শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ৮ মে, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৭ মে, ২০২১ ২৩:৪০

দুর্ঘটনাকবলিত স্পিডবোট চালক মাদকাসক্ত ছিলেন

মাদারীপুর প্রতিনিধি

Google News

পদ্মায় স্পিডবোট দুর্ঘটনায় আহত চালক মাদকাসক্ত ছিলেন বলে প্রমাণ মিলেছে। স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে করা ডোপ টেস্টে এ তথ্য পাওয়া গেছে। চালক শাহআলমকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

গত সোমবার ভোরে মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া থেকে মাদারীপুরের বাংলাবাজারে আসার পথে কাঁঠালবাড়িতে নোঙর করা বাল্কহেডের সঙ্গে স্পিডবোটের সংঘর্ষে নিহত হন ২৬ জন। এ সময় স্পিডবোটের চালক শাহআলমকে গুরুতর অবস্থায় শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। প্রশাসনের নির্দেশে ওইদিন চালকের ডোপ টেস্টের নমুনা সংগ্রহ করে রাখে স্বাস্থ্য বিভাগ। ডোপ টেস্টের কিট মাদারীপুরে না থাকায় ঢাকা থেকে কিট সংগ্রহ করা হয়। পরে বৃহস্পতিবার বিকালে কিট হাতে পেলে ডোপ টেস্টের রিপোর্ট পজিটিভ আসে বলে জানান কর্মকর্তারা। মর্মান্তিক এ দুর্ঘটনায় কাঁঠালবাড়ি ঘাটের নৌপুলিশের এসআই লোকমান হোসেন বাদী হয়ে শিবচর থানায় ঘাটের ইজারাদার শাহআলম খান, স্পিডবোটের দুই মালিক চান্দু মিয়া ও রেজাউল এবং চালক শাহআলমের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা করেন। এখন পর্যন্ত স্পিডবোটের দুই মালিক কাউকেই গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শশাঙ্ক ঘোষ বলেন, জেলা প্রশাসনের নির্দেশে দুর্ঘটনাকবলিত স্পিডবোটের চালক শাহআলমের ডোপ টেস্টের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখা গেছে, তিনি মাদকাসক্ত ছিলেন। মাদারীপুর জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুন বলেন, আমরা দুর্ঘটনাকবলিত স্পিডবোটের চালকের ডোপ টেস্ট করেছি। ডোপ টেস্টে মাদক সেবনের প্রমাণ মিলেছে। তিনি মাদকাসক্ত ছিলেন। মাদক সেবন করে আগামীতে কেউ স্পিডবোট চালাবে না। রেজিস্ট্রেশন ব্যতীত কোনো স্পিডবোট চলাচল করার সুযোগ দেওয়া হবে না। লাইসেন্স ব্যতীত কোনো চালকও থাকবে না। লাইসেন্সপ্রাপ্ত চালকদেরও নিয়মিত ডোপ টেস্ট করা হবে।

 

এই বিভাগের আরও খবর