শিরোনাম
প্রকাশ : ৯ আগস্ট, ২০১৯ ১৯:২২

চট্টগ্রামের কোরবানির বাজারে অতিরিক্ত পশু

রেজা মুজাম্মেল, চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামের কোরবানির বাজারে অতিরিক্ত পশু
ফাইল ছবি

চট্টগ্রামে কোরবানির বাজারে চাহিদার তুলনায় অতিরিক্ত পশু রয়েছে। ফলে এবার কোরবানির বাজারে কোনো পশুর সঙ্কট হবে না। ইতোমধ্যে চট্টগ্রামের ছোট-বড় বাজার সমুহে কোরবানির গরু, ছাগল, মহিষ ও ভেড়া বিক্রয়ের জন্য আনা হয়েছে। তবে এখনো বাজার জমে উঠেনি। 

আজ শুক্রবার থেকে বাজার জমবে বলে জানা যায়।     

চট্টগ্রাম জেলার প্রাণিসম্পদ বিভাগ সূত্রে জানা যায়, এবার চট্টগ্রামে সম্ভাব্য ৭ লাখ ২০ হাজার কোরবানি পশুর প্রয়োজন। এর মধ্যে গরু ও মহিষের চাহিদা ৪ লাখ ৬২ হাজার ৬১৭টি, ছাগল ভেড়া ১ লাখ ৪৭ হাজার ৫৪৮টি। পক্ষান্তরে, এবার চট্টগ্রামের ৭ হাজার ৫৭টি খামারে ৬ লাখ ১০ হাজার ২১৯টি পশু রয়েছে। এর মধ্যে ৪ লাখ ১৪ হাজার ৩৮৭টি গরু, ৪২ হাজার ২৮৪টি মহিষ, ১ লাখ ৪৭ হাজার ৫৪৮টি ছাগল ও ভেড়া রয়েছে। গত বছর পশু ছিল ৫ লাখ ৮১ হাজার ৬৩৪টি। তাছাড়া ইতোমধ্যে বিভিন্ন জেলা থেকেও ২ লাখের বেশি পশু চট্টগ্রামে পৌঁছেছে। 

অন্যদিকে, ২০১৮ সালে ৬ লাখ ৫৫ হাজার ৪১৫টি পশু কোরবানি হয়েছে। ৩ হাজার মহিষসহ ৪ হাজার ৩৮ হাজার ৪২৪টি গবাদিপশু, ১ লাখ ৪২ হাজার ৮১৯টি ছাগল ভেড়া কোরবানি হয়েছে।

জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ  রেয়াজুল হক বলেন, ‘চট্টগ্রামে কোরবানির বাজারে কোনো পশুর সংকট হবে না। চট্টগ্রামের খামারে উৎপাদিত এবং বিভিন্ন জেলা থেকে আসা পর্যাপ্ত পশু রয়েছে। তাই পশু নিয়ে আতঙ্ক হওয়ার মত কোনো কারণ নেই। 

তিনি বলেন, কোরবানির বাজারে পশুর প্রাইমারি চিকিৎসা নিশ্চিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। চট্টগ্রামের ১৫ উপজেলায় স্থায়ী ৬৩টি ও অস্থায়ী ১৪৬টি এবং নগরে ৮টিসহ মোট ২০৯টি কোরবানির পশুর হাটে থাকবে ৭১টি ভেটেরিনারি টিম। প্রতিটি টিমে থাকবে ৩ থেকে ১১ জন সদস্য। এসব সদস্য কোরবানির পশুর প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করবেন।’ 

তিনি বলেন, ‘বিজ্ঞানসম্মত ও স্বাস্থ্যবান্ধব উপায়ে পশু জবাই ও মাংস প্রক্রিয়াকরণ বিষয়ে চট্টগ্রাম জেলায় ২০৯ জনকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। তাছাড়া পশুর ধকলজনিত পানিস্বল্পতা, জ্বর, ব্যথা, পরিবহনকালীন ট্রমাটিক ইনজুরি, সাধারণ ক্ষুধামন্দা ইত্যাদির চিকিৎসা ও পরামর্শ দেবে এ টিম।   

জানা যায়, বাজারে পর্যাপ্ত পশু থাকলেও এখনো জমে উঠেনি বিকিকিনি। তবে আজ নগরের অন্যতম বৃহত্তম গরু বাজার বিবির হাটে চলবে ক্রয়বিক্রয়। তাছাড়া নগরের সাগরিকা বাজার, কর্ণফুলী বাজার, ফকিরনীর হাট বাজার, স্টিলমিল বাজারে কোরবানির পশু ক্রয় বিক্রয় চলছে।  


বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন


আপনার মন্তব্য