শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১২ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১১ মার্চ, ২০২১ ২৩:৩৬

হাসপাতাল থেকে মমতা

ময়দানে ফিরব, কর্মসূচি পালন হুইল চেয়ারে

কলকাতা প্রতিনিধি

হাসপাতালের বেডে শুয়ে এক ভিডিও বার্তায় আহত পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ও ক্ষমতাসীন দল তৃণমূল কংগ্রেসের প্রধান মমতা ব্যানার্জি বলেছেন, আগামী দু-তিন দিনের মধ্যে ফের রাজনীতির ময়দানে ফিরব। প্রয়োজনে হুইল চেয়ারে করে কর্মসূচি পালন করব। তবুও কর্মসূচি পরিবর্তন করা হবে না।

গতকাল এসএসকেএম হাসপাতালের বেড থেকে মমতা দলের নেতা-কর্মী-সমর্থকদের উদ্দেশে এই ভিডিও বার্তা পোস্ট করেন।

এতে তিনি উল্লেখ করেন, ‘আশাকরি আমার নিজের ময়দানে ফিরে যেতে পারব। তবে হয়তো পায়ের সমস্যা থাকবে। আমি ম্যানেজ করে নেব। আমার মিটিং, মিছিল নষ্ট করব না। আমাকে কিছুদিন হয়তো হুইল চেয়ারে ঘুরতে হবে। কিন্তু সেটায় আপনাদের সহযোগিতা চাইব।’ আসন্ন বিধানসভার নির্বাচনে রাজ্যটির সবচেয়ে হাইপ্রোফাইল কেন্দ্র নন্দীগ্রাম-এ তৃণমূলের প্রার্থী হয়েছেন মমতা ব্যানার্জি। এই কেন্দ্রেই তার প্রধান প্রতিপক্ষ তারই একসময়ের বিশ্বস্ত সঙ্গী রাজ্যের সাবেক মন্ত্রী বিজেপির শুভেন্দু অধিকারী। গত বুধবার ‘নন্দীগ্রাম’ কেন্দ্রের জন্য নিজের মনোনয়নপত্র জমা দেন। এরপর সেখানে একাধিক মন্দির, মসজিদ দর্শন করার ফাঁকেই হুড়োহুড়ির মধ্যে পড়ে বিরুলিয়া বাজারে পায়ে গুরুতর আঘাত পান মমতা। এরপর নন্দীগ্রামের সফর সংক্ষিপ্ত করে তিনি কলকাতায় ফিরে আসেন। রাতেই তাকে ভর্তি করা হয় কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালে। ওই রাতেই তার এমআরআই করা হয়, করা হয় ইসিজি, এক্স-রে। তার চিকিৎসার জন্য গঠিত হয় পাঁচ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড। বর্তমানে এসএসকেএম হাসপাতালের উডবার্ন ব্লকের সাড়ে-১২ নম্বর কেবিনে রয়েছেন মমতা। গতকাল সকাল থেকেও দফায় দফায় তাঁর পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়। হাসপাতালের মেডিকেল বুলেটিনে জানানো হয়েছে, মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল। বাম গোড়ালিতে সামান্য চোট রয়েছে। যে এমআরআই করা হয়েছে তাতে পায়ে চিড় ধরা পড়েছে। যদিও শরীরে সোডিয়ামের মাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে কিছু কম।

এদিকে বুধবার রাতে আহত মুখ্যমন্ত্রীকে দেখতে যখন এসএসকেএম হাসপাতালে পৌঁছান রাজ্যপাল জগদীপ ধনকার, তখন তাকে ঘিরে ওঠে ‘গো ব্যাক’ স্লোগান। গতকাল সকালেও তাকে দেখতে হাসপাতালে এলে গো ব্যাক স্লোগান শুনতে হয় বিজেপি নেতা শমীক ভট্টাচার্য, তথাগত রায়কে।

এ ছাড়া আঘাতের পিছনে মমতার চক্রান্তের অভিযোগ তোলার পর বুধবার রাত থেকে গতকাল বিকাল পর্যন্ত রাজ্যটির বিভিন্ন জায়গায় সড়ক অবরোধ, টায়ার জ্বালানো, ট্রেন অবরোধ শুরু করে তৃণমূলের কর্মী-সমর্থকরা। উত্তপ্ত হয় পরিস্থিতি। অনেক জায়গায় প্রতিবাদী মিছিলে সামিল হন দলের নেতা-নেত্রীরা। মমতা ব্যানার্জির দ্রুত আরোগ্য কামনা করে হুগলির তারকেশ্বর শিব মন্দিরসহ একাধিক জায়গায় পুজো, আরতিও করা হয়।

এদিকে বিজেপির দাবি, পুরো ঘটনাই সাজানো নাটক। ভোটের মুখে সহানুভূতি পাওয়ার জন্যই দিদি এসব করছেন বলে মন্তব্য করেছেন বিজেপি সংসদ সদস্য অর্জুন সিং। আবার এই ঘটনাকে রাজনৈতিক ভন্ডামি বলে আখ্যা দিয়েছেন কংগ্রেস সংসদ সদস্য অধীর রঞ্জন চৌধুরী।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর