Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ২২ জুন, ২০১৯ ১২:০৪
আপডেট : ২২ জুন, ২০১৯ ১২:১১

খবর আনন্দবাজারের

ধারাভাষ্য নাকি প্রশাসনিক পদ? কড়া বার্তা ভারতীয় এথিক্স কর্মকর্তার

অনলাইন ডেস্ক

ধারাভাষ্য নাকি প্রশাসনিক পদ? কড়া বার্তা ভারতীয় এথিক্স কর্মকর্তার
ফাইল ছবি

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের নীতি কর্মকর্তা (এথিক্স অফিসার) ডি কে জৈন স্বার্থ-সংঘাত নিয়ে এবার কড়া রায় দিলেন। প্রাক্তন ও বর্তমান যে সব ক্রিকেটার ধারাভাষ্যের পাশাপাশি ক্রিকেট প্রশাসনের বিভিন্ন পদে থাকছেন শুক্রবার তিনি জানিয়ে দিয়েছেন, প্রাক্তন ও বর্তমান যে সব ক্রিকেটার ধারাভাষ্যের পাশাপাশি ক্রিকেট প্রশাসনের বিভিন্ন পদে থাকছেন, তারাও স্বার্থ-সংঘাতের নিয়ম লঙ্ঘন করছেন।

প্রসঙ্গত, সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত লোঢা কমিটি জানিয়ে দিয়েছিল, এক ব্যক্তি একের বেশি পদে থাকতে পারবেন না। এ ক্ষেত্রে সেই নিয়ম লঙ্ঘিত হচ্ছে।

শুক্রবার প্রাক্তন ক্রিকেটার সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ও ভি ভি এস লক্ষ্মণের স্বার্থ সংঘাতের নিয়ম লঙ্ঘন সংক্রান্ত বিষয়ে রায় দেন প্রাক্তন বিচারপতি জৈন। সেখানে তিনি পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন, ধারাভাষ্য-সহ ক্রিকেটের বিভিন্ন পদে থাকার বদলে যে কোন একটি পদ বেছে নিতে হবে এই দুই প্রাক্তন ক্রিকেটারকে।   

এই মুহূর্তে বিশ্বকাপে ধারাভাষ্য দিচ্ছেন সৌরভ। পাশাপাশি তিনি বাংলার ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থা সিএবি-র প্রেসিডেন্ট, ভারতীয় বোর্ডের ক্রিকেট উপদেষ্টা কমিটির সদস্য ও আইপিএলে দিল্লির ফ্র্যাঞ্চাইজি দিল্লি ক্যাপিটালসের উপদেষ্টা। লক্ষ্মণও ধারাভাষ্যের পাশাপাশি বোর্ডের ক্রিকেট উপদেষ্টা কমিটির সদস্য, আইপিএলে হায়দরাবাদের ফ্র্যাঞ্চাইজি সানরাইজার্স হায়দরাবাদের মেন্টর। 

এর আগে সৌরভ ও লক্ষ্মণের মতো স্বার্থ সংঘাতের নিয়ম লঙ্ঘন করার অভিযোগ উঠেছিল শচীন টেন্ডুলকারের বিরুদ্ধেও। কিন্তু এক মাস আগে ক্রিকেট উপদেষ্টা কমিটি থেকে পদত্যাগ করায় এই মুহূর্তে স্বার্থ-সংঘাতের নিয়ম লঙ্ঘনের আওতায় পড়ছেন না শচীন। 

সে তথ্য জানিয়ে অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি জৈন বলেন, ‘‘ক্রিকেট উপদেষ্টা কমিটি থেকে পদত্যাগ করায় শচীন এই মুহূর্তে স্বার্থ-সংঘাতের নিয়ম লঙ্ঘনের আওতায় পড়েন না। বাকি দু’জন অর্থাৎ সৌরভ ও লক্ষ্মণকে বলা হচ্ছে, যে কোন একটি পদ বেছে নিতে।’’ 

সঙ্গে যোগ করেন, ‘‘এখন ওরা কী করবেন সেটা নিজেরাই ঠিক করুন। কীভাবে কোন ভূমিকায় থেকে ক্রিকেটের উৎকর্ষ বাড়াতে চান সৌরভ ও লক্ষ্মণ, তা ওদের নিজেদের ঠিক করতে হবে। আমি নতুন কিছুই করিনি। লোঢা কমিটির সুপারিশ মনে করিয়ে দিয়েছি কাগজে কলমে। এবার তা প্রয়োগের কাজ ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের।’’ 


বিডি প্রতিদিন/ ওয়াসিফ


আপনার মন্তব্য