শিরোনাম
প্রকাশ : ১৫ এপ্রিল, ২০২১ ১৯:৫১
প্রিন্ট করুন printer

লকডাউনে চট্টগ্রামে পথে পথে রিকশা- মোটরসাইকেল, জরিমানা

সাইদুল ইসলাম, চট্টগ্রাম

লকডাউনে চট্টগ্রামে পথে পথে রিকশা- মোটরসাইকেল, জরিমানা

দেশের করোনা পরিস্থিতির অবনতির কারণে কঠোর লকডাউনে চট্টগ্রাম নগরী ও জেলায় ছিল গাড়ি শূন্য। যাত্রীবাহী কোন গাড়ি চলাচল না থাকলেও পথে পথে রিকশা আর ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেলগুলো। মূল সড়কে এবং বিভিন্ন স্পটে লোকজন কম থাকলেও অলিগলিতে লোকজন বের হয়েছে। 

মাঝে মাঝে পুলিশ টহল দিলেও সাধারণ লোকজনের অহেতুক ঘর থেকে বের হওয়া ঠেকানো যাচ্ছে না। এই লকডাউনে চট্টগ্রাম নগর ও জেলায় প্রশাসনের কঠোর নজরদারি ও মোড়ে মোড়ে চেক পোষ্ট বসানো রয়েছে। দেখা গেছে বিভিন্ন স্থানে ব্যক্তিগত পরিবহনও। গতকাল বৃহস্পতিবার সরেজমিনে দেখা যায়, ব্যাংক ও শিল্পকারখানায় কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং শিল্পকারখানার শ্রমিকদের আনাগোনা ছাড়া মূল সড়কে তেমন মানুষ দেখা যায়নি।

মুরাদপুরের হাফেজ আহমেদ নামের এক ব্যক্তি বলেন, লকডাউনে গণপরিবহন না থাকলেও নগরে চলাচল করেছে ব্যক্তিগত গাড়ি ও রিকশা। দূরত্ব বজায় রেখে কেনাকাটা কেউই করছেন না। মোড়ে মোড়ে দেখা যায় মানুষের জটলা। ওষুধ, কাঁচা বাজার ও নিত্য-পণ্যের দোকান খোলা থাকায় অন্যান্য দিনের মতো মানুষ বেরিয়েছে প্রয়োজনীয় কেনাকাটা করতে। ব্যাংক ও শ্রমিকদের নিজস্ব গাড়ি না থাকরেও অনেকে রিকশায় ও মোটর সাইকেলেই যাচ্ছেন নিজ নিজ কর্মস্থলে।

বদ্দারহাট এলাকার আজম নামের একজন পথচারী বলেন, প্রশাসনের নজরদারির কারণে অনেকেই সচেতন হচ্ছেন। সবার মুখে মাস্কও দেখা যাচ্ছে। সাধারণ মানুষের আনাগোনা আগের তুলনায় কমেছে। তবে যতটা কঠোর হবে বলে মনে হয়েছে ততটা কঠোর হয়নি লকডাউন।  

লকডাউন পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করেন চট্টগ্রাম  জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উমর ফারুক। তিনি বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, কাঁচাবাজারগুলোতে এখনও মানুষ আছে। স্বাস্থ্যবিধি মানার জন্য বার বার বলা হচ্ছে, সতর্কও করা হচ্ছে। মূল সড়কের আশপাশের দোকানপাট বন্ধ থাকলেও অলিগলিতে কিছু কিছু দোকান খোলা রয়েছে। সেগুলোও বন্ধ করতে বলা হয়েছে। 

তিনি বলেন, কোন ধরণের প্রয়োজন ছাড়াই কিছু মানুষ অহেতুক বের হচ্ছে। নগরী জুড়ে তল্লাশি চৌকি স্থাপন করে অভিযান পরিচালনা করছে ট্রাফিক বিভাগ। তাছাড়া দূরপাল্লার যানবাহন এবং নগরী থেকে বিভিন্ন উপজেলায় যাতায়াতকারী গণপরিবহনও বন্ধ আছে বলে সিএমপির ট্রাফিক বিভাগের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

পাচঁলাইশ থানার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কাসেশ ভূইয়া বলেন, জনসাধারণ লকডাউন মানছে কিনা তা তদারকি করছে পুলিশ। আমাদের টহল টিম রয়েছে যারা নগরে সার্বক্ষণিক টহল দিচ্ছে। জনসাধারণের চলাচল আরও সীমিত করতে মুভমেন্ট পাস  চেক করছে পুলিশ।

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর

এই বিভাগের আরও খবর