শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১৭ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৬ এপ্রিল, ২০১৯ ২৩:১৯

বেরোবি ভিসিকে শিক্ষক সমিতির স্মারকলিপি

নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর

বেরোবি ভিসিকে শিক্ষক সমিতির স্মারকলিপি

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) ভিসিকে সার্বক্ষণিক বিশ্ববিদ্যালয়ে অবস্থান, দ্রুত প্রো-ভিসি ও ট্রেজারার নিয়োগ, ক্যাম্পাসে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং নারী জাগরণের অগ্রদূত রোকেয়া সাখাওয়াত হোসেনের প্রতিকৃতি স্থাপনসহ ১৮ দফা দাবিতে ভিসি প্রফেসর ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহকে স্মারকলিপি দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি। গতকাল দুপুরে শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. মো. গাজী মাজহারুল আনোয়ার, সাধারণ সম্পাদক খায়রুল কবির সুমনসহ সমিতির নেতারা ভিসির অনুপস্থিতিতে ভিসির বিশেষ সহকারী (পিএস) আমিনুর রহমানের কাছে স্মারকলিপি জমা দেয়।

১৮ দফা দাবির অন্যান্য দাবিগুলো হলো- সিন্ডিকেট সভা, নিয়োগ বোর্ড, অর্থ কমিটিরসহ সব সভা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে করা, বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন প্রকল্পের দ্বিতীয় ফেজের কার্যক্রমের ব্যবস্থা গ্রহণ, নতুন যোগদানকৃত শিক্ষকদের অনিয়মতান্ত্রিক ফাউন্ডেশন ট্রেনিং বন্ধ করে বিভাগের শিক্ষক স্বল্পতার সংকট সমাধানসহ শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীর সব শিক্ষা ও পেশাগত ট্রেনিং ড. ওয়াজেদ রিসার্চ অ্যান্ড ট্রেনিং ইনস্টিটিউটের অধীনে নিজস্ব ক্যাম্পাসে যথাযথ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা। এ ছাড়াও জরুরি ভিত্তিতে অস্থায়ী পদে চাকরিরত শিক্ষকদের চাকরি স্থায়ীকরণসহ নতুন শিক্ষক নিয়োগ দিয়ে সেশনজট দূর করা, বিশ্ববিদ্যালয়ের উচ্চশিক্ষা ও গবেষণারত শিক্ষকদের স্ববেতনে ৫ বছরসহ মোট শিক্ষাছুটি ৭ বছর নির্ধারণ করে দ্রুত শিক্ষাছুটি নীতিমালা প্রণয়ন, এনওসি ও অভিজ্ঞতা সনদসহ যাবতীয় প্রক্রিয়া দুই থেকে তিন কার্যদিবসের মধ্যে সম্পন্ন, অনুষদের যোগ্য শিক্ষককে ডিন ও যোগ্য শিক্ষককে বিভাগীয় প্রধানের দায়িত্ব প্রদান, বিভাগের একাডেমিক প্ল্যানিং কমিটি গঠন করা, সনাতন ধর্মাবলম্বীদের জন্য ধর্মীয় উপাসনালয় স্থাপনের ব্যবস্থা গ্রহণ, দ্রত বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদের গম্বুজসহ দ্বিতীয় তলার কাজ শুরু করা, বিভিন্ন বিভাগে শিক্ষকদের পদোন্নতি আটকে রেখে শিক্ষাকার্য স্পৃহাহীনতা সৃষ্টিকারী হয়রানি বন্ধ করা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্যাংকের স্থায়ী শাখা ও বিশ্ববিদ্যালয়ের গেট স্থাপন করা। স্মারকলিপির বিষয়ে শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. গাজী মাজহারুল আনোয়ার ও সাধারণ সম্পাদক খায়রুল কবির সুমন বলেন, ভিসির দায়িত্ব¡কালের প্রায় অর্ধেক সময় অতিক্রান্ত হতে চললেও বিশ্ববিদ্যালয়ে হতাশা ও নৈরাজ্য কমেনি বরং এক অস্থিরতা পরিবেশ বিরাজ করছে। যার অন্যতম প্রধান কারণ ভিসির বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুপস্থিতি।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর