Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ১৬ জুন, ২০১৯ ১৮:৪৫

বঙ্গবন্ধু শিল্পনগর রক্ষায় ২২ কিলোমিটারের ‘সুপাই ডাইক’

রেজা মুজাম্মেল, চট্টগ্রাম:

বঙ্গবন্ধু শিল্পনগর রক্ষায় ২২ কিলোমিটারের ‘সুপাই ডাইক’

দেশের বৃহত্তম অর্থনৈতিক শিল্পাঞ্চল মিরসরাই ইকোনোমিক জোন (বঙ্গবন্ধু শিল্পনগর) রক্ষায় তৈরি করা হচ্ছে সাড়ে ২২ কিলোমিটারের ‘সুপাই ডাইক’ (বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ) বেড়িবাঁধ। এ সুপার ডাইক নির্মাণ করা হলে রক্ষা হবে প্রায় ১১ হাজার ৬২৭ একর এলাকা। পানি উন্নয়ন বোর্ড চট্টগ্রাম বিভাগ ‘চট্টগ্রাম জেলার মিরসরাই বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল (বেজা) বন্যা নিয়ন্ত্রণ সড়ক কাম বেড়িবাঁধ প্রতিরক্ষা এবং নিস্কাশন’ শীর্ষক প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে।

প্রকল্প সূত্রে জানা যায়, প্রকল্পের আওতায় প্রয়োজনীয় অবকাঠামোসহ ২২  দশমিক ৫০০ কিলোমিটার দৈর্ঘ্য ও ৩২ ফুট প্রস্থের ‘সুপার ডাইক’ বেড়িবাঁধটি নির্মাণে ব্যয় করা হচ্ছে ১৬৫৭ কোটি ৪২ লাখ ৫৩ হাজার টাকা। প্রকল্প বাস্তবায়নকাল ধরা হয়েছে ২০১৬ সালের জুলাই থেকে ২০২০ সালের হতে জুন পর্যন্ত। ২০১৬ সালের ৩০ আগস্ট প্রকল্পটির একনেক সভায় অনুমোদিত হয় এবং ২০১৮ সালের ৯ অক্টোবর সংশোধিত প্রকল্প প্রস্তাব একনেক সভায় অনুমোদিত হয়। এ প্রকল্পের মাধ্যমে প্রায় ১১ হাজার ৬২৭ একর এলাকায় বিভিন্ন শিল্পকল-কারখানা, অবকাঠামো, অফিস প্রভৃতি স্থাপনের সুযোগ সৃষ্টি হবে।  

প্রকল্প পরিচালক ও পানি উন্নয়ন বোর্ড চট্টগ্রামের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. জুলফিকার তারেক বলেন, ‘প্রকল্প এলাকা ও পাশ্ববর্তী এলাকাকে প্রাকৃতিক দূর্যোগ, ভূমিক্ষয় দূরিভূত ও ঝড়-জলোচ্ছাসের কবল হতে রক্ষা, অর্থনৈতিক অঞ্চলের অবকাঠামো ও অবিচ্ছিন্ন যোগাযোগ ব্যবস্থা বিদ্যমান রাখা, প্রাকৃতিক  পরিবেশের ভারসাম্য বজায় রেখে জনগণের জানমাল, সম্পদ ও অর্থনৈতিক কার্যকলাপের মানোন্নয়ন, দেশে দেশি-বিদেশী বিনিয়োগকারীদের যথাযথ পরিবেশ তৈরি করা, ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যার কর্মসংস্থানের চাহিদা পুরণ এবং জাতীয় প্রবৃদ্ধি অর্জনে প্রকল্পটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আমরা মনে করি। আশা করছি যথা সময়ে কাজটি শেষ করা হবে।’

প্রসঙ্গত, ৩০ হাজার একরের মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলে ইতোমধ্যে দেশি-বিদেশি শিল্প উদ্যোক্তাদের কাছ থেকে প্রায় ৮০ হাজার কোটি টাকার বিনিয়োগ প্রস্তাব পেয়েছে বেজা। এই শিল্পাঞ্চলে কর্মসংস্থান হবে অন্তত ১০ লাখ মানুষের। 

জাপানের সমীক্ষা মতে, মিরসরাইয়ের অর্থনৈতিক অঞ্চলে হবে অত্যাধুনিক রপ্তানিমুখী পোশাক কারখানা, টেক্সটাইল শিল্প, অটোমোবাইল শিল্প, শিপবিল্ডিং, ইস্পাত শিল্পসহ বিভিন্ন শিল্পকারখানা। শিল্পজোনে ২৮৯ কোটি টাকা ব্যয়ে গ্যাস সরবরাহে পাইপলাইন বসাচ্ছে কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড। স্থাপন করা হচ্ছে ১৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতার বিদ্যুৎকেন্দ্র।  অর্থনৈতিক অঞ্চলকে কেন্দ্র করে মিরসরাইয়ে সমুদ্র বন্দর নির্মাণের সম্ভাব্যতা যাচাই করছে চট্টগ্রাম বন্দর। এমন অত্যন্ত জরুরি এবং গুরুত্বপূর্ণ শিল্পাঞ্চল রক্ষায় বেড়িবাঁধটি নির্মাণ করা হচ্ছে বলে জানা যায়। 

বিডি প্রতিদিন/এ মজুমদার


আপনার মন্তব্য