শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১ এপ্রিল, ২০২০ ০০:২১

অনিশ্চিত অস্ট্রেলিয়ার বাংলাদেশ সফর

দুই ম্যাচের সিরিজটি শুরু হওয়ার কথা ছিল ১১ জুন। এর আগে অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশে এসে একটি চার দিনের প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার কথা ছিল। প্রথম টেস্টটি হওয়ার কথা চট্টগ্রামে, ১১-১৫ জুন। দ্বিতীয় টেস্ট ঢাকায়, ১৯-২৩ জুন

ক্রীড়া প্রতিবেদক

অনিশ্চিত অস্ট্রেলিয়ার বাংলাদেশ সফর

করোনাভাইরাসের কারণে ক্রিকেট এখন নির্বাসিত। একের পর এক বন্ধ হয়ে যাচ্ছে দ্বিপক্ষীয় সিরিজ ও টুর্নামেন্ট। বাংলাদেশের পাকিস্তান সফর (তৃতীয় দফা, এক টেস্ট ও এক ওয়ানডে) স্থগিত হয়ে গেছে। টাইগারদের আয়ারল্যান্ড সফরও স্থগিত হয়েছে। এবার বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া টেস্ট সিরিজও ভেস্তে যাওয়ার পথে।

আগামী জুন মাসে দুই টেস্টের সিরিজ খেলতে অস্ট্রেলিয়ার বাংলাদেশে আসার কথা ছিল। কিন্তু এই সিরিজ নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) ক্রিকেট অপারেশন্স চেয়ারম্যান আকরাম খান। সফরটি যে স্থগিত হতে পারে তার ইঙ্গিত দিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার টেস্ট অধিনায়ক টিম পেইন।

আকরাম খান গতকাল মিডিয়াকে বলেছেন, ‘এই সিরিজ (বাংলাদেশ -অস্ট্রেলিয়া) নিয়ে সংশয় রয়েছে।’ তিনি জানান, ‘যদিও আমি তাদের (ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া) সম্পর্কে কিছু বলতে পারব না। তবে যে পরিস্থিতি তাতে এই সিরিজের সম্ভাবনা খুবই কম।’

 টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের দুটি ম্যাচ খেলতে অস্ট্রেলিয়া দল আসতে চেয়েছিল বাংলাদেশে। সিডিউল অনুযায়ী প্রস্তুতিও ছিল। কিন্তু করোনাভাইরাস পুরো বিশ্বকেই তো স্থবির করে দিয়েছে। তাই এই সিরিজের সম্ভাবনা দেখছেন টিম পেইন। তিনি বলেন, ‘এখন যে অবস্থা, তাতে এখন সিরিজ নাও হতে পারে, বিশেষ করে জুন মাসে। এটা বুঝতে আপনাকে আইনস্টাইন হতে হবে না। তবে সিরিজটি সম্পূর্ণ বাতিল হবে নাকি পিছিয়ে যাবে, সেটা এখন বলা মুশকিল।’

বাংলাদেশে গতকাল পর্যন্ত ৫১ জন করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী পাওয়া গেছে। মৃতের সংখ্যা ৫। ঝুঁকির মধ্যে আছে অস্ট্রেলিয়াও। তাদের দেশেও এ পর্যন্ত ৪ হাজার ৫৫৭ কভিড-১৯ আক্রান্ত পাওয়া গেছে। মারা গেছে ১৯ জন। গতকালই অস্ট্রেলিয়ায় নতুন আক্রান্ত হয়েছে ৯৭ জন। পরিস্থিতি এমন যে খুব দ্রুত সমস্যা কেটে যাওয়ার সম্ভাবনাও দেখছেন না বিশেষজ্ঞরা। এই পরিস্থিতিতে অস্ট্রেলিয়া অধিনায়কের কাছে খেলার চেয়ে মানুষের সুস্থতা ও স্বাভাবিক জীবনযাপন বেশি গুরুত্বপূর্ণ। টিম পেইন বলেন, ‘ বিশ্ব এখন বড় সমস্যা সামলাচ্ছে। পুরো পরিস্থিতিই যেকোনো খেলা থেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। গুরুত্বপূর্ণ হলো বিশ্বের সঠিক রাস্তায় ফেরা, মানুষের সুস্থতা ও স্বাভাবিক জীবনযাপন।’

বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া সিরিজের সূচিও চূড়ান্ত হয়েছিল। দুই ম্যাচের সিরিজটি শুরু হওয়ার কথা ছিল ১১ জুন। এর আগে অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশে এসে একটি চার দিনের প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার কথা ছিল। প্রথম টেস্টটি হওয়ার কথা চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে, ১১-১৫ জুন। দ্বিতীয় টেস্ট ঢাকার মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে, ১৯-২৩ জুন।

করোনাভাইরাসের কারণে এ পর্যন্ত ঘরোয়া ও আন্তর্জাতিক মিলে অর্ধশতাধিক টুর্নামেন্ট/সিরিজ  স্থগিত হয়ে গেছে। তবে এখনো বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড কিংবা অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট বোর্ড এ ব্যাপারে আনুষ্ঠানিক কোনো বিবৃতি দেয়নি। তবে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে অস্ট্রেলিয়া যে বাংলাদেশে অবশ্যই আসবে তা টিম পেইনের কথাতেই বোঝা যায়।

অসি অধিনায়কের লক্ষ্য টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জয় করা। পয়েন্ট টেবিলে অস্ট্রেলিয়া এখন দ্বিতীয় স্থানে। শীর্ষে থাকা ভারতের সঙ্গে তাদের দূরত্বও অনেক বেশি। ৯ ম্যাচে কোহলির দলের পয়েন্ট ৩৬০। সেখানে এক টেস্ট বেশি খেলেও অস্ট্রেলিয়ার পয়েন্ট ২৯৬। তবে ভারতের মতো অস্ট্রেলিয়াও ৭টি করে জয় পেয়েছে। হারও দুটি করে। কিন্তু আরেক ম্যাচে অস্ট্রেলিয়া ড্র করায় তাদের পয়েন্ট কমে গেছে। তাই বাংলাদেশের বিরুদ্ধে দুই টেস্টে জিতেই ভারতকে পিছিয়ে ফেলতে চেয়েছিল অসিরা। টিম পেইন বলেন, ‘টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে খেলা এবং শিরোপা জেতা এখন লক্ষ্য।’

এখন যে অবস্থা, তাতে সিরিজ নাও হতে পারে, বিশেষ করে জুন মাসে। এটা বুঝতে আপনাকে আইনস্টাইন হতে হবে না। তবে সিরিজটি সম্পূর্ণ বাতিল হবে নাকি পিছিয়ে যাবে, সেটা এখন বলা মুশকিল

টিম পেইন

টেস্ট অধিনায়ক, অস্ট্রেলিয়া

এই সিরিজ (বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া) নিয়ে সংশয় রয়েছে। যদিও আমি তাদের (ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া) সম্পর্কে কিছু বলতে পারব না। তবে যে পরিস্থিতি তাতে এই সিরিজের সম্ভাবনা খুবই কম

আকরাম খান

চেয়ারম্যান, ক্রিকেট অপারেশন্স, বিসিবি


আপনার মন্তব্য