শিরোনাম
প্রকাশ : ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৯:৩৩
আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ২১:১৭

০০ এজেন্ট নোমি ধরা পড়লেন... পুরোপুরিভাবেই স্মার্টফোনে!

অনলাইন ডেস্ক

০০ এজেন্ট নোমি ধরা পড়লেন... পুরোপুরিভাবেই স্মার্টফোনে!

আসন্ন বন্ড মুভি ‘নো টাইম টু ডাই'য়ে নোমি চরিত্রে অভিনয় করেছেন ব্রিটিশ অভিনেত্রী লাশানা লিঞ্চ। আর তাকেই ধারণ করেছেন সোশ্যাল মিডিয়া 'ফোনোগ্রাফার' বেন ম্যাকলিন। এই পুরো বিষয়টিই ছিলো নোকিয়া ফোনের নির্মাতা এইচএমডি গ্লোবালের এ যাবতকালের সবচেয়ে বড় বৈশ্বিক প্রচারণার অংশ। ছবি তোলায় নানামুখী সৃজনশীলতার জন্য সুপরিচিত বেনের সোশ্যাল মিডিয়ায় আছে প্রায় পাঁচ লাখ ফলোয়ার।

আইকনিক পাইনউড স্টুডিওতে ধারণ করা এই শ্যুটটি নতুন 00 এজেন্ট নোমি চরিত্রে লাশানা লিঞ্চের সঙ্গে তুলে ধরেছে নোকিয়া ৮.৩ ৫জি সেটটিকে, যেখানে একটি বন্ড অনুপ্রাণিত দৃশ্যে মহাকাব্যিক সব এফেক্টে বেন তুলে ধরেছেন নোমিকে আর ৩০ ফুট এক রিগের সহায়তায় বেনকে ঝুলে থাকতে হয়েছে শূণ্যে চূড়ান্ত শটটি ধারণ করার জন্য। 'এই একটিমাত্র গ্যাজেটই আপনার প্রয়োজন।'

মার্চ মাসেই ঘোষণা হয়েছিল যে ২৫তম জেমস বন্ড মুভি নো টাইম টু ডাই-এর অফিশিয়াল পার্টনার হতে যাচ্ছে এইচএমডি গ্লোবাল। বিভিন্ন নোকিয়া ফোন উঠে এসেছে এই সিনেমায়-এদের মাঝে নোকিয়া ৮.৩ ৫জি, সত্যিকার অর্থেই বৈশ্বিক এবং কালজয়ী ফোন যাতে রয়েছে উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন পিওরভিউ কোয়াড ক্যামেরার সঙ্গে জেইস লেন্স এবং ফ্যানদের অতি পরিচিত ও ভালবাসার নোকিয়া ৩৩১০।

নো টাইম টু ডাই সিনেমায় ০০ এজেন্ট নোমি চরিত্রে অভিনয় করা লাশানা লিঞ্চ বলেন, "যে বিশ্বে এখন আমরা বসবাস করি - মানে হলো আমাদের পকেটে থাকবে এক চূড়ান্ত গ্যাজেট। স্মার্টফোন আজকাল যা করতে পারে তা সত্যিই বিষ্ময়কর। নভেম্বরে নো টাইম টু ডাইয়ের মুক্তি উদযাপনে এই নতুন স্মার্টফোনটি উন্মোচন করতে পেরে আমি রোমাঞ্চিত। আর নোকিয়া ৮.৩ ৫জি প্রমাণ করে যে বন্ড গ্যাজেটগুলি সবসময়ই অন্যদের চেয়ে এগিয়ে থাকে।"

নোকিয়ার নির্মাতা প্রতিষ্ঠান এইচএমডি গ্লোবালের সিইও ফ্লোরিয়ান স্যাশে বলেন, "নো টাইম টু ডাই যেভাবে প্রযুক্তিকে এর একেবারে আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুতে রেখেছে, খুব অল্প সংখ্যক সাংষ্কৃতিক বিষয়ই তা করে। প্রতিটি নোকিয়া স্মার্টফোনের সঙ্গে যে বিষ্ময়কর প্রযুক্তি জুড়ে থাকে তার সঙ্গে তাল মিলিয়ে প্রযুক্তির প্রতি এই সিনেমার অঙ্গীকার যে কারো জন্য, এমনকি একজন ০০ এজেন্টের জন্য আমাদের ডিভাইস হয়ে ওঠে একমাত্র চাওয়া যা এই অংশীদারীত্বকে করে তোলে এমন এক শক্তি যাকে এড়ানো সম্ভব নয়।

বিশ্বাস, সুরক্ষা এবং আইকনিক মানের ডিজাইন হলো প্রতিটি নোকিয়া ফোন তৈরির ভিত্তি। আমরা সর্বশেষ প্রযুক্তিকে সবার হাতের নাগালে নিয়ে আসতে পারার জন্য গর্বিত এবং আমরা আমাদের সর্বশেষ অংশীদারিত্বের মাধ্যমে এটি তুলে ধরার প্রত্যাশায় আছি।”

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর