Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
প্রকাশ : ২৭ মে, ২০১৯ ১৮:৩২

‘কুড়িগ্রাম কেন দারিদ্রের শীর্ষে’ প্রতিবাদে মানববন্ধন

অনলাইন ডেস্ক

‘কুড়িগ্রাম কেন দারিদ্রের শীর্ষে’ প্রতিবাদে মানববন্ধন
সংগৃহীত ছবি

‘কুড়িগ্রাম কেন দারিদ্র্যের শীর্ষে’ এই প্রতিবাদে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার বেলা ১১টায় রেল-নৌ যোগাযোগ ও পরিবেশ উন্নয়ন গণকমিটির আয়োজনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। 

মানববন্ধনে কুড়িগ্রাম জেলাবাসী ছাড়াও ঢাকাস্থ বিভিন্ন সংগঠন, রাষ্ট্রচিন্তা, মৌলিক বাংলা, গার্মেন্টস শ্রমিক ঐক্য ফোরাম, হিউম্যানিস্টস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ অংশ নেয়।

রেল-নৌ যোগাযোগ ও পরিবেশ উন্নয়ন গণকমিটির সভাপতি কলামিস্ট নাহিদ হাসান এর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক রকিব মুহাম্মদ হাসানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, জুরাইনের পরিবেশকর্মী মিজানুর রহমান, রাষ্টচিন্তার সংগঠন সাদিয়া জেরিন পিয়া ও মাহবুবুর রহমান, ঢাকাস্থ কুড়িগ্রাম সমিতির সহ সভাপতি এম সলিমুল্লাহ ও মহাসচিব সাইদুল আবেদীন ডলার, কুড়িগ্রাম সোসাইটি, ঢাকার মহাসচিব ইঞ্জিনিয়ার শাহিন চিশতি ও সহ সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহীম পারভেজ, প্রবীণ সাংবাদিক আমান উদ দৌল্লা, সংগঠনের নির্বাহী সভাপতি রাইহান কবির রনো, সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী মাহাদী হাসান ফারুকী ও দপ্তর সম্পাদক মারুফ আহমেদসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

এ সময় বক্তারা বলেন, ভারতের ৩-৪ টি জেলার সীমান্ত কুড়িগ্রামের সাথে। এই ভৌগোলিক কারণে কুড়িগ্রাম জেলা ভারতের সেভেন সিস্টার্সের কারখানায় পরিণত হতে পারত। ব্রহ্মপুত্রে প্রাপ্ত খনিজ দিয়েই বেশ কিছু ভারী শিল্প গড়ে তোলা সম্ভব ছিল। সম্ভব ছিল নদনদীময় কুড়িগ্রাম জেলাকে পর্যটন নগরীতে পরিণত করা। ব্রহ্মপুত্রসহ অন্যান্য নদনদীগুলোর চরে যেসব সুস্বাদু বাদাম ও কালাই পাওয়া যায়, তা সরাসরি ভোক্তার হাতে পৌঁছালে আর দরিদ্র মানুষ থাকার কথা না।

তারা আরো বলেন, নদনদীর তীরে বিস্তীর্ণ অনাবাদী জমিতে কয়েক হাজার মেগাওয়াট সৌর বিদ্যুৎ উৎপাদন করা সম্ভব, যা দিয়ে পুরো উত্তরবঙ্গের বিদ্যুৎ চাহিদা পূরণ করা সম্ভব। উল্টো কুড়িগ্রামের মানুষ ক্ষুদ্র ঋণের জাল ছিঁড়তে নিঃশেষ হয়ে যাচ্ছে। 


বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য