শিরোনাম
প্রকাশ : ২৪ জানুয়ারি, ২০২১ ১৭:৫৬
প্রিন্ট করুন printer

সবাইকে সমান তালে দেখার নির্দেশনা ইসির

সাইদুল ইসলাম, চট্টগ্রাম

সবাইকে সমান তালে দেখার নির্দেশনা ইসির

চসিক সিটি নির্বাচনের সকল প্রার্থীদের সমান তালে দেখার নির্দেশনা দিয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা বলেছেন, আপনাদের কাছে একজন প্রার্থীর পরিচিয় হচ্ছেন, তিনি প্রার্থীই। সে কোন দলের মতের গোত্রের সেটা পরিচয় নয়। প্রত্যেকই তাদের নির্বাচনী প্রচারণা আইনী সহায়তা দেয়ার দায়িত্ব আপনাদের। ভোট কেন্দ্রে পোলিং এজেন্টদের যদি কোনো অভিযোগ থাকে, আপনারা তা সময় ও মনযোগ দিয়ে শুনবেন। কোনো প্রার্থীর দল, মত, ধর্ম বিবেচনা করার সুযোগ নেই। সবাইকে সমান ভাবে মূল্যায়ন করতে হবে। তবে নির্বাচনী প্রতিযোগিতা যেন সংঘাতে পরিণত না হয় সেজন্য প্রার্থীদের সহনশীল আচরণের আহবান জানান।

রবিবার চট্টগ্রামে আইনশৃংখলা বাহিনীর সঙ্গে মতবিনিময়কালে সার্কিট হাউসে এসব কথা বলেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা।

তিনি আরো বলেন, আশ্বস্ত করার মতো নির্বাচনী পরিবেশ বিরাজ করছে। বিপুল পরিমাণ মানুষ প্রচারণায় অংশগ্রহণ করছে। পোলিং এজেন্টদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে নির্বাচন কর্মকর্তাদের। ইভিএম ভোটারদের মধ্যে গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছে। নির্বাচনের বর্তমান পরিবেশ ধরে রাখতে হবে। সকল প্রার্থী যেন সমান অধিকার পায় এবং নির্বাচনী আচরণ বিধি মেনে চলে সেটি সবাইকে লক্ষ্য রাখতে হবে।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা আরো বলেন, নির্বাচনের প্রার্থী, সমর্থকরা খুব সতর্কতার সাথে নির্বাচনী কার্যাবলী পালন করবেন। প্রতিদ্বন্দ্বিতার মধ্যে নির্বাচন হবে, প্রতিযোগিতার মধ্যেই নির্বাচন হবে, সহিংসতার মধ্যদিয়ে নির্বাচন শেষ হবে না। নির্বাচনের প্রার্থী ও সমর্থকদের বলবো, নির্বাচনের পরেও আপনারা এই সমাজে বসবাস করবেন, তাই নির্বাচনের পর কেউ যেন আসামি বা বাদি হিসেবে বসবাস করতে না হয় সে দিকে খেয়াল রাখতে হবে।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার আরো বলেছেন, নির্বাচনে ইতোমধ্যে সাধারণ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। কোনোও মৃত্যুই কাম্য না। ভোট থেকে জীবন অনেক মূল্যবান। তাই এ ধরনের কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা যেন না ঘটে সেদিকে নজর রাখতে। যারা এই নির্বাচনে প্রতিযোগিতা করছেন তাদের সহনশীল হতে হবে। এবং সেটা যদি অত্যন্ত আন্তরিকতা পুর্ণ হয় তাহলে সহিংস ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা থাকে না। নির্বাচনের আমেজ যেন শেষ পর্যন্ত বজায় থাকে সেজন্য নির্বাচনী কর্মকর্তা ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি নির্দেশনা প্রদান করেন।

চসিক নির্বাচনের আইনশৃংখলা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন বিভাগীয় কমিশনার এবিএম আজাদ, চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি আনোয়ার হোসেন, সিএমপি কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর, চট্টগ্রাম আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা চসিক নির্বাচনের রির্টানিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ হাসানুজ্জামান, জেলা প্রশাসক মো. মমিনুর রহমান প্রমুখ।

বিডি-প্রতিদিন/ সালাহ উদ্দীন


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর