শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১০ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৯ মার্চ, ২০২১ ২৩:৩১

চালকের নির্দেশে প্রতিবন্ধী নারীকে ছুড়ে ফেলে হেলপার

নিজস্ব প্রতিবেদক

ভুক্তভোগী বাকপ্রতিবন্ধী নারীর কাছে ভাড়া না থাকায় বাসের ভিতর প্রথমে তাকে নাজেহাল করেন হেলপার নাহিদ। এরপর চালক সবুজের নির্দেশে চলন্ত বাস থেকে তাকে ছুড়ে ফেলে দেওয়া হয়। গতকাল বিকালে র‌্যাব সদর দফতরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক লে. কর্নেল আশিক বিল্লাহ।

সোমবার রাতে ঢাকার কেরানীগঞ্জের কুচিয়ামারা এলাকায় অভিযান চালিয়ে বাসচালক মো. সবুজ মিয়া ও হেলপার মো. নাহিদকে গ্রেফতার করেন র‌্যাব-১০-এর সদস্যরা। এ ছাড়া এন মল্লিক পরিবহনের বাসটিও (ঢাকা মেট্রো-ব-১৩-১৫২১) জব্দ করা হয়। এ ঘটনায় বাদী হয়ে কেরানীগঞ্জ মডেল থানায় মামলা করেছেন ভুক্তভোগী প্রতিবন্ধী নারী মোসা. শিল্পী ওরফে মিষ্টির মা সমর্ত বানু। র‌্যাব কর্মকর্তা আশিক বিল্লাহ বলেন, বাকপ্রতিবন্ধীদের যাতায়াতের ক্ষেত্রে কর্তৃপক্ষ বিশেষ ভাড়ার বিধান রেখেছে। অথচ বাসে ওঠার পর ভুক্তভোগীর কাছে ভাড়া না থাকায় বাগ্্বিতন্ডার মাধ্যমে নাজেহাল করে চলন্ত বাস থেকে তাকে ছুড়ে ফেলে দেওয়া হয়। ঘটনার পর চালক ও হেলপার স্বাভাবিকই ছিলেন। কিন্তু ঘটনাটি ভাইরাল হওয়ায় তারা পালিয়ে যান। পরে তাদের খুঁজে বের করে গ্রেফতার করা হয়। এ ঘটনায় গ্রেফতার ব্যক্তিরা স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। বাসটির রুট পারমিট যাচাইয়ে বিআরটিএতে চিঠি দেবে র‌্যাব। চালক সবুজের ড্রাইভিং লাইসেন্স হালকা যানের থাকলেও ভারী যান (বাস) চালাতেন তিনি। বাসচালক সবুজ মিয়ার ড্রাইভিং লাইসেন্স বাতিলের আবেদন করবে র‌্যাব।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, রবিবার ভুক্তভোগী শিল্পী রাজধানীর কামরাঙ্গীরচরের বাসা থেকে নবাবগঞ্জের উদ্দেশে রওনা হন। সকাল সোয়া ৯টার দিকে কেরানীগঞ্জ কোনাখোলা বাসস্ট্যান্ড থেকে এন মল্লিক পরিবহনের ওই বাসে ওঠেন তিনি। বাসটি কিছু দূর যাওয়ার পর শিল্পীর কাছে ভাড়া চাওয়া হয়। কথা বলতে না পারায় শিল্পী কাগজে লিখে জানান, এন মল্লিক পরিবহন থেকে তাকে বিনা ভাড়ায় চলাচলের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তার কাছে কোনো ভাড়া নেই। সাড়ে ৯টার দিকে বাসটি রোহিতপুর বাজারে পৌঁছলে হেলপার গালিগালাজ করতে করতে হত্যার উদ্দেশ্যে তাকে ছুড়ে ফেলে দেন। এতে শিল্পী গুরুতর আহত হন। মা সমর্ত বানু অসুস্থ হওয়ায় ভুক্তভোগী শিল্পী বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে ঘুরে সাহায্য চেয়ে অর্থ সংগ্রহ করতেন বলেও মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে।

নবাবগঞ্জে মানববন্ধন : বাস থেকে ছুড়ে ফেলার ঘটনায় নবাবগঞ্জে মানববন্ধন করেছেন ছাত্র-জনতা। গতকাল দুপুরে নবাবগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন ভবনের প্রধান ফটকের সামনে মানববন্ধন করা হয়। বক্তারা বলেন, শুধু এন মল্লিক পরিবহন নয়, সব পরিবহন কর্তৃপক্ষকে সড়কপথে অরাজকতা পরিহার করে যাত্রীসেবা বৃদ্ধি করতে হবে। এর আগে সোমবার একই ঘটনায় নবাবগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে মানববন্ধন করেছিল ছাত্র-জনতা। সর্বসাধারণ জনগণের ব্যানারে ওই মানববন্ধনের নেতৃত্বে দেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা নাহিদুল হুদা সাজু।

এন মল্লিক কর্তৃপক্ষ যা বলছে : এন মল্লিক পরিবহনের চেয়ারম্যান নারগিস মল্লিক বলেন, ‘আমার মালিকানাধীন এন মল্লিক পরিবহনে কোনো বাকপ্রতিবন্ধী, অসহায় ও প্রতিবন্ধী লোকজনের ভাড়া নেওয়া হয় না। আমি দীর্ঘদিন ধরে পরিবহন ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত। আমার কোনো শ্রমিক যদি অন্যায় করে থাকে, তাহলে তার বিষয়ে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হোক।’ প্রসঙ্গত, রবিবার ঢাকার কেরানীগঞ্জের রোহিতপুর বাজার এলাকায় চলন্ত বাস থেকে ওই নারীকে ফেলে দেওয়া হয়। ফেলে দেওয়ার এ ঘটনার একটি ভিডিওচিত্র সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে তোলপাড় শুরু হয়। ভিডিওচিত্রে দেখা যায়, এন মল্লিক নামের একটি বাস থেকে ছুড়ে ফেলা হয় বোরকা পরা এক নারীকে। মাটিতে পড়ে তিনি অস্ফুট স্বরে গোঙ্গাচ্ছিলেন। পরে স্থানীয় লোকজন গিয়ে তাকে মাটি থেকে তোলেন। এর পরই সবাই ন্যক্কারজনক এ ঘটনায় জড়িতদের বিচার দাবি করেন।

এই বিভাগের আরও খবর