৮ নভেম্বর, ২০২১ ১০:১২
বাস ও লঞ্চ চলাচল শুরু

ভাড়া বাড়ল ডিজেলে চলা বাসের, মনিটরিংয়ে থাকবেন ম্যাজিস্ট্রেট

অনলাইন ডেস্ক

ভাড়া বাড়ল ডিজেলে চলা বাসের, মনিটরিংয়ে থাকবেন ম্যাজিস্ট্রেট

ফাইল ছবি

রাজধানী ঢাকায় মাত্র ৫ শতাংশ বাস ডিজেলে চলে। আর দূরপাল্লার বাস চলে ৪০ শতাংশ। বাকি বাস চলে তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাসে (সিএনজি)। জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় সারা দেশে গত শুক্রবার থেকে শুরু হয় পরিবহন ধর্মঘটে। সেই ধর্মঘটে যোগ দিয়েছিলেন সিএনজিচালিত বাসের মালিকরাও। 

গতকাল রবিবার (৭ নভেম্বর) পরিবহন মালিকদের সঙ্গে বৈঠকের পর শুধু ডিজেলচালিত বাসের ভাড়া বাড়িয়েছে সরকার। সরকারের এমন সিদ্ধান্তের পর তিন দিন ধরে চলা গণপরিবহনের ধর্মঘট প্রত্যাহার করেছেন বাস মালিকরা। তবে ডিজেলচালিত বাসের ভাড়া বাড়লেও ভাড়া বাড়ানো হয়নি সিএনজিচালিত বাসের। 

রবিবার  কয়েক দফায় সাত ঘণ্টার বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন বাস ভাড়া নির্ধারণ কমিটির প্রধান ও বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ মজুমদার। এদিন সন্ধ্যায়ই ভাড়া বাড়ানোর প্রজ্ঞাপন জারি করে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়।

কোন বাস গ্যাসে আর কোন বাস ডিজেলে চলে, তা যাত্রীরা বুঝবে কিভাবে এমন প্রশ্নের জবাবে নূর মোহাম্মদ মজুমদার বলেন, নিশ্চয়ই এটা চিহ্নিত করার জন্য সরকার ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। প্রয়োজনে ভাড়া মনিটরিংয়ের জন্য ম্যাজিস্ট্রেট মাঠে নামবেন।

কতসংখ্যক বাস ডিজেলে চলে জানতে চাইলে তিনি পরিষ্কার তথ্য দিতে পারেননি। বিআরটিএর চেয়ারম্যান বলেন, এই তথ্য বাস মালিকদের কাছে আছে। তবে গ্যাসে চলার পরও যেসব বাস এই ধর্মঘটে যোগ দিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী, এখন থেকে দূরপাল্লার বাসে এক টাকা ৪২ পয়সার পরিবর্তে প্রতি কিলোমিটারে এক টাকা ৮০ পয়সা ভাড়া নেওয়া হবে। ঢাকা ও চট্টগ্রাম মহানগরে এক টাকা ৭০ পয়সার বদলে ভাড়া নেওয়া হবে দুই টাকা ১৫ পয়সা। মহানগরে চলা মিনিবাসের ভাড়া এক টাকা ৬০ পয়সার জায়গায় দুই টাকা পাঁচ পয়সা নির্ধারণ করা হয়েছে। এই হিসাবে দূরপাল্লার ক্ষেত্রে প্রতি কিলোমিটারে বাসের ভাড়া বাড়ল ২৭ শতাংশ আর মহানগরে ২৬.৫ শতাংশ। বাসের সর্বনিম্ন ভাড়া ছিল সাত টাকা। এটা এখন করা হয়েছে ১০ টাকা। মানে বাসে উঠলেই ১০ টাকা ভাড়া দিতে হবে। মিনিবাসের এই ভাড়া পাঁচ টাকা থেকে বাড়িয়ে আট টাকা করা হয়েছে।

বাসের ভাড়া বাড়ানোর প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি। সংগঠনটি বলছে, জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর পর সরকার বাসের ভাড়া বাড়ালেও ডিজেলের দাম কমানো নিয়ে কোনো আলোচনা করছে না। যাত্রী প্রতিনিধিদের বাদ দিয়ে মালিকদের পরামর্শ অনুযায়ী বাসের ভাড়া বাড়ানো হয়েছে।

এদিকে, লঞ্চের সর্বনিম্ন ভাড়া বাড়ল ৩৫%। গতকাল রাত থেকেই পুনর্নির্ধারিত ভাড়া অনুযায়ী লঞ্চ চলাচল শুরু হয়। বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডাব্লিউটিএ) কার্যালয়ে সংস্থাটির কর্মকর্তাদের সঙ্গে লঞ্চ মালিক সমিতির নেতাদের বৈঠকে ভাড়া বাড়ানোর সিদ্ধান্ত হয়।

বৈঠক শেষে বিআইডাব্লিউটিএ চেয়ারম্যান কমোডর গোলাম সাদেক সাংবাদিকদের জানান, প্রতি কিলোমিটারে ভাড়া বাড়ানো হয়েছে ৬০ পয়সা। বর্তমান ভাড়া এক টাকা ৭০ পয়সা থেকে বাড়িয়ে দুই টাকা ৩০ পয়সা নির্ধারণ করা হয়েছে। এটা ১০০ কিলোমিটারের মধ্যে প্রযোজ্য হবে। ১০০ কিলোমিটারের পর প্রতি কিলোমিটারে ভাড়া হবে দুই টাকা। সর্বনিম্ন যাত্রীপ্রতি ভাড়া ছিল ১৮ টাকা। সেটি বাড়িয়ে ৩০ টাকা করা হয়েছে। সেই হিসাবে ভাড়া বেড়েছে শতকরা ৩৫ শতাংশ।

উল্লেখ্য, গত শনিবার লঞ্চ মালিকরাও ধর্মঘটে যোগ দেন। গতকাল বিআইডাব্লিউটিএর সঙ্গে লঞ্চ মালিকদের বৈঠকে ভাড়া বাড়ানোর সিদ্ধান্তের পর তারাও ধর্মঘট প্রত্যাহার করেন। তবে পণ্যবাহী যানবাহনের মালিকরা গতকালের বৈঠকে যোগ দেননি। তারা ধর্মঘটও প্রত্যাহার করেননি।

 

বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ আল সিফাত

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর