শিরোনাম
প্রকাশ : ২ এপ্রিল, ২০২০ ১৬:৫৯
আপডেট : ২ এপ্রিল, ২০২০ ২০:০৩

কুমিল্লায় করোনা নিশ্চিতে যুবকের নমুনা সংগ্রহ, বাড়ি লকডাউন

কুমিল্লা (লাকসাম) প্রতিনিধি

কুমিল্লায় করোনা নিশ্চিতে যুবকের নমুনা সংগ্রহ, বাড়ি লকডাউন

কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ উপজেলায় এক যুবকের শরীরে করোনা উপসর্গ আছে সন্দেহে একটি বাড়ি লকডাউন করে দেয়া হয়েছে। 

বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সংশ্লিষ্ট দায়িত্বশীলদের নিয়ে ৭ লক্ষণপুর ইউনিয়নের একটি গ্রামে গিয়ে ওই বাড়িটি লকডাউন করে দেন। বাড়ির কেউ যাতে বের হতে না পারে এজন্য পুলিশের পাহারা বসানো হয়েছে। করোনা নিশ্চিতে যুবকের নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিসিআরে পাঠানো হয়েছে। 

সূত্রে জানা যায়, ৩০ বছর বয়সী ওই যুবকের ঢাকার আশকোনা এলাকায় একটি চা দোকান ছিল। জ্বর, কাশি, বুকেব্যাথা নিয়ে গত ১৫ মার্চ তিনি ঢাকা থেকে এসে লাকসাম পশ্চিমগাঁও শ্বশুরের ভাড়া বাসায় অবস্থান করেন। এরই মধ্যে স্থানীয় চিকিৎসকের পরামর্শে ওষুধ সেবন করলেও শারীরিক অবস্থার আশানুরূপ উন্নতি হচ্ছিল না। 

শেষ পর্যন্ত তার শরীরের উপসর্গের বিষয়টি জানাজানি হলে স্থানীয় কাউন্সিলর আবদুল আলিম দিদার উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় ওই যুবকসহ বাসার সকলকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশনা দিয়ে বাড়িতে তালা ঝুলিয়ে দেন। সেখান থেকে গত ২৭ মার্চ ওই যুবক কৌশলে মনোহরগঞ্জে তার গ্রামের বাড়িতে চলে যায়। সেখানে তার জ্বর, কাশি ও বুকে ব্যাথার উপসর্গের কথা জানাজানি হলে স্থানীয়দের মধ্যে করোনাভাইরাস সন্দেহে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

স্থানীয়রা বিষয়টি উপজেলা প্রশাসনকে অবহিত করে। খবর পেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহেল রানা সংশ্লিষ্ট দায়িত্বশীলদের নিয়ে ওই গ্রামে গিয়ে বাড়িটি লকডাউন করে দেন। বাড়িতে অবস্থানরত ৯টি পরিবারের কেউ যেতে বেরুতে না পারে সেজন্য পুলিশের পাহারা বসানো হয়েছে। 

মনোহরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা নিসর্গ মেরাজ চৌধুরী জানান, সন্দেহভাজন ওই যুবকের শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিসিআর-এ পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট পেলে করোনায় আক্রান্ত কিনা, তা নিশ্চিত হওয়া যাবে।
 
মনোহরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহেল রানা বলেন, স্থানীয়দের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে তাৎক্ষণিকভাবে গিয়ে ওই যুবকের বাড়িটি লকডাউন করে দেয়া হয়েছে। মনোহরগঞ্জে করোনা প্রতিরোধে তিনি সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার অনুরোধ করেন।   

বিডি প্রতিদিন/আরাফাত


আপনার মন্তব্য