প্রকাশ : ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ২১:২১
প্রিন্ট করুন printer

সিলেটে সাবেক নারী কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে জালিয়াতির অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিলেট

সিলেটে সাবেক নারী কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে জালিয়াতির অভিযোগ
Google News

নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে যাতায়াতের রাস্তায় জোরপূর্বক মন্দির নির্মাণের অভিযোগ ওঠেছে সিলেট সিটি করপোরেশনের সংরক্ষিত ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর দিবা রানী দে বাবলী ও তার স্বামী মনিন্দ্র চন্দ্র দে’র বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার সিলেট জেলা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এ অভিযোগ করেন যতরপুর এলাকার বাসিন্দা মাওলানা আব্দুল মতিন।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, মনিন্দ্র চন্দ্র ও তার স্ত্রী দিবা রানী ২০০৭ সালে যতরপুরস্থ ৪৭ শতক অর্পিত সম্পত্তির ৬ শতক ভূমি এক বছরের জন্য বন্দোবস্ত নেওয়ার আবেদন করেন। কিন্তু অনুমতি না পেয়ে সেখানে কাঁচা ঘর নির্মাণ করেন এবং পরবর্তীতে মনিন্দ্র চন্দ্র দে আত্মসাতের লক্ষ্যে সেই জায়গা তার পৈতৃক সম্পত্তি দাবি করেন। সেই দাবিকে সত্য প্রমাণ করতে একটি জাল দলিল তৈরি করলেও আদালত তা বাতিল করেন। পরবর্তীতে অর্পিত সম্পত্তি প্রত্যার্পণ ট্রাইবুন্যাল সিলেটে একই দাবি নিয়ে মনিন্দ্র চন্দ্র দে মামলা করলে আদালত তার দলিলপত্র জাল প্রমাণ করে মামলাটি নিষ্পত্তি করেন।

সংবাদ সম্মেলনে মাওলানা আব্দুল মতিন আরও জানান, এরপর মনীন্দ্র চন্দ্র দে তার পিতা সুরেশ চন্দ্রের নামীয় জাল ভলিয়ম তৈরি করে এর কপি আদালতে দাখিল করেন। মনীন্দ্রের স্ত্রী দিবা রানী দে কাউন্সিলর থাকা অবস্থায় দুর্নীতিপরায়ণ কর্মচারীদের সহযোগিতায় বিভিন্ন জাল প্রমাণাদি আদালতে দাখিল করলে তাদের পক্ষে রায় হয়। পরবর্তীতে মাওলানা আব্দুল মতিনের বোন রসনা বেগমসহ আরও কয়েকজন মামলার রায় বাতিলের দাবি জানিয়ে উচ্চ আদালতে রিট করেন। রিট মামলাগুলো নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত ওই ভূমিতে স্থিতাবস্থা জারি করেন আদালত। কিন্তু মনিন্দ্র চন্দ্র দে ও দিবা রাণী দে আদালতের আদেশ অমান্য করে গত এক সপ্তাহ থেকে সেই জায়গায় জোরপূর্বক মন্দির নির্মাণকাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। যে জায়গায় কোনোদিনও মন্দির ছিলো না। এটি একটি চলাচলের রাস্তা বলে মাওলানা আব্দুল মতিন সংবাদ সম্মেলনে উল্লেখ করেন।
সংবাদ সম্মেলনে এ বিষয়ে প্রশাসনের দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করেন মাওলানা আব্দুল মতিন।

বিডি প্রতিদিন/হিমেল

এই বিভাগের আরও খবর