শিরোনাম
প্রকাশ : ২ জুন, ২০২০ ১২:৪৬

কৃষ্ণাঙ্গ হত্যার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ, গ্রেফতার ৪ হাজার ৮০০

যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি

কৃষ্ণাঙ্গ হত্যার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ, গ্রেফতার ৪ হাজার ৮০০

কৃষ্ণাঙ্গ যুবক জর্জ ফ্লয়েডকে নির্মমভাবে হত্যার প্রতিবাদে যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে বিক্ষোভ চলছে। সোমবার গভীর রাতে প্রাপ্ত সংবাদে জানা গেছে, এ যাবত ৪৮০০ বিক্ষোভকারিকে গ্রেফতার করেছে বিভিন্ন সিটির পুলিশ। এরমধ্যে অবশ্য লুটতরাজ, ভাংচুর কিংবা অগ্নি সংযোগে লিপ্ত থাকার অভিযোগ নেই কারো বিরুদ্ধে।

যদিও দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নির্দেশ দিয়েছেন, গ্রেফতারকৃতরা যেন দীর্ঘ মেয়াদে কারাগারে থাকে-এমন মামলা দিতে হবে। 

আরও জানা গেছে, নিউইয়র্কে কারফিউ বহালের পরও হাজার হাজার মানুষ মিছিল করে ব্রুকলিন ব্রিজ অতিক্রম করছেন। এর দু’ঘন্টা আগে বড়বড় শপিং মলে হামলা, ভাংচুরের পর মালামাল লুটের ঘটনা ঘটেছে। এমনকি ট্রাম্প টাওয়ারের নিকটে কয়েকটি স্টোরেও ভাংচুর ও লুটের ঘটনা টিভিতে সরাসরি প্রচারিত হয়েছে। লুটেরাদের দমনে পুলিশের কোন ভূমিকা পরিলক্ষিত হয়নি বলে অভিযোগ উঠেছে।

উল্লেখ্য গত ২৫ মে গ্রেফতারের পর পুলিশি হেফাজতে হত্যা করা হয় জর্জ ফ্লয়েডকে। এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় গ্রেফতার হওয়া পুলিশ কর্মকর্তা ডেরেক চোভিনকে (৪৪) ১ জুন স্থানীয় আদালতে সোপর্দ করার কথা ছিল। সেটি পিছিয়ে ৮ জুন করা হয়েছে। ধারনা করা হচ্ছে যে, তার বিরুদ্ধে থার্ড ডিগ্রি মার্ডার চার্জ করা হয়েছে। সেটি পরিবর্তন করে ফার্স্ট ডিগ্রিতে আনার পাশাপাশি তার সাথে থাকা অপর তিন অফিসার থমাস লেন, আলেক্সান্দার কিউং এবং টৌ থাওকেউ গ্রেফতার করে একই মামলায় অভিযুক্ত করার স্বার্থে শুনানির তারিখ পিছিয়ে দেয়া হয়েছে। কারণ, মিনেসোটা অঙ্গরাজ্যের মিনিয়াপলিস শহরের পুলিশ প্রধান মেডারিয়া এরাডান্ডো ইতিমধ্যেই গণমাধ্যমে স্বীকার করেছেন যে, ওরা তিনজনও একইভাবে দোষী। তারা নিষ্ঠুরতম ঐ আচরণের সময় কোন বাধা দেয়নি। অধিকন্তু সায় দিয়েছে। উল্লেখ্য, এই তিন অফিসারকে বরখাস্ত করা হলেও এখন পর্যন্ত গ্রেফতার করা হয়নি বলে বিক্ষোভকারিরা জানান।   

বিডি প্রতিদিন/ফারজানা


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর