শিরোনাম
প্রকাশ : ২ ডিসেম্বর, ২০২০ ১৯:৪৭
আপডেট : ২ ডিসেম্বর, ২০২০ ২০:৩৭
প্রিন্ট করুন printer

যাত্রীদের ট্রেন ভ্রমণে নিরাপত্তাসহ ব্যতিক্রমী অংশীজন সভা রেলওয়ের

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

যাত্রীদের ট্রেন ভ্রমণে নিরাপত্তাসহ ব্যতিক্রমী অংশীজন সভা রেলওয়ের

সমস্যা, সম্ভাবনা, যাত্রীদের ট্রেন ভ্রমণে নিরাপত্তা জোরদারসহ নানাবিধ বিষয় তুলে ধরেই ব্যতিক্রমী অংশীজন সভার আয়োজন করেছে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চল। চট্টগ্রামের সিআরবিতে আজ বুধবার আয়োজিত এই অংশীজন সভায় উঠে এসেছে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনাও। 

তবে এসব বিষয়ে দ্রুত সমাধানসহ কার্যকর ব্যবস্থাগ্রহণের জন্য নির্দেশনাও দিয়েছেন পূর্বাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) সরদার শাহাদাত আলী। এসময় পূর্বাঞ্চলের সকল বিভাগের প্রধানসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার সংশ্লিষ্ট দায়িত্বশীলরা উপস্থিত থেকে নিজ নিজ মতামত উত্থাপন করেন।

রেলওয়ে সূত্রে জানা গেছে, রেলওয়েকে আরও গতিশীল, যাত্রী-সেবার মান বৃদ্ধিসহ সেবামূলক প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তুলতে পূর্বাঞ্চলের প্রধান বাণিজ্য বিভাগ (সিসিএম) আয়োজিত অংশীজন সভার আয়োজন করা হয়েছে। 

এ সভায় ট্রেন ছাড়ার আধা ঘণ্টা আগেই কাউন্টারে টিকেট থাকা, ট্রেন ভ্রমণে হাইজেনিকভাবে বেডিং নিশ্চিত করণ, চলন্ত ট্রেনে দায়িত্বশীল স্টাফদের স্ব স্ব স্থানে থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করণ, বিভিন্ন ষ্টেশন এলাকায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, বিনা টিকেটে যাত্রী ভ্রমণ বন্ধ, পরিষ্কার-পরিচ্ছনতা রাখা, পকেটমার ও হিজরার উপদ্রব বন্ধ করা, ট্রেন ছাড়তে দেরি হলে যাত্রীদের মোবাইলে ম্যাসেজ দেয়া, মাস্ক ছাড়া যাত্রী ভ্রমণ নিষিদ্ধ করা, মালামাল পরিবহণে নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণসহ নানাবিধ সমস্যার বিষয় উঠে এসেছে।

পূর্বাঞ্চলের এই ব্যতিক্রম অংশীজন সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন পূর্বাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) সরদার শাহাদাত আলী। প্রধান বাণিজ্য কর্মকর্তা (সিসিএম) মোহাম্মদ নাজমুল হোসেনের সভাপতিত্বে এই অংশীজন সভায় সমস্যা ও সম্ভাবনার কথা তুলে ধরে বিভিন্ন দিক-নির্দেশনামূলক আলোচনা করেন পূর্বাঞ্চলের প্রধান প্রকৌশলী মো. সুবক্তগীন, প্রধান যন্ত্র প্রকৌশলী (সিএমই) ফকির মো. মহিউদ্দিন, সিওপিএস মো. সালাউদ্দিন, চট্টগ্রাম বিভাগীয় ব্যবস্থাপক (ডিআরএম) মো. তুষার, প্রধান এষ্টেট কর্মকর্তা (সিইই) কংকন চাকমা প্রমুখ।

অন্যদের মধ্যে এই অংশীজন সভায় অংশগ্রহণ করেন এডিশনাল সিসিএম মো. মিজানুর রহমান, এডিশনাল সিওপিএস (অতি.) জাকির হোসেন, সহকারী মহা-ব্যবস্থাপক (এজিএম) জোবেদা আকতার, ডিসিও মো. আনছার আলী, ডিডিপিআর (জনসংযোগ) তৌষিয়া আহমেদ, সাইদুল ইসলাম, চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার মো. জাফর, স্টেশন মাস্টার জাফর উল্লাহ মজুমদার, শেখ জামাল হোসেন, হাটহাজারী যাত্রী কল্যাণ সমিতির সভাপতি, ব্যবসায়ী প্রতিনিধিসহ রেলওয়ের বিভিন্ন দায়িত্বশীলরা উপস্থিত ছিলেন।

পূর্বাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) সরদার শাহাদাত আলী বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, বর্তমান সরকার রেলওয়েকে আরও গতিশীল করতে ব্যাপক পরিকল্পনা ও নানাবিধ প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। ট্রেন ভ্রমণে যাত্রীদের সেবা নিশ্চিত করতে রেলওয়ের বিভিন্ন বিভাগের সমন্বয়ে একটি টীমও করা হয়েছে। এই টীমের নেতৃত্বে জিআরপি, আরএনবিসহ নানাবিধ কর্মকাণ্ড প্রতিনিয়ত করা হচ্ছে। তবে করোনা পরিস্থিতিতে ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকায় কিছুটা আয় কমলেও ধীরে ধীরে আরও নতুন নতুন পরিকল্পনায় কাজ করার চেষ্টা চলছে বলে জানান তিনি।

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর