শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ২১ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২০ এপ্রিল, ২০২১ ২৩:১২

জয়ের জন্য মুখিয়ে মুমিনুলরা

ক্রীড়া প্রতিবেদক

জয়ের জন্য মুখিয়ে মুমিনুলরা
Google News

দেশের বাইরে বাংলাদেশের টেস্ট পারফরম্যান্স ভালো নয়। করোনাকালে খেলা বন্ধ হওয়া পর্যন্ত বাংলাদেশ এখন পর্যন্ত টেস্ট খেলেছে ৯টি। হেরেছে ৮টিতেই। আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে ৫ টেস্ট খেলে হেরেছে সবগুলোতে।

গেল ফেব্রুয়ারিতে ঘরের মাটিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের দ্বিতীয় সারির দলের বিপক্ষে বিধ্বস্ত হয়েছেন মুমিনুলরা। সেই বিপর্যস্ত মানসিকতা কাটিয়ে উঠার আগে আরও একবার বিধ্বস্ত হয় নিউজিল্যান্ডে। দুই দুটি সিরিজে অসহায় আত্মসমর্পণের ধকল কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই টাইগাররা দুটি টেস্ট খেলবে ‘দ্বীপরাস্ট্র’ শ্রীলঙ্কায়। আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথমটি খেলতে মুমিনুলরা আজ নামবেন পাল্লেকেলেতে। সেখানে এই প্রথমবার টেস্ট খেলবেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। যদিও এখানে একটি ওয়ানডে ও তিনটি টি-২০ ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে টাইগারদের। ইদানীংকালের পারফরম্যান্স ভালো নয়। তাই স্বাভাবিকভাবেই চাপে থাকার কথা। টাইগার টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক সেই চাপ সামলে টেস্ট জয়ের জন্য খেলবেন বলেন ভার্চুয়াল আলোচনায়, ‘চাপ যদি বলেন, আমি তো কোনো চাপেই নেই। দলও কোনো চাপে নেই। আমরা এখানে ম্যাচ জেতার জন্য এসেছি। পুরোপুরি চেষ্টা করব জেতার জন্য।’          

বাংলাদেশ এবার নিয়ে সপ্তমবারের মতো টেস্ট খেলতে শ্রীলঙ্কা সফর করছে। যার ছয়টি টেস্ট সিরিজ এবং একটি এশিয়ান টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ। দ্বীপরাস্ট্রের মাটিতে সব মিলিয়ে এখন পর্যন্ত টেস্ট খেলেছে ১২টি। জয় সাকল্যে একটি এবং ড্র একটিই। তবে সব মিলিয়ে দেশটির বিপক্ষে ২০ টেস্টে জয়ই ওই একটিই, ২০১৬ সালে কলম্বোয় নিজেদের ১০০ নম্বর টেস্টে। ড্র ৩টি। দুটি আবার বাংলাদেশের মাটিতে। পাঁচ বছর আগে কলম্বোয় বাংলাদেশ টেস্ট খেলতে নেমেছিল গলে গো হারা হারের তিক্ত স্বাদ নিয়ে। ২৫৯ রানের ওই টেস্ট হার আত্মবিশ্বাসের তলানিতে টেলে দিয়েছিল মুশফিকদের। কিন্তু দুর্দান্ত ক্রিকেট খেলে কলম্বোয় তুলে নেয় ৪ উইকেটের জয়। যা বাংলাদেশের ঐতিহাসিক টেস্ট জয়। কলম্বো জয়ের টেস্ট একাদশের মাত্র ৭ জন নেই পাল্লেকেলে টেস্টে। দ্বীপরাস্ট্রের মাটিতে অবশ্য একটি ড্রও আছে। ২০১৩ সালে গলে ড্র করেছিল। এই দুটি পারফরম্যান্সই উদ্দীপ্ত করেছে মুমিনুলদের।

মুমিনুল বাহিনীকে বিধ্বস্ত করতে পাল্লেকেলের উইকেটকে পুরোপুরি সবুজ ঘাসে আচ্ছাদিত করেছে স্বাগতিকরা। উইকেটে বাগতি বাউন্স ও গতি থাকবে বলে তিন পেসার ও এক স্পিনার নিয়ে খেলবে টাইগাররা। নতুন বলে তামিম ইকবালের সঙ্গে ওপেন করবেন সাদমান ইসলাম। তিন নম্বরে নাজমুল শান্ত, চারে অধিনায়ক মুমিনুল, পাঁচে মুশফিকুর রহিম, ছয়ে মো. মিথুন, সাতে লিটন দাস, আটে মেহেদী হাসান মিরাজ, নয়ে আবু জায়েদ রাহি, দশে তাসকিন আহমেদ ও এগারোয় শরীফুল কিংবা ইবাদতের যে কোনো একজনকে দেখা যাবে। 

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশ খেলেছিল ফেবারিট হয়ে। কিন্তু একটি দল হিসেবে খেলতে ব্যর্থ হওয়ায় সিরিজ হেরে যায়। অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজ ছাড়া কারও পারফরম্যান্স ভালো ছিলনা ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে। ঘরের মাঠে ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে হোয়াইটওয়াশ এবং নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে ও টি-২০ সিরিজে বিধ্বস্ত হওয়ায় মানসিকভাবে চাপে রয়েছে টাইগাররা।

টাইগার অধিনায়ক মুমিনুল এসব নিয়ে ভাবতে রাজি নন, ‘অবশ্যই শ্রীলঙ্কা ভালো অবস্থানে আছে। আমরা সবশেষ দুটি টেস্টে ভালো করতে পারিনি। আগেও বলেছি, ক্রিকেটে আগে কি হয়েছে, এসব নিয়ে চিন্তা করে লাভ নেই। সামনে যদি আমাদের প্রক্রিয়া ঠিক থাকে, পাঁচ দিনের প্রতিদিন যদি প্রক্রিয়া ঠিক রাখতে পারি, আমরা জয় নিয়ে ফিরতে পারব।’

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশ টেস্ট খেলতে নামছে দেশ সেরা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসানকে ছাড়া। মূল ক্রিকেটার খেলছেন না। তারপরও টাইগার টেস্ট অধিনায়ক আত্মবিশ্বাসী জয়ের বিষয়ে।