৪ আগস্ট, ২০২২ ২৩:৪৫

তদন্ত শেষে সাকিবের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে বিসিবি

অনলাইন ডেস্ক

তদন্ত শেষে সাকিবের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে বিসিবি

বেটিং সাইটের সঙ্গে সাকিব আল হাসানের সংযোগ খতিয়ে দেখছে বিসিবি।

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) আগামী আসরের জন্য আগ্রহী প্রতিষ্ঠানের নাম চেয়ে নিজেদের ওয়েবসাইট ও সংবাদমাধ্যমে বিজ্ঞাপন দিয়েছে বিসিবি। বিজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে, কোনোরকম বেটিং প্রতিষ্ঠান বা বেটিংয়ের সঙ্গে জড়িত কেউ দল পাওয়ার জন্য আবেদন করতে পারবেন না। কিন্তু বিসিবির বিজ্ঞাপন প্রকাশের দিন গত মঙ্গলবার সাইপ্রাসভিত্তিক ম্যারিকিট হোল্ডিংসের মালিকানাধীন বেট উইনারের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান বেট উইনার নিউজের শুভেচ্ছাদূত হিসেবে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন সাকিব আল হাসান। নিজের ফেসবুক ভেরিফায়েড পেজে এই খবর জানিয়েছেন তিনি। যা বাংলাদেশের ক্রিকেটাঙ্গনে আলোচনার খোরাক হয়েছে।  সাকিবের সঙ্গে চুক্তির কথা নিশ্চিত করেছে ‘বেটউইনার নিউজ’ নামে ওই ওয়েবসাইটটিও।

এদিকে, অনলাইন বেটিং সাইট বেটউইনারের সহযোগী প্রতিষ্ঠান বেটউইনার নিউজের সঙ্গে সাকিব আল হাসানের চুক্তির ব্যাপারে এখনও পর্যন্ত পরিষ্কার কিছু জানে না বিসিবি। যে কোনো পণ্যের দূত হওয়ার আগে বিসিবির কাছ থেকে অনুমতি নেওয়ার নিয়ম থাকলেও এক্ষেত্রে কোনো অনুমতি নেননি সাকিব। পুরো ব্যাপারটি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান।

বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) ষষ্ঠ বোর্ড সভা বসায় বসেছিলেন বিসিবির পরিচালকরা। সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে উঠে এসেছে সেই প্রসঙ্গ। বিসিবির অনুমতি নিয়ে বেটিং প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সাকিব চুক্তি করেছেন কিনা জানতে চাইলে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেছেন, বিসিবিকে না জানিয়ে সম্পূর্ণ ব্যক্তিগতভাবে এ চুক্তি করেছেন সাকিব। বিষয়টি জানা ছিল না বোর্ডের। এখন সাকিবের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইবে বিসিবি।

বোর্ডের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ সব ক্রিকেটারকেই যে কোনো পণ্যের দূত হওয়ার আগে বোর্ডকে অবহিত করতে হয়। এমনকি চুক্তিপত্রও বোর্ডে জমা দিতে হয়। কিন্তু সাকিব সেসব কিছু করেননি বলেই জানালেন নাজমুল হাসান। বিসিবি সভাপতি বললেন, খবরটি জেনে তিনি নিজেও বিস্মিত হয়েছেন। আমাদের অনুমতি নেওয়ার প্রশ্নই ওঠে না। কারণ, আমরা অনুমতি দেবই না। দিস ইজ নম্বর ওয়ান, বেটিং সংক্রান্ত কিছু হয়ে থাকলে অনুমতি দেবই না। এটার মানে হচ্ছে, আমাদের কাছে সে অনুমতি চায়নি। দুই নম্বর ব্যাপার হচ্ছে, আদৌ চুক্তি করেছে কিনা, এটাও তো আমার জানতে হবে।

তিনি আরও বলেন, আজকের মিটিংয়ে এই কথাটা উঠেছিল। আমরা বলেছি যে, এটা তো কোনোভাবেই সম্ভব নয়, এটা কীভাবে হয়! তাড়াতাড়ি এটা বের করো যে এটা আসলেই হয়েছে কিনা। হলে অনতিবিলম্বে জানতে চাও। নোটিশ সার্ভ করা হবে, এটা কীভাবে সম্ভব। এটা তো বোর্ড কোনোভাবেই অ্যালাউ করবে না। বেটিংয়ের সঙ্গে এটার কোনোরকম, কোনোকিছুর সংযুক্তি থাকে, বোর্ড এটা কখনোই অ্যালাউ করবে না। এটা অলরেডি আমরা বলেছি।

সাকিবের ফেইসবুক পাতায় এটি প্রচার করার প্রায় ৪৮ ঘণ্টা হয়ে গেলেও তার সঙ্গে এখনও কথা বলেনি বিসিবি। দেশের শীর্ষ এই ক্রিকেটার আদৌ চুক্তি করেছেন কিনা, এটা নিয়েও সংশয় কাজ করছে বিসিবি কর্মকর্তাদের। খতিয়ে দেখে উপযুক্ত ব্যবস্থাই নেওয়া হবে বলে জানালেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের নিয়ন্তা সংস্থার প্রধান।

তিনি বলেন, আগে জিনিসটা জেনে নেই। ওখানটায়… নাও হতে পারে, এরকম একটা কথা এসেছে বোর্ডে। যদি না হয় তাহলে তো একটা সিদ্ধান্ত আমি নিতে পারছি না। তার পরও বলে দিয়েছি দ্রুত জানতে। তবে বোর্ডের অবস্থান খুবই পরিষ্কার। এটা কোনোভাবেই সম্ভব নয়। এটা তো শুধু ক্রিকেট বোর্ড নয়, বাংলাদেশের আইনেও অনুমতি নেই। আমাদের দেশের আইন এটা পারমিট করে না। এটা তো অবশ্যই সিরিয়াস ইস্যু। এজন্যই একটা ফেইসবুক বা পোস্টিংয়ের ওপর নির্ভর না করে আমাদের তদন্ত করতে হবে। খুঁজে দেখতে হবে আসলে কী হয়েছে। এটা সত্যি হয়ে থাকলে বোর্ডের যা যা করার, অবশ্যই বোর্ড করবে।


বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ

এই রকম আরও টপিক

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর