শিরোনাম
প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ২০:৫৪
আপডেট : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ২০:৫৫
প্রিন্ট করুন printer

‘বঙ্গবন্ধুর চিন্তার কেন্দ্রে ছিল মানুষের কল্যাণ’

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

‘বঙ্গবন্ধুর চিন্তার কেন্দ্রে ছিল মানুষের কল্যাণ’

বঙ্গবন্ধু এমন মানুষ ছিলেন, যিনি অসংখ্য অন্ন ও বস্ত্রহীন মানুষের ব্যবস্থাপনার সাথে সাথে পরিবেশ নিয়ে চিন্তা করতে পেরেছিলেন। কেননা তার চিন্তার কেন্দ্রেই ছিল কীভাবে মানুষের কল্যাণ করা যায়। তিনি তার নিজস্ব ও পারিবারিক দর্শন থেকেই এমন কাজ করতে পেরেছিলেন।

মঙ্গলবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আব্দুল মতিন চৌধুরী ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে ‘বঙ্গবন্ধু বক্তৃতামালা’র দ্বিতীয় বক্তৃতা অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রিসার্চ ইনস্টিটিউট ফর পিস অ্যান্ড লিবার্টি’ এবং ‘উচ্চতর মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান গবেষণা কেন্দ্র’ যৌথভাবে এর আয়োজন করে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. এএসএম মাকসুদ কামাল।

অনুষ্ঠানে ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক ড. ফকরুল আলমের সভাপতিত্বে ‘ডিজাস্টার রিস্ক গভার্নেন্স ইন বাংলাদেশ: কন্টিবিউশনস অব বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান’ শীর্ষক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ইনস্টিটিউট অফ ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড ভালনারেবিলিটি স্টাডিজের পরিচালক অধ্যাপক ড. মাহবুবা নাসরীন এবং অধ্যাপক ড. খন্দকার মোকাদ্দেম হোসেন।

প্রবন্ধের ওপর আলোচনা করেন পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ড. কাজী খলীকুজ্জামান আহমেদ। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন উচ্চতর মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান গবেষণা কেন্দ্রের পরিচালক অধ্যাপক ড. আবদুল বাছির।

অনুষ্ঠানে অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল বলেন, বঙ্গবন্ধু তার নিজস্ব দর্শন ও পারিবারিক দর্শন থেকেই সর্বদা প্রাকৃতিক ও মানবসৃষ্ট দুর্যোগ কবলিত মানুষের পাশে সাহায্য-সহযোগিতা নিয়ে দাঁড়িয়েছেন। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ঝুঁকি হ্রাসে বঙ্গবন্ধুর দেখানো পথেই তার কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দুর্যোগ মোকাবিলায় বাংলাদেশকে সারাবিশ্বে রোল মডেলে পরিণত করেছেন। এই স্বীকৃতির জন্য আজ আমরা গর্বিত।

দুর্যোগ মোকাবিলা এবং জীববৈচিত্র ও পরিবেশ সংরক্ষণে বঙ্গবন্ধুর পদক্ষেপ তুলে ধরে ড. কাজী খলীকুজ্জামান বলেন, পরিবেশ রক্ষার জন্য বনায়নের প্রয়োজনীয়তা বঙ্গবন্ধু অনুধাবন করেছিলেন। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের এক জনসভায় তিনি গাছ লাগানোর কথা, সুন্দরবন বাঁচানোর কথা বলেছিলেন। নদী রক্ষার জন্য ১৯৭২ সালে নদী কমিশন গঠন করেছিলেন। তিনি এর গুরুত্ব বুঝেছিলেন। এছাড়াও জীববৈচিত্র্য রক্ষার জন্য ‘বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইন-১৯৭৪ প্রণয়ন করেছিলেন।

মূল প্রবন্ধে অধ্যাপক ড. মাহবুবা নাসরীন এবং অধ্যাপক ড. খন্দকার মোকাদ্দেম হোসেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও পরিবেশ সংরক্ষণে বঙ্গবন্ধুর অবদান ও সূদরপ্রসারী চিন্তাভাবনা বিস্তারিতভাবে তুলে ধরেন। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় ও ত্রাণ তৎপরতা বিষয়ে বঙ্গবন্ধুর গৃহীত পদক্ষেপসমূহ ও দিকনির্দেশনা নিয়ে আরও ব্যাপক গবেষণা করা প্রয়োজন বলে মন্তব্য করেন তারা।

বিডি প্রতিদিন/এমআই


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২২:৪৩
প্রিন্ট করুন printer

রাবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে 'কুৎসা রটনা'র ঘটনায় মামলা

রাবি প্রতিনিধি

রাবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে 'কুৎসা রটনা'র ঘটনায় মামলা

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভূয়া ইমেইল খুলে ভূতত্ত্ব ও খনি বিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক সুলতান উল ইসলামের বিরুদ্ধর 'কুৎসা রটনা'র ঘটনায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। অজ্ঞাতনামা আসামি করে মামলাটি দায়ের করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজকর্ম বিভাগের অধ্যাপক ও সাবেক ছাত্র উপদেষ্টা ড. জান্নাতুল ফেরদৌস।

বুধবার বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নগরীর মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এ এস এম সিদ্দিকুর রহমান।

মামলার প্রাথমিক তথ্য বিবরণী থেকে জানা গেছে, কম্পিউটার (ডিজিটাল ডিভাইস) প্রযুক্তি ও ইন্টারনেট ব্যবহার করে পরিচয় গোপন বা ছদ্মবেশ ধারণ করে মিথ্যা তথ্য উপাত্ত প্রেরণ প্রকাশসহ মানহানিকর তথ্য প্রচারের অপরাধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন-২০১৮ এর ২৪, ২৫ ও ২৯ ধারায় মামলাটি দায়ের করা হয়েছে। চলতি মাসের ২৭ নম্বর মামলা হিসেবে গৃহীত হয়েছে এটি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এসএম সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ওই অধ্যাপক গতকাল রাতে থানায় হাজির হয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলাটি দায়ের করেছেন।

মামলাটির তদন্তভার দেওয়া হয়েছে মতিহার থানার উপ-পরিদর্শক ইমরান হোসেন কে। তদন্ত শেষে বিস্তারিত জানা যাবে।

এর আগে গত রবিবার এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ করেছিলেন অধ্যাপক ড. জান্নাতুল ফেরদৌস।

অভিযোগপত্রে অধ্যাপক ড. জান্নাতুল ফেরদৌস উল্লেখ করেন, Zannatul Ferdous <[email protected]> নামীয় একটি ভুয়া ইমেইল আইডি খুলে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবােধে বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের স্টিয়ারিং কমিটির নির্বাচনে জনৈক প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী সম্পর্কে কম্পিউটার বা ডিজিটাল ডিভাইস, কম্পিউটার নেটওয়ার্ক এবং ইন্টারনেট বা ডিজিটাল নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে কুৎসা রটনা করেছে অজ্ঞাত এক ব্যাক্তি।

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২১:৫৫
প্রিন্ট করুন printer

ক্লাসে পাঠদান শুরু হলেই জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা

গাজীপুর প্রতিনিধি :

ক্লাসে পাঠদান শুরু হলেই জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা

সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ২৪ শে মে থেকে দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান কার্যক্রম শুরু হবে। একইসঙ্গে ২৪ মে থেকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থগিত হয়ে যাওয়া পরীক্ষাও শুরু হবে। সেসব পরীক্ষার সংশোধিত সময়সূচি অতিসত্ত্বর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক প্রকাশ করা হবে। শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার প্রস্তুতি নেয়ার জন্য আহ্বান জানিয়েছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষার্থীদের অনলাইন ক্লাসে অংশ নিয়ে পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়ারও নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। 

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ, তথ্য ও পরামর্শ দপ্তরের পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) মো: ফয়জুল করিম বুধবার রাতে এসব তথ্য জানান।

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২১:২৭
প্রিন্ট করুন printer

জলকামান নিয়ে যাওয়া পুলিশকে অভিনব শুভেচ্ছা শিক্ষার্থীদের

অনলাইন ডেস্ক

জলকামান নিয়ে যাওয়া পুলিশকে অভিনব শুভেচ্ছা শিক্ষার্থীদের
সংগৃহীত ছবি

টানা দ্বিতীয় দিনের মতো বুধবার সকাল থেকে নীলক্ষেত-সায়েন্সল্যাব এলাকায় অবস্থান নিয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার দাবিতে ও পরীক্ষা স্থগিতের প্রতিবাদে আন্দোলন অংশ নেয় শিক্ষার্থীরা।

সেখানে বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে পুলিশ শিক্ষার্থীদের তুলে দিতে প্রস্তুতি নেয়। পুলিশ এক পর্যায়ে জলকামান নিয়ে এগিয়ে যায়। এমন পরিস্থিতিতে শিক্ষার্থীরা উত্তেজিত না হয়ে উল্টো পুলিশকে ঘিরে ধরে প্রত্যেককে লাল গোলাপ দিয়ে অভিনব শুভেচ্ছা জানান। এসময় পুলিশ অ্যাকশানে না গিয়ে এই শুভেচ্ছ সাদরে গ্রহণ করে।

এদিকে, শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে অধিভুক্ত সাত কলেজের স্থগিত হওয়া পরীক্ষাগুলো অব্যাহত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বুধবার কলেজগুলোর অধ্যক্ষ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামানে সঙ্গে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির ভার্চুয়াল বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বিডি-প্রতিদিন/শফিক


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২০:২৯
প্রিন্ট করুন printer

পরীক্ষার দাবিতে কুবি শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

কুমিল্লা প্রতিনিধি

পরীক্ষার দাবিতে কুবি শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

সেমিস্টার ফাইনাল, ইনকোর্স ও মিডটার্ম পরীক্ষা হচ্ছে না। কারও আবার সেমিস্টার পরীক্ষার মাঝে পরীক্ষা স্থগিতের ঘোষণা হয়। আটকে থাকা পরীক্ষা নেয়ার দাবিতে মানববন্ধন করেছেন কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের(কুবি) শিক্ষার্থীরা।

বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু ভাস্কর্যের সামনে রুটিন হওয়া পরীক্ষাগুলো চালু করার দাবি জানান শিক্ষার্থীরা। এসময় তারা বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড নিয়ে পরীক্ষা স্থগিতের প্রতিবাদ জানান। এর আগে, গতকাল মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) চূড়ান্ত পরীক্ষা স্থগিতের সিদ্ধান্তে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর মিলিয়ে ৫৮টি সেমিস্টারের চূড়ান্ত পরীক্ষা আটকে গেছে।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, সর্বত্র স্বাভাবিক চলাচল থাকলেও হঠাৎ করেই চলমান পরীক্ষা বন্ধ করা অযৌক্তিক। মার্কেটিং বিভাগের ৯ম ব্যাচের শিক্ষার্থী তামিম রুহুল বলেন, আমাদের স্নাতক ও স্নাতকোত্তর মোট পাঁচ বছরের কোর্স। অথচ এক থেকে দুই বছর সময় বেশি লাগছে। এর দায়ভার কে নিবে।

আইনবিভাগের শিক্ষার্থী রুহুল আমিন বলেন, হুট করেই এভাবে পরীক্ষা  বন্ধ করায় শিক্ষার্থীদের স্বপ্ন ভেঙে যাচ্ছে। প্রশাসনের কাছে অনুরোধ জানাই, চলমান পরীক্ষাগুলো যেন বন্ধ না করে।

বিষয়টি নিয়ে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ( অতিরিক্ত দায়িত্ব) প্রফেসর মোঃ আবু তাহের বলেন, শিক্ষার্থীরা যে দাবিতে মানববন্ধন করেছে তা যৌক্তিক। তবে রাষ্ট্র স্বাস্থ্য সুরক্ষার কথা চিন্তা করে পরীক্ষা স্থগিত করেছে। তবে আমরা চেষ্টা করবো যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে শিক্ষার্থীদের সমস্যা তুলে ধরার জন্য। 

 

বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ সিফাত


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২০:১১
প্রিন্ট করুন printer

আন্দোলনের মুখে পরীক্ষা স্থগিতের সিদ্ধান্ত বদল

স্থগিত হওয়া ৭ কলেজের পরীক্ষার নতুন রুটিন প্রকাশ

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

স্থগিত হওয়া ৭ কলেজের পরীক্ষার নতুন রুটিন প্রকাশ
সংগৃহীত ছবি

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে অধিভুক্ত সাত কলেজের স্থগিত হওয়া পরীক্ষাগুলো অব্যাহত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) কলেজগুলোর অধ্যক্ষ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামানে সঙ্গে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির ভার্চুয়াল বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এমন সিদ্ধান্তে উল্লাস প্রকাশ করে আন্দোলন প্রত্যাহার করে নিয়েছে সাত কলেজের আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। 

এর আগে, মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) সাত কলেজের প্রধান সমন্বয়ক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য(শিক্ষা) অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল  ও কলেজগুলোর অধ্যক্ষদের এক সভা থেকে পরীক্ষা স্থগিতের ঘোষণা আসে। এর প্রতিবাদে ওই দিন সন্ধ্যা থেকে রাত দশটা পর্যন্ত নীলক্ষেত-নিউমার্কেট মোড় অবরোধের পর বুধবার সকাল নয়টা থেকে একই স্থানে আবারও অবস্থান নেয় শিক্ষার্থীরা। এসময় মোড়ের চারদিকের রাস্তা বন্ধ করে দেওয়ায় যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। তীব্র যানজটে ভোগান্তিতে পড়ে রাস্তা দিয়ে চলাচলকারী মানুষ।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা জানান, তাদের স্নাতক তৃতীয় বর্ষের চারটি এবং শেষ বর্ষের একটি পরীক্ষা বাকি আছে। এমন এসময়ই স্থগিতের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে, যা একেবারেই অযৌক্তিক। এসময় তারা স্থগিতাদেশ তুলে নিয়ে পরীক্ষা নেওয়ার দাবিতে স্লোগান দিতে থাকে। দিনভর শিক্ষার্থীদের থেকে কিছুটা দূরে সতর্ক অবস্থানে ছিলো পুলিশ। 

এদিকে, দুপুর বারোটার পর আন্দোলনকারীদের একাংশ সায়েন্স ল্যাব মোড়ে গিয়ে অবস্থান নিলে সেখানেও যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এসময় শিক্ষার্থী-পুলিশ মুখোমুখি অবস্থানে চলে যায়। এমনকি তাদের সরিয়ে দিতে জলকামানও নিয়ে আসে পুলিশ। তবে কোনো সংঘর্ষ ছাড়াই জলকামানের সামনে অবস্থান করতে থাকে শিক্ষার্থীরা। 

পরে বিকেল চারটার দিকে চলমান পরীক্ষা অব্যাহত রাখার ঘোষণা দেয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এ বিষয়ে সাত কলেজের শিক্ষা কার্যক্রম তদারকির দায়িতপ্রাপ্ত (ফোকাল পয়েন্ট) ঢাকা কলেজের অধ্যক্ষ আই কে সেলিম উল্লাহ খোন্দকার জানান, সাত কলেজের চলমান পরীক্ষাগুলো নেওয়া হবে। তবে এ সময় আবাসিক ছাত্রাবাস খোলা হবে না।

এমন সিদ্ধান্তে উল্লাস প্রকাশ করে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। ঘোষণার পরপর অবরোধ তুলে নিয়ে রাস্তা ছেড়ে দেন তারা। কিছুক্ষণের মধ্যে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়ে যায়। 

স্থগিত পরীক্ষাগুলোর রুটিন প্রকাশ- এদিকে, স্থগিত হওয়া সাত কলেজের পরীক্ষার রুটিন প্রকাশ করা হয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. বাহালুল হক চৌধুরী স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে এই রুটিন প্রকাশ করা হয়। বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী,  ২০১৯ সালের অনার্স তৃতীয় বর্ষের স্থগিতকৃত পরীক্ষাগুলো আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি  এবং ৩, ৬, ৯ ও ১৩ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে। অন্যদিকে, ২০১৯ সালের অনার্স চতুর্থ বর্ষের স্থগিতকৃত পরীক্ষা আগামী ২৭ ফেব্য়ারুরি এবং  ২, ৪ ও ৭ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে। 

হল খোলার দাবি ঢাবি শিক্ষার্থীদের- হল খোলার দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে রাজু ভাষ্কর্যের সামনে ‘শিক্ষার্থীবৃন্দ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে’র ব্যানারে এই কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। 

সমাবেশে ছাত্র ইউনিয়নের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সহ-সভাপতি মেঘমল্লার বসু বলেন, এই করোনার মধ্যে মেট্রোরেলের কাজ চলছে, সরকারের প্রচলিত দুর্নীতি চলছে, তাহলে বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলো খুলতে সমস্যা কোথায়? করোনার মধ্যে প্রশাসন বললো, তারা ডিভাইস কেনার জন্য ঋণ দেবে? বিশ্ববদ্যালয় কি মহাজন যে তারা ঋণ দেবে? যদি তারা মহাজন হয়েই থাকেন, তাহলে সুদের ব্যবসা শুরু করেন। 

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন ছাত্রফ্রন্টের ঢাবি শাখার সভাপতি সালমান সিদ্দিকী, সাধারণ সম্পাদক প্রগতি তমা, ছাত্র ইউনিয়নের ঢাবি সভাপতি সাখাওয়াত ফাহাদ প্রমুখ। 


 
বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ সিফাত


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর