Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ১৮ এপ্রিল, ২০১৯ ২০:৫৩

নূরের ভারত ছাড়ার নির্দেশে যা বললেন তৃণমূলের মদন

দীপক দেবনাথ, কলকাতা

নূরের ভারত ছাড়ার নির্দেশে যা বললেন তৃণমূলের মদন
মদনের সঙ্গে প্রচারণায় নূর

পশ্চিমবঙ্গের সাবেক মন্ত্রী ও তৃণমূল কংগ্রেস নেতা মদন মিত্র বলেছেন, নিজের মায়ের মৃত্যুর পরও এতটা কষ্ট পায়নি, যতটা নূরের ভারত ছাড়ার নির্দেশে পেয়েছি। 

বৃহস্পতিবার উত্তর চব্বিশ পরগনার ব্যারাকপুরে একটি অনুষ্ঠান শেষে ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশের বিষয়ে তিনি এ কথা জানান।

তিনি বলেন, 'আমি সত্যি কথা বলছি-যে দুই দিন আগে আমার মায়ের মৃত্যুদিন ছিল। যদিও তিনি অনেকদিন আগেই মারা গেছেন। কিন্তু তাতে যতখানি কষ্ট পাচ্ছি তার থেকেও বেশি কষ্ট পাচ্ছি নূরের ঘটনায়। তার কারণ, নূর আমার নিজের ভাইয়ের মতো। দ্বিতীয়ত ও আমার প্রচারে আসেনি। ও আমার বাড়িতে এসেছিল। আমরা মজা করবো, ঘুরবো-ফিরবো-এই উদ্দেশ্য ছিল। ও আমার সঙ্গে দেখা করে।' 

তিনি আরও বলেন, 'তবে যিনি প্রার্থী নয়, তার হয়ে প্রচার করাটা যে নির্বাচন কমিশনের কাছে আইনত অপরাধ-এই বিষয়টি আমি জানতে পারলাম।’ 

এসময় তৃণমূল নেতার চারপাশে দাঁড়িয়ে থাকা কয়েকজন ব্যক্তিকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, 'এদের মধ্যে যদি কোন বাংলাদেশি নাগরিক থাকেন এবং বলেন যে মদন মিত্রকে ভোট দিন-তবে ওদের দেশ থেকে চলে যেতে হবে। কারণ আমি তো প্রার্থী নই। তেমনি আমি যেমন প্রার্থী নই, তেমনি সৌগত রায়ও প্রার্থী নই। একজন প্রার্থী তখনই প্রার্থী হন-যখন তার প্রার্থীপদ গ্রহণ করা হয়। সেক্ষেত্রে সৌগত রায় এখনও তার মনোনয়পত্রই জমা দেন নি। তাছাড়া সৌগত রায় সেদিন ছিলই না।' 

নূরের বিরুদ্ধে মন্ত্রণালয়ের এই নির্দেশ প্রতিহিংসা পরায়ণতা কি না? উত্তরে মদন মিত্র বলেন, 'আমি কিছুই বলবো না। আমি শুধু বলবো এর থেকে দুঃখের কিছু হয় না। কারণ আমি মনে করি একজন ভালো অভিনেতা-সত্যজিত রায়, অপর্ণা সেন, শাবানা আজমি, গুলাম আলি এরা হলেন বিয়ন্ড দ্যা বর্ডার। আমি শুনেছি যে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এই নির্দেশ দিয়েছে।' 

যদিও নূরের ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার কারণেই বাংলাদেশে ফেরত যাওয়ার নির্দেশ নিয়ে সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, ‘ভিসা না থাকলে তো ভারত ছাড়তেই হবে।’

উল্লেখ্য, কয়েক দিন আগেই এই মদন মিত্র-এর সঙ্গেই গাজী নূরকে দেখা যায় একটি নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিতে। ‘দমদম’ লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী সৌগত রায়ের সমর্থনে তারা ওই প্রচারণায় অংশ নিয়েছিলেন। এসময় তৃণমূল প্রার্থীকে ভোট দেয়ার আহ্বান জানাতে শোনা যায়। প্রচারণার সেই ভিডিও মদন মিত্র নিজের ফেসবুকে আপলোড করার পরই বিতর্ক শুরু হয়। পরে নূরের রিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ জানায় বিজেপি। এরপর বিজেপির অভিযোগ দিল্লিতে কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশনে পাঠিয়ে দেয়া হয়। সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই বৃহস্পতিবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নূরকে দ্রুত দেশে ফেরার নির্দেশ দেয়। 

বিডি প্রতিদিন/১৮ এপ্রিল ২০১৯/আরাফাত


আপনার মন্তব্য