শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ৭ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৭ এপ্রিল, ২০২১ ০১:১২

মামুনুলের কাছে ক্ষমা না চাওয়ায় সাংবাদিককে মারধর, বাড়ি ভাঙচুর

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

Google News

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয় রয়েল রিসোর্টে নারীসহ অবরুদ্ধ হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হকের কাছে লাইভে ক্ষমা চাওয়ার দাবিতে স্থানীয় এক সাংবাদিককে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে পিটিয়েছে হেফাজতকর্মীরা। মারধরের পর তার বাড়িঘরে ভাঙচুর করারও অভিযোগ পাওয়া গেছে। আহত সাংবাদিক হাবিবুর রহমান বর্তমানে সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন। এ ঘটনায় গতকাল দুপুরে তিনি বাদী হয়ে ১৫ জনের নাম উল্লেখ করে এবং ৭০-৮০ জন অজ্ঞাত আসামির বিরুদ্ধে সোনারগাঁ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। হাবিবুর রহমান চ্যানেল এস নামের একটি বাংলা টেলিভিশনের নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি। তিনি বলেন, গত শনিবার সোনারগাঁর রয়েল রিসোর্টে হেফাজতের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হক ‘অবরুদ্ধ হওয়ার’ খবর পেয়ে অন্য গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে তিনি সেখানে গিয়েছিলেন। গত সোমবার রাতে   উপজেলার সনমান্দী ইউনিয়নের ভাটিরচর গ্রামের বাড়িতে তিনি ঘুমিয়ে ছিলেন। এ সময় হেফাজতে ইসলামের স্থানীয় একদল যুবক লাঠি হাতে নিয়ে মিছিল করে তার বাড়িতে প্রবেশ করে গালিগালাজ শুরু করে। তিনি ঘুম থেকে জেগে উঠলে তারা মামুনুল হককে ‘হেনস্তা’ করার অভিযোগ এনে ভিডিও রেকর্ড করে মামুনুল হকের কাছে ক্ষমা চাইতে বলে।

হাবিবুর রহমান বলেন, ‘আমি ক্ষমা না চাওয়ার কারণে তারা আমাকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে মারাত্মকভাবে আহত করে, আমার বাড়িঘর ভাঙচুর করে বিভিন্ন স্লোগান দিয়ে চলে যায়।’ তিনি বলেন, ‘শতাধিক হেফাজতকর্মী বাড়িতে হামলা চালালে আমি সোনারগাঁ থানা পুলিশের সহযোগিতা চাই। পুলিশ পৌঁছানোর আগেই তারা আমাকে মারধর করে। আমার চিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে এলে তারা পালিয়ে যায়। বর্তমানে আমি ও আমার পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।’ খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পুলিশ পাহারায় তার চিকিৎসা চলছে।

সোনারগাঁ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) খন্দকার তবিদুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় হাবিবুর রহমান থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। মামলার প্রস্তুতি চলছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের অবশ্যই গ্রেফতার করা হবে।

এই বিভাগের আরও খবর