা ১৫৭৬.১৩ (ইউএস ডলার), ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে জমা ১ কোটি ১০ লাখ ৪৮ হাজার ৪৫৯ টাকা (২২.০১.২০১৯ পর্যন্ত)। এ ছাড়া বন্ড, স্টক এক্সচেঞ্জ তালিকাভুক্ত ও তালিকাভুক্ত নয় এমন কোম্পানির শেয়ার ৩ কোটি ৭৫ লাখ ২৪ হাজার টাকা, সোনা ও অন্যান্য ২ লাখ টাকার, ইলেকট্রনিক সামগ্রী ৫ লাখ টাকা, আসবাবপত্র ৫ লাখ টাকার। এ ছাড়া তার স্ত্রীর নামে রয়েছে-নগদ ২ কোটি ৫৯ লাখ ২৯ হাজার ৭৬৪ টাকা (ব্যবসার পুঁজি ২ কোটি), ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে জমা ১১ লাখ ৪৯ হাজার ৯০৫ টাকা, সোনা ৩০ ভরি, ইলেকট্র্রনিক সামগ্রী ৩ লাখ ও আসবাবপত্র ২ লাখ টাকার। স্থাবর সম্পদের মধ্যে নিজের নামে ৪ কোটি ১৩ লাখ ৯০ হাজার ২৯১ টাকার (পরিমাণ ১০৭৪.০৩৫ শতাংশ) এবং স্ত্রীর নামে ৩২ লাখ ১ হাজার ৭৫৩ টাকার কৃষিজমি রয়েছে। নিজের নামে অকৃষি জমি রয়েছে ২৬ লাখ ৩৫ হাজার ৭৩৩ টাকার, বাড়ি এবং অ্যাপার্টমেন্ট ২ কোটি ৫৭ লাখ ৫০ হাজার টাকার, মৎস্য খামার ১ লাখ ২০ হাজার টাকার এবং স্ত্রীর নামে ৫০ লাখ টাকার (বায়নাকৃত) বাড়ি এবং অ্যাপার্টমেন্ট রয়েছে। এ ছাড়া তার নামে গৃহ ও অন্যান্য ঋণ রয়েছে। এনডিএমের মেয়র প্রার্থী ববি হাজ্জাজ। তার পেশা শিক্ষকতা ও ব্যবসা। শিক্ষাগত যোগ্যতা এমবিএ। গাড়ি থাকলেও বাড়ি নেই এই প্রার্থীর। তার বার্ষিক আয় শিক্ষকতা থেকে ৩ লাখ ২৭ হাজার টাকা, অন্যান্য খাতে ১২ হাজার ৪১২ টাকা। এ ছাড়া ৫০০ শেয়ার রয়েছে। আর স্ত্রীর আয় পেশা থেকে ৩ লাখ টাকা। অস্থাবর সম্পদের মধ্যে নিজের নামে নগদ ৫৪ লাখ ১০ হাজার ৮৬ টাকা, ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে জমা ১৩ লাখ ৩৮ হাজার ৬৪০ টাকা, ৫০০ শেয়ার, ১টি মোটরগাড়ি, ১০ হাজার টাকার সোনা, ৫০ লাখ টাকার লোন প্রদান রয়েছে। এ ছাড়া তার স্ত্রীর নামে নগদ টাকা রয়েছে ৪৫ হাজার, ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে জমা ১ লাখ ২০ হাজার টাকা এবং ৪০ লাখ টাকার ১০০ ভরি সোনা রয়েছে স্ত্রীর নামে। তবে তার কোনো স্থাবর সম্পদ নেই। স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী মোহাম্মদ আবদুর রহিম। শিক্ষাগত যোগ্যতা অষ্টম শ্রেণি পাস। বিচারাধীন মামলা রয়েছে ৮টি। পেশায় তিনি ব্যবসায়ী। তার ব্যবসা থেকে বার্ষিক আয় ৩ লাখ ৮২ হাজার ৪৯৭ টাকা, তার ওপর নির্ভরশীলদের আয় ২ লাখ ৮৮ হাজার ৫৪২ টাকা। অস্থাবর সম্পদের মধ্যে নিজের নগদ রয়েছে ৩ লাখ ৩ হাজার ৩০০ টাকা, ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠানে জমা ৬৫ লাখ ২০ হাজার ৫৪০ টাকা ও বন্ড, স্টক এক্সচেঞ্জ তালিকাভুক্ত ও তালিকাভুক্ত নয় কোম্পানির শেয়ার ৩ কোটি ১৫ লাখ ৫০ হাজার টাকার (৩,১৩,৫০০টি)। ২০ ভরি সোনা রয়েছে তার নামে। এ ছাড়া তার স্ত্রীর নামে নগদ ৩ লাখ ৮ হাজার ৯৮ টাকা, ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠানে জমা ৮৮ লাখ ৮০ হাজার ২০৫ টাকা ও বন্ড, স্টক এক্সচেঞ্জ তালিকাভুক্ত ও তালিকাভুক্ত নয় কোম্পানির শেয়ার ২ কোটি ২১ লাখ টাকার (২,২১,০০০টি) ও ১০ ভরি সোনা রয়েছে। স্থাবর সম্পদের মধ্যে নিজের নামে কৃষিজমি রয়েছে ৭৬.২৫ শতাংশ এবং ১২.২৫ শতাংশ। স্ত্রীর নামে কৃষিজমি রয়েছে ৫২ শতাংশ (কলমা)। নিজের নামে ফ্ল্যাট রয়েছে ৫০ লাখ ৪৩ হাজার ৫২০ টাকার। আর স্ত্রীর নামে ব্যাংক ঋণ রয়েছে। পিডিপির মেয়র প্রার্থী শাহীন খান। তিনি স্বশিক্ষিত। পেশা ব্যবসা। তিনি হলফনামায় কোনো বার্ষিক আয় দেখাননি। তার অস্থাবর সম্পদ রয়েছে-নগদ টাকা ২ লাখ ৫০ হাজার। ব্যাংকে জমা ৩ লাখ, একটি গাড়ি ও ৩ ভরি সোনা। এনপিপির মেয়র প্রার্থী আনিসুর রহমান দেওয়ান। শিক্ষাগত যোগ্যতা বিএসসি পাস। তার পেশা রাজনীতি ও সমাজসেবা। ব্যবসা থেকে আয় ২ লাখ ৪০ হাজার টাকা। নিজের নামে নগদ টাকা রয়েছে ৩০ হাজার, স্ত্রীর নামে ১০ হাজার টাকা। এ ছাড়া স্ত্রীর নামে ২০ ভরি সোনা রয়েছে। এ ছাড়া স্থাবর সম্পদে স্ত্রীর নামে ১টি ফ্ল্যাট রয়েছে।

 


আপনার মন্তব্য