শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৮ নভেম্বর, ২০২০ ২৩:২২

ম্যারাডোনার সম্পদের ভাগীদার কারা?

ফক্স স্পোর্টসে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, ম্যারাডোনা মৃত্যুকালে ১ লাখ মার্কিন ডলার রেখে গেছেন

ক্রীড়া প্রতিবেদক

ম্যারাডোনার সম্পদের ভাগীদার কারা?

আর্জেন্টাইন ফুটবল কিংবদন্তি না ফেরার দেশে চলে গেছেন। রেখে গেছেন কোটি কোটি ভক্ত অনুরাগী। পরিবারের সদস্য আর অসংখ্য বন্ধু-বান্ধব। জীবনে অসংখ্য অর্জন আছে ম্যারাডোনার। উপার্জন করেছেন শত শত কোটি টাকা। কিন্তু বর্তমান সময়টা বড় কষ্টেই কাটছিল আর্জেন্টাইন কিংবদন্তির। নগদ অর্থ খুব একটা ছিল না। ফক্স স্পোর্টসে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, ম্যারাডোনা মৃত্যুকালে ১ লাখ মার্কিন ডলার রেখে গেছেন (প্রায় ৮৫ লাখ টাকা)। ম্যারাডোনার রেখে যাওয়া এ অর্থ কে পাবেন?

ক্লাউডিয়া ভিয়াফেইন। ম্যারাডোনার দুই সন্তানের মা। একমাত্র স্ত্রী। অবশ্য ২০০৪ সালে দুজনের মধ্যে ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়। কিন্তু আর্জেন্টাইন কিংবদন্তির সন্তানের মা হিসেবে তিনি হতে পারেন অন্যতম উত্তরাধিকারী। ডালমা ও জিয়ানিনা ম্যারাডোনার দুই মেয়ে। এ দুজনকে ম্যারাডোনা খুব ভালোবাসতেন। বাজে সময়ে মেয়ে জিয়ানিনাকে কাছে পেয়েছেন তিনি। এ দুজন ম্যারাডোনার সম্পদে বড় দাবিদার। ডালমা ও জিয়ানিনা ছাড়াও ম্যারাডোনার আরও ৩ সন্তান আছে। তারা হলেন হানা, দিয়েগো জুনিয়র ও দিয়েগো ফার্নান্দো। তবে এই তিন সন্তানের মায়েদের সঙ্গে কোনো সম্পর্ক ছিল না ম্যারাডোনার।

ম্যারাডোনার শেষ সন্তানের মা ভেরোনিকা ওজেদার সঙ্গে অল্প কিছুদিনের জন্য সম্পর্ক ছিল ম্যারাডোনার। এর আগে রোসিও অলিভা নামে তার আরেকজন বান্ধবী ছিল। অলিভার সঙ্গে দুবাই, বুয়েন্স আয়ার্স ও মেক্সিকোতে বেশ সুসময় কাটিয়েছেন ম্যারাডোনা। তবে এই জুটির কোলে  কোনো সন্তান আসেনি। এছাড়াও ম্যারাডোনার ব্যক্তিগত সহকারী মাতিয়াস মোরলা, ব্যক্তিগত চিকিৎসক লিওপোলদো লুকু এবং মোরলার ভাই ম্যাক্সি ম্যারাডোনার খুব কাছের মানুষ ছিলেন। এদের মধ্যে ম্যারাডোনার সম্পদ ভাগাভাগি হতে পারে।


আপনার মন্তব্য