শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১৫ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৪ জানুয়ারি, ২০২০ ২৩:৫৯

কাউন্সিলর দৌড়ে এগিয়ে ব্যবসায়ীরা

আছেন স্বশিক্ষিত থেকে পিএইচডি, উচ্চতর ডিগ্রিধারী ৭০ জন, স্বশিক্ষিত-নিরক্ষর ৩৪১ জন

গোলাম রাব্বানী

কাউন্সিলর দৌড়ে এগিয়ে ব্যবসায়ীরা

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি নির্বাচনে কাউন্সিলর প্রার্থীদের মধ্যে পেশায় সিংহভাগই ব্যবসায়ী। কৃষক, গৃহিণী, আইনজীবী, রাজনীতিক, চিকিৎসকও আছেন। শিক্ষাগত যোগ্যতার দৌড়ে বেশির ভাগ স্বশিক্ষিত থেকে মাধ্যমিক পাসের মধ্যে। রয়েছেন পিএইচডি ডিগ্রিধারী প্রার্থীও। আওয়ামী লীগ-বিএনপির সমর্থন পাওয়া কাউন্সিলর প্রার্থীদের রয়েছে অঢেল সম্পদ। কোটিপতি প্রার্র্থীর সংখ্যাও কম নয়। বিগত নির্বাচনে কাউন্সিলর হওয়ার পর পাল্টে গেছে অনেকের সম্পদের চিত্র। বার্ষিক আয়ের পাশাপাশি স্থাবর-অস্থাবর সম্পদও বেড়েছে হু হু করে। বাস্তবে দামি দামি গাড়ি ব্যবহার করলেও হলফনামায় গাড়ি-বাড়ির হিসাব নেই অনেক প্রার্থীর। আবার ঋণও রয়েছে অনেকের। স্ত্রীর নামেও রয়েছে সম্পদের পাহাড়। প্রার্থীদের জমা দেওয়া হলফনামা বিশ্লেষণ করে পাওয়া গেছে এসব তথ্য।

পেশায় সিংহভাগই ব্যবসায়ী : সহস্রাধিক মনোনয়নপত্র জমা দেওয়া প্রার্থীর মধ্যে অর্ধেকেরও বেশি জনের পেশা ব্যবসা। এর মধ্যে ক্ষুদ্র ব্যবসা, বাড়ি ভাড়া, আড়ত ব্যবসা, ঠিকাদারি, নার্সারি ব্যবসায়ী, কৃষক, থাই অ্যালুমিনিয়াম ব্যবসা, পোশাক বিক্রেতা, গৃহস্থালি কর্ম, মুদি স্টেশনারি ব্যবসা, পুঁজিবাজার ব্যবসা, বিবিধ ব্যবসা এবং চাকরিজীবী, সমাজসেবী, শিক্ষকতা, সাংবাদিকতা, আইনজীবী, গৃহিণী, রাজনীতিক, চিকিৎসক, ড্রাইভার, মিস্ত্রি ইত্যাদি উল্লেখ করা হয়েছে। শিক্ষায় দৌড় : এবার কাউন্সিলর পদে উচ্চতর ডিগ্রিধারী ৭০ জনের মতো মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এর মধ্যে এমএ ৩৩ জন, এমএসসি ৫ জন, এমএসএস ১৩ জন, এমবিএ দুজন, এমকম ১০ জন, এলএলএম পাঁচজন, এমবিবিএস তিনজন, পিএইচডি দুজন রয়েছেন।

মাধ্যমিক ও এর নিচে যারা : উত্তর ও দক্ষিণের প্রার্থীদের শিক্ষাগত যোগ্যতায় স্বশিক্ষিত, নিরক্ষর, অক্ষরজ্ঞানসম্পন্ন ও নাই- এমন তথ্য মিলেছে। এমন প্রার্থীর সংখ্যা অন্তত ৩৪১ জন। এ ছাড়া পঞ্চম শ্রেণি সাতজন, ষষ্ঠ শ্রেণি একজন, সপ্তম শ্রেণি চারজন, অষ্টম শ্রেণি ১২৬ জন ও নবম শ্রেণি রয়েছেন ১২ জন। এসএসসি পাস রয়েছেন ১৭১ জন, দাখিল করেছেন ছয়জন এবং ‘ও’ লেভেল রয়েছেন একজন। এইচএসসি পাস করেছেন ১৫১ জন, আলিম একজন এবং ‘এ’ লেভেল করেছেন একজন। হাফেজ রয়েছেন একজন। ট্রেড কোর্স, ইউনানি, আয়ুর্বেদিক, ডিপ্লোমা ইন রিয়েল এস্টেট, ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার, হোমিওপ্যাথিক ডাক্তার, রেস্টুরেন্ট ডিপ্লোমা, মেডিক্যাল ডিপ্লোমাসহ কয়েকটি কোর্স করার তথ্যও দিয়েছেন কিছু প্রার্থী। স্নাতক পাস-সম্মান : বি এ পাস করেছেন ৬৩ জন, বিকম ২১ জন, বিবিএ আটজন, বিএসসি ১৫ জন, ইঞ্জিনিয়ার তিনজন, বিএসএস ১১ জন এবং এলএলবি ২১ জন।

দুই সিটির রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে মনোনয়নপত্র জমার সময় হলফনামায় সাতটি তথ্য-সংবলিত দলিল জমা দিতে হয়েছে প্রার্থীদের। এর অনুলিপি কমিশনেও রয়েছে। নিয়ম অনুযায়ী, শিক্ষাগত যোগ্যতা, বর্তমানে মামলায় অভিযুক্ত কিনা, অতীতের মামলার রেকর্ড, পেশা, আয়ের উৎস, নিজের ও নির্ভরশীলদের সম্পদ-দায়, ঋণ- এই সাতটি তথ্য হলফনামা আকারে মনোনয়নপত্রের সঙ্গে যুক্ত করে দিয়েছেন প্রার্থীরা। উত্তর ও দক্ষিণে মোট ১৩ জন মেয়র প্রার্থীসহ কাউন্সিলরদের এসব হলফনামা নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে সবার জন্য উন্মুক্ত করা হচ্ছে। ঢাকার দুই সিটির আগামী ৩০ জানুয়ারির ভোটে সহস্রাধিক প্রার্থী সাধারণ ও কাউন্সিলর পদে মনোনয়নপত্র জমা দেন। এর মধ্যে আড়াই শতাধিক প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন।


আপনার মন্তব্য