শিরোনাম
প্রকাশ : ২৮ জানুয়ারি, ২০২১ ২০:১৪
প্রিন্ট করুন printer

নবজাতক কন্যাকে হাসপাতালে রেখে পালিয়ে গেল বাবা-মা

নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর

নবজাতক কন্যাকে হাসপাতালে রেখে পালিয়ে গেল বাবা-মা

নবজাতক কন্যা সন্তান পৃথিবীতে এলো ঠিকই। কিন্তু বাবা-মায়ের স্পর্শ পেলনা। কন্যা সন্তান হওয়ার অপরাধে প্রচণ্ড শীতের রাতে হাসপাতালে রেখে পালিয়ে যায় বাবা-মা দুজনেই। ঘটনাটি রংপুরের বদরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বুধবার মধ্য রাতে ঘটেছে।

বৃহস্পতিবার নবজাতককে উদ্ধার করে নিয়ে যান হাসপাতালের এক পরিচ্ছন্নতা কর্মী। খবর পেয়ে অনেক নিঃসন্তান দম্পতি নবজাতককে দত্তক নেয়ার জন্য আগ্রহ প্রকাশ করেছে। শিশুটি বদরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিচ্ছন্নতা কর্মী জোবেদার বেগমের বাড়িতে রয়েছে।

এলাকাবাসী ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলার পলাশবাড়ী ইউনিয়নের ধোবাকল গ্রামের নিরাপদ বিশ্বাসের ছেলে ফেরি করে ঝাল মুড়ি বিক্রেতা প্রদীপ বিশ্বাস তার গর্ভবতী স্ত্রী পল্লবীকে নিয়ে বুধবার বদরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসেন। ওই দিন পল্লবীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাতে স্বাভাবিকভাবে পল্লবী একটি ফুটফুটে সন্তান জন্ম দেন। 

যখন তারা জানতে পারেন সন্তানটি ছেলে নয় মেয়ে হয়েছে। এতে তারা খুশি হতে পারেনি। তাদের ঘরে পপি রানী (৯) ও দীপা (৫) নামে আরও দুটি কন্যা সন্তান রয়েছে। অভাব আর অনটনের সংসারে তিন কন্যা সন্তানের ভরন-পোষণ করা নিয়ে চিন্তায় পড়েন তারা। রাতেই স্বামী স্ত্রী পরিকল্পনা করে তারা পালিয়ে যান। বৃহস্পতিবার সকালে নব জাতকের বাবা- মাকে খুঁজে না পাওয়া গেলে ঘটনাটি সকলের নিকট প্রকাশ পায়। 

বদরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আবাসিক কর্মকর্তা ডা. নাজমুল হোসাইন বলেন, আমার জানা মতে আইনি প্রক্রিয়া ছাড়া দত্তক নেওয়া যায় না। আমরা শিশুটিকে উদ্ধার করে তার বাবার কাছে ফেরত দেওয়ার চেষ্টা করছি।

বদরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আরশাদ হোসেন বলেন, স্বাভাবিকভাবে শিশুটির জন্ম হয়েছে। সকালের দিকে দেখা যায় হাসপাতালে শিশু ও তার মা নেই। রাতের কোন এক সময় প্রসূতি ওই মা পালিয়ে গেছে। পরে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়।

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর