শিরোনাম
প্রকাশ : ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৪:৫৫
আপডেট : ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৫:০৬

সনজিতের বক্তব্য নিয়ে পাল্টাপাল্টি বিবৃতি ছাত্রলীগ-ছাত্র ইউনিয়নের

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

সনজিতের বক্তব্য নিয়ে পাল্টাপাল্টি বিবৃতি ছাত্রলীগ-ছাত্র ইউনিয়নের

দেশের বিভিন্ন জায়গায় ধর্ষণের প্রতিবাদে রবিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাষ্কর্যে আয়োজিত সমাবেশে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাসের একটি বক্তব্যকে ঘিরে পাল্টাপাটি বিবৃতি দিয়েছে ছাত্র ইউনিয়ন ও ছাত্রলীগ। সনজিতের ওই বক্তব্যের প্রতিবাদে সোমবার দেওয়া ছাত্র ইউনিয়নের বিবৃতির পর পাল্টা বিবৃতি দিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ।

ছাত্র ইউনিয়নের ঢাবি সংসদের সভাপতি সাখাওয়াত ফাহাদ ও সাধারণ সম্পাদক রাগীব নাঈমের যৌথ বিবৃতিতে দাবি করা হয়, রবিবারের সমাবেশে সনজিত চন্দ্র দাস বলেছেন, ‘স্বাধীনতা বিরোধী ছাড়া অন্য কোনো নারী যদি নির্যাতনের শিকার হয়.. তা প্রতিহত করবো’। তিনি এই বক্তব্যের মাধ্যমে ধর্ষণের বৈধতা দিয়েছেন। তাকে শিক্ষার্থীরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে দেখতে চায় না।

তবে ছাত্র ইউনিয়নের এই বিবৃতির প্রতিবাদে ঢাবি ছাত্রলীগের দপ্তর সম্পাদক মেফতাহুল ইসলাম পান্থ স্বাক্ষরিত পাল্টা বিবৃতিতে বলা হয়, হীন স্বার্থ চরিতার্থ করতেই সনজিতের বক্তব্যকে রঙ মাখিয়ে প্রচারণা চালিয়েছে ছাত্র ইউনিয়ন। এর মাধ্যমে তারা ধর্ষকদের পক্ষে তাদের অবস্থান ব্যক্ত করেছে।

ছাত্রলীগের ওই বিবৃতিতে বলা হয়, সনজিত চন্দ্র দাসের বক্তব্যকে হীন স্বার্থ চরিতার্থ করার উদ্দেশ্যে কুরুচিপূর্ণ ও উদ্দেশ্যমূলক রঙ মাখিয়ে যে প্রচারণা বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সংসদের নামে প্রচারিত হয়েছে, তা ছাত্র ইউনিয়নের গৌরবজনক ঐতিহাসিকতার হতাশাজনক পরিণতি বলে আমরা মনে করি। আমরা উদ্বেগের সাথে আর মনে করি, সাম্প্রদায়িক প্রতিক্রিয়াশীল, স্বাধীনতা বিরোধী গোষ্ঠীর কাছে ছাত্র ইউনিয়নের বর্তমান নেতৃত্ব তাদের সংগঠনকে যেভাবে লজ্জাজনক ইজারা ও দখলদারিত্ব প্রমাণ করেছে সাম্প্রতিক বিবৃতি তারই প্রমাণ বহন করে।

এতে আরও বলা হয়, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এই মিথ্যাচার ও বানোয়াট যৌথ বিবৃতিকে  প্রত্যাখানপূর্বক মনে করে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষার্থী ধর্ষিত হবার ঘটনায় আশ্চর্যজনকভাবে নীরব থেকে ছাত্র ইউনিয়ন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সংসদ ধর্ষকদের পক্ষে তাদের সাংগঠনিক অবস্থান প্রমাণ করেছে। পাশাপাশি ধর্ষকদের সাথে নিজেদের রাজনৈতিক মিত্রতাকে তারা ধর্ষিতার আর্তনাদের থেকে অধিক গুরুত্ব দিয়েছে। যা এই সংগঠনের দেউলিয়াত্ব প্রমাণ করে। স্বাধীনতা বিরোধী, মৌলবাদী, ধর্মীয় উগ্র গোষ্ঠীর সমর্থক হয়ে পরিচালিত ছাত্র ইউনিয়নের এমন কর্মকাণ্ড ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ কোনভাবেই মেনে নিবে না। 


বিডি প্রতিদিন/ফারজানা


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর