শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৯ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৮ মার্চ, ২০২১ ২৩:২২

জেব্রা পরিবারে নতুন অতিথি

মোস্তফা কাজল

জেব্রা পরিবারে নতুন অতিথি

রাজধানীর অন্যতম বিনোদন কেন্দ্র জাতীয় চিড়িয়াখানায় জেব্রা দম্পতি মধু-মালার ঘরে নতুন অতিথির আগমন ঘটেছে। ছয় দিন আগে দ্বিতীয়বারের মতো জন্ম নিয়েছে জেব্রার শাবক। বৃহস্পতিবার দিনভর বেষ্টনীর মধ্যে মা ও সন্তানের ছুটে চলা সবাইকে জানান দিয়েছে তার আগমন। সদ্য জন্ম নেওয়া শাবকের নাম দেওয়া হয়েছে যুবরাজ। এ জেব্রা শাবকের জন্ম নেওয়ায় চিড়িয়াখানায় জেব্রার সংখ্যা দাঁড়াল ছয়টিতে।বর্তমানে মা এবং শাবক সুস্থ আছে। প্রাণী পরিদর্শক সরোয়ার রনি জানান, রবিবার ভোরে চিড়িয়াখানার জেব্রা বেষ্টনীর মধ্যে প্রথম শাবকটিকে তার মায়ের সঙ্গে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। কিছুক্ষণ পর পর মা জেব্রা শাবকের শরীরে মুখ দিয়ে আদর করছে। বাচ্চাটি মায়ের চোখের আড়াল হলেই সে অস্থির হয়ে খোঁজাখুঁজি করছে। নতুন জেব্রা শাবকের আগমনে চিড়িয়াখানায় দর্শনার্থীদের আগমন বেড়ে গেছে। তিনি বলেন, নেপিয়ার ঘাস মূলত এ প্রাণীর প্রধান খাবার। মা জেব্রার পুষ্টির কথা চিন্তা করে তার খাবারে পরিবর্তন আনা হয়েছে। ঘাসের পাশাপাশি ছোলা, গাজর, ভুট্টা ও ভূষি দেওয়া হচ্ছে। জু অফিসার জানান, নতুন জেব্রা শাবক নিয়ে দর্শনার্থীদের কৌতূহল বেড়ে গেছে। বাচ্চা জন্মের খবর শোনার পর থেকেই চিড়িয়াখানায় দর্শনার্থীরা আফ্রিকার জেব্রার বাচ্চা দেখতে ভিড় করছেন।

 গত বছর ১৪ মে অন্য একটি জেব্রা থেকে বাচ্চা পাওয়া গিয়েছিল। জেব্রা হলো ইকুইডি পরিবারের আফ্রিকান খুরযুক্ত চতুষ্পদ স্তন্যপায়ী প্রাণী। যারা তাদের স্বতন্ত্র সাদা-কালো ডোরার জন্য পরিচিত। জেব্রা সাধারণত ৮ ফুট লম্বা হয়। এদের ওজন ৩০০ কেজি ছাড়িয়ে যায়। ডোরার পাশাপাশি এদের ঘাড়ে কেশর সদৃশ খাড়া চুল আছে। তবে এদের পোষ মানানো যায় না। জাতীয় চিড়িয়াখানার কিউরেটর ডা. আবদুল লতিফ জানান, চিড়িয়াখানা প্রতিষ্ঠার পর থেকে বিভিন্ন সময় দক্ষিণ অফ্রিকা থেকে কয়েকটি জেব্রা আনা হয়। পুরুষ শাবক চার বছরে এবং মাদী শাবক তিন বছর বয়সেই অনেকটা পূর্ণতা লাভ করে। প্রাকৃতিকভাবে তারা ২০ বছর পর্যন্ত  বেঁচে থাকতে পারে।

এই বিভাগের আরও খবর