শিরোনাম
প্রকাশ : ১০ জুলাই, ২০২০ ১৯:০২

করোনায় বদলে গেল ক্রিকেটের নিয়ম, অনেক নিষেধাজ্ঞা আইসিসির

অনলাইন ডেস্ক

করোনায় বদলে গেল ক্রিকেটের নিয়ম, অনেক নিষেধাজ্ঞা আইসিসির
প্রতীকী ছবি

গত ৮ জুলাই ইংল্যান্ডের সাউদাম্পটনে শুরু হয়েছে ইংল্যান্ড-বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজের টেস্ট সিরিজ। ১১৭ দিন পর আন্তির্জাতিক ক্রিকেট শুরু হয়েছে এই ম্যাচ দিয়ে। কিন্তু এবার থেকে একাধিক নিয়ম মেনেই খেলতে হবে ক্রিকেট। অনেক কিছুতে যেমন না করে দিয়েছে আইসিসি তেমন এই কোভিড পরিস্থিতিতে নতুন করে শুরু হয়েছে অনেক কিছু। এক নজরে দেখে নিন কী কী বদল এল বাইশ গজের খেলায়-

কোভিড ১৯ রিপ্লেসমেন্ট : বছর খানেক আগে ক্রিকেটে কনকাসন সাবস্টিটিউট শুরু হয়। অর্থাৎ কোনও ক্রিকেটারের যদি মাথায় আঘাত লাগে, তাহলে চলতে ম্যাচের মধ্যেই তার বদলি নেওয়া যাবে। এবার শুরু হল কোভিড রিপ্লেসমেন্ট। অর্থাৎ যদি টেস্ট ম্যাচ চলাকালীন কোনও ক্রিকেটারের মধ্যে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ দেখা যায়, তাহলে তার বদলে অন্য ক্রিকেটারকে খেলতে দেওয়ার অনুমতি দেওয়া হবে।

বলে লালা লাগানো নিষিদ্ধ 
: আগে বোলারদের অন্যতম প্রধান অস্ত্র ছিল এই লালা ও ঘাম। বলের একদিকের শাইন বজায় রাখা, যাতে সুইং ও রিভার্স সুইং হয়, তার জন্য লালা ও ঘামকেই ব্যবহার করতেন ক্রিকেটাররা। কিন্তু নতুন নিয়মে বলা হয়েছে, বলে লালা কিংবা ঘাম ব্যবহার করা যাবে না।

আইসিসি জানিয়েছে, এই বিষয়ে নজর রাখবেন আম্পায়ার ও ম্যাচ রেফারি। যদি কাউকে লালা মাখাতে দেখা যায়, তাহলে ওয়ার্নিং দেওয়া হবে। দুটি ওয়ার্নিং হলে বিপক্ষ দল ৫ রান পেনাল্টি হিসেবে পাবে। লালা লাগাতে দেখা গেলে সেই বলে ফের খেলা শুরু হওয়ার আগে তা ভালভাবে পরিষ্কার করতে হবে। তবে টাওয়েল বা কাপড়ের ব্যবহার করে বলের শাইন বজায় রাখা যেতে পারে।

বাইরের আম্পায়ার নিষিদ্ধ : আগে কোনও দ্বিপাক্ষিক সিরিজ হলে সাধারণত যে দুই দল খেলছে, তার বাইরের কোনও দেশের আম্পায়ারকে নিযুক্ত করা হত। কিন্তু বর্তমানে সেই নিয়ম বাতিল করা হয়েছে। বাইরের আম্পায়ারকে আনা মানে তাঁর ঝুঁকি বাড়ানো। তাই সে দেশে সিরিজ হবে, সেই দেশের আম্পায়াররাই ম্যাচ পরিচালনা করবেন।

অতিরিক্ত ডিআরএস : যেহেতু বাইরের আম্পায়ার নয়, ঘরোয়া আম্পায়ার দিয়েই ম্যাচ পরিচালনা করা হবে, তাই তাদের অভিজ্ঞতা কম থাকায় অতিরিক্ত ডিআরএস-এর অনুমতি দেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ আগে প্রতিটি দল প্রতিটি ইনিংসে দুটি ডিআরএস নিতে পারতেন। এবার থেকে প্রতি ইনিংসে তা তিনটি করা হয়েছে।

জার্সিতে অতিরিক্ত লোগোর ব্যবহার : বর্তমানে ৩২ বর্গইঞ্চির কম মাপের একটি লোগো জার্সিতে অথবা সোয়েটারে ব্যবহার করতে দেওয়া হবে। করোনা সতর্কতার বার্তা থাকবে সেখানে। অর্থাৎ আগের নিয়মে তিনটি লোগোর সঙ্গে একটি অতিরিক্ত লোগো, অর্থাৎ মোট চারটি লোগো থাকবে জার্সিতে।

বিডি-প্রতিদিন/শফিক


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর