Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ১৪ মে, ২০১৯ ২২:২৫

প্রেম করতে দেদার ছাড়পত্র মমতার!

দীপক দেবনাথ, কলকাতা

প্রেম করতে দেদার ছাড়পত্র মমতার!

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি বলেছেন, আমন্ত্রণপত্রে মুসলিম নাম লিখতে লজ্জা পেলে আমার নামে করে দেবেন। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় দক্ষিণ কলকাতার টালিগঞ্জ ফাঁড়ি এলাকায় দলীয় প্রার্থী মালা রায়ের সমর্থনে একটি নির্বাচনী জনসভায় উপস্থিত হয়ে মমতা বলেন, ‘আমার কাছে একদিন খুব পরিচিত এসে বলল মনটা খুব খারাপ। আমি বললাম কি হয়েছে? সে বলল আর কইবেন না, আমার মাইয়াটা বাংলাদেশের একটা মুসলিম ছেলের সাথে প্রেম করছে। আমার পরিবার পরিজনেরা তো খুব গালি দিতাছে। আমি কি করি বলুন তো, আমি ধর্ম সংকটে পইড়া গেছি। আমি তাকে বললাম, ওরা দুইজনে কোথায় দেখা হয়েছিল? সে বলল লন্ডনে পড়তে গিয়েছিল, দুইজনের দেখা হয়েছিল এবং তাদের মধ্যে প্রেম হয়। আমি তাকে বলেছিলাম ছেড়ে দিন না, ওরা যা ভাল বুঝবে তাই করবে। আপনার এ ব্যাপারে মাথা খারাপ করার কি দরকার? আর যদি মনে করেন যে আমন্ত্রণপত্রে এটা লিখতে লজ্জা পাচ্ছেন, তবে আমন্ত্রণপত্র আমার নামে করে দেবেন।’ 

এ সময় সভায় উপস্থিত মানুষদের উদ্দেশ্যে মমতা বলেন, আপনারা যদি ওই ভদ্রলোকের নাম জিজ্ঞাসা করেন, আমি বলবো আমাদের মন্টুদা।’ জাত-পাত, ধর্ম নিয়ে বিজেপিকে খোঁচা দিতে গিয়ে নিজের এই পরিচিত ব্যক্তির উদাহরণ তুলে ধরেন মমতা। 

বিজেপির বিরুদ্ধে দাঙ্গা, মানুষ হত্যার অভিযোগ তুলে মমতা ব্যনার্জি বলেন, ‘আপনারা কি জানেন উত্তরপ্রদেশে কত মানুষকে ওরা মেরে ফেলেছে। তার কোন ঠিক নেই। একটা ছেলে-মেয়ে...বন্ধুরা বন্ধুত্ব করতে গেছে...দেখুন আমি খুব লিবারেল (স্বাধীন)। একটা অল্পবয়সী ছেলে কো-এডুকেশন স্কুলে পড়ে, কো-এডুকেশন কলেজে পড়ে...একসাথে বিভিন্ন জায়গায় কাজ করে...একটা ছেলে-মেয়ে যদি গল্প করে, একসাথে বেড়াতে যায়-সেটাতে আমি খারাপ দেখি না। মনটা ভাল থাকলে সবটাই ভাল থাকে। বরং আমি নব প্রজন্মের এই যে অ্যাটিটিউড বা স্বাধীনভাবে মেলামেশা-এটাকে আমি পছন্দ করি। আমাকে আপনারা অনেকে বলতে পারেন আপনি কি এতটা নমনীয়? আমি বলবো হ্যাঁ, আমি এতটাই নমনীয়। আপনারা হয়তো জানেন না যে আমি একসময় বাড়ির বউদের বলতাম যে, তোমরা যদি মনে কারো সাথে প্রেম করবে, করতে পারো। আমার তোমাদের অনুমতি দেওয়া থাকলো। কারণ আমাদের যতগুলো বিয়ে হয়েছে-তার একটাও দেখে করিনি। তার কারণ হচ্ছে আমার মা কখনও বাধা দেয়নি। যে যেটা পছন্দ করেছে, ঠিক করেছে-সেটা তার মতো করতে দেওয়া উচিত।’

বিডি-প্রতিদিন/১৪ মে, ২০১৯/মাহবুব


আপনার মন্তব্য