Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ২৪ জুন, ২০১৯ ২০:৪২

ভারতে ফের মুসলিম যুবককে পিটিয়ে হত্যা!

দীপক দেবনাথ, কলকাতা:

ভারতে ফের মুসলিম যুবককে পিটিয়ে হত্যা!

২৪ বছর বয়সী এক মুসলিম যুবককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে ভারতের ঝাড়খন্ডের সেরাইকেলা খারসওয়ান জেলায়। 

জানা যায়, মোটরসাইকেল চুরির অভিযোগে খারসওয়ান শহরের বাসিন্দা তাবরেজ আনসারি নামে ওই যুবককে গত ১৮ জুন মারধর করে স্থানীয় একদল মানুষ। একটি পোস্টের সাথে বেঁধে চারিদিক থেকে গাছের ডাল, লাঠি দিয়ে প্রচন্ড মারধর করা হয়। তাকে দিয়ে জোর করে ‘জয় শ্রী রাম’ ও ‘জয় হনুমান’ স্লোগান দেওয়া হয় বলেও অভিযোগ। 

এসময় না মারার অনুরোধ জানালেও কর্ণপাত করা হয়নি তার সেই আবেদনে। প্রচন্ড মারধরের ফলে অসুস্থ হয়ে পড়ে আনসারি। এরপর ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসার পর নিজেদের হেফাজতে নেয়। 

চুরির চেষ্টার অভিযোগে আনসারির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়। এরপর আদালতের নির্দেশে তাকে সেরাইকেলা কারাগারে প্রেরণ করা হয়। এরই মধ্যে শনিবার অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে নিয়ে যাওয়া হয় জেলা সদর হাসপাতালে, সেখানেই তার মৃত্যু হয়। 

পুলিশ সুপার কার্তিক এস জানান ‘ধাকতিদি এলাকায় একটি মোটরসাইকেল চুরির চেষ্টার অভিযোগ ওঠে আনসারিসহ তিনজনের বিরুদ্ধে। দুইজন কোনক্রমে পালিয়ে গেলেও ধরা পড়ে যায় আনসারি। এরপরই স্থানীয় মানুষ তাকে প্রচণ্ড মারধর করে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে নিজেদের হেফাজতে নেয় পুলিশ। জব্দ করা হয় মোটরসাইকেলটিকেও।’

যদিও পুলিশের হেফাজতে থাকাকালীন সময়েই আনসারির মৃত্যু হয়েছে দাবি করেছেন আফজল আনিস নামে ঝাড়খণ্ডের এক সমাজসেবী। 

এদিকে আনসারিকে মারধরের ভিডিওটি সামনে আসতেই রাজ্যজুড়ে ধিক্কার পড়ে গিয়েছে। ভিডিওটিকে ইস্যু করেই পুলিশের দ্বারস্থ হয় আনসারির পরিবার। থানায় একাধিক ব্যক্তির নামে এফআইআর-ও দায়ের করেন তার স্ত্রী সায়িস্তা পারভীন। অভিযোগের ভিত্তিতেই পাপ্পু মন্ডল নামে একটি ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। পারভীনের আরও অভিযোগ মাথায় গুরুতর আঘাত পাওয়া সত্ত্বেও পুলিশ যথাযথ গুরুত্ব না দেওয়ার ফলেই তার স্বামীর মৃত্যু হয়েছে। 

যদিও আনসারিকে দিয়ে জোর করে কোন স্লোগান বলানো হয়নি বলে জানিয়েছেন পুলিশ সুপার। তিনি বলেন মারধরের ভিডিওটিতে এমন কোন স্লোগান শোনা যায়নি। গোটা পরিস্থিতি এখন শান্ত। 


বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য