শিরোনাম
প্রকাশ : ১৫ জানুয়ারি, ২০২১ ১৫:২৫
আপডেট : ১৫ জানুয়ারি, ২০২১ ২৩:৪৫
প্রিন্ট করুন printer

পি কে হালদারের বান্ধবী কে এই অবন্তিকা?

অনলাইন ডেস্ক

পি কে হালদারের বান্ধবী কে এই অবন্তিকা?
অবন্তিকা বড়াল

প্রায় সাড়ে ৩ হাজার কোটি টাকা পাচারের অভিযোগ মাথায় নিয়ে বিদেশে পলাতক এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রশান্ত কুমার হালদার ওরফে পি কে হালদারের বান্ধবী অবন্তিকা বড়ালকে তিন দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে। তাকে টাকা

পাচারের বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে দুদক। এর আগে গতকাল দুপুরে রাজধানীর ধানমন্ডি ১০ নম্বর সড়কের একটি বাসা থেকে পি কে হালদারের বান্ধবী অবন্তিকাকে গ্রেফতার করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। দুদকের পরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য্য বলেন, পি কে হালদারের অবৈধ সম্পদ অর্জন ও অর্থ পাচারের মামলার তদন্তে অবন্তিকার সম্পৃক্ততা পাওয়া গেছে।

এদিকে, অবন্তিকাকে গ্রেফতারের পর থেকে তাকে নিয়ে নানা কৌতূহল। পি কে হালদারের সঙ্গে কি তার সম্পর্ক। কে এই অবন্তিকা? গণমাধ্যমে প্রকাশিত বিভিন্ন খবর সূত্রে জানা গেছে, অবন্তিকা বড়াল পি কে হালদারের ঘনিষ্ঠ বান্ধবী। পি কে হালদারের কাছ থেকে তিনি অনেক সুবিধা নিয়েছেন। একইভাবে নিজের অবৈধ সম্পদ আড়াল করেছেন এই অবন্তিকার মাধ্যমে। পিকে হালদারের বাড়ি পিরোজপুর জেলার নাজিরপুরে। অবন্তিকা বড়ালের বাড়িও পিরোজপুরে। এলাকার মেয়ে হিসেবে পি কে হালদারের সঙ্গে তার পরিচয়। এক পর্যায়ে ঘনিষ্ঠতা হয়। 

তবে গত বুধবার দুদক থেকে আদালতে নেওয়ার সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে অবন্তিকা বলেন, আমাকে কেন গ্রেফতার করা হয়েছে, সে বিষয়ে কিছুই জানি না। অবৈধ সম্পদ আছে কিনা, এ প্রশ্নের উত্তরে অবন্তিকা বলেন, এটা দুদক জানে, আমি বলতে পারব না। 

এর আগে, অবন্তিকাকে গ্রেফতারের পর প্রথমে সেগুনবাগিচায় দুদকের প্রধান কার্যালয়ের হাজতখানায় রাখা হয়। পরে তাকে আদালতে হাজির করেন তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের উপপরিচালক মো. সালাউদ্দিন। পরে তাকে জজ আদালতে হাজির করে তিন দিনের রিমান্ডের আবেদন করলে ঢাকার জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ কে এম ইমরুল কায়েশ তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

উল্লেখ্য, প্রায় সাড়ে ৩ হাজার কোটি টাকা পাচারের অভিযোগ মাথায় নিয়ে বিদেশে পলাতক এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রশান্ত কুমার হালদার ওরফে পি কে হালদার ৬২ সহযোগীর মাধ্যমে অর্থ পাচার করেছেন বলে জানিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। 

হাজার কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ অনুসন্ধানে এখন পর্যন্ত পি কে হালদারের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতায় এ ৬২ জনের নাম পেয়েছেন দুদকের অনুসন্ধান কর্মকর্তা। দুদক সচিব বলেন, আসলে পি কে হালদারের বিষয়টি এখন অনেক বড়। দেখা যাচ্ছে তার বিভিন্নজনের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতা আছে। আমরা ইতিমধ্যে অনেককে জিজ্ঞাসাবাদ করেছি। মোটামুটি ৬২ ব্যক্তির সঙ্গে তার লিঙ্ক বা সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যায়। যার মধ্যে একজন অবন্তিকা বড়াল।

বিডি-প্রতিদিন/শফিক


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৬:৪৪
প্রিন্ট করুন printer

গঠিত হল 'কৃষক দলের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি'

অনলাইন ডেস্ক

গঠিত হল 'কৃষক দলের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি'

আজ শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) সকালে কৃষক দলের 'বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী সম্মেলন-২০২১' প্রস্তুতি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

১৪৩ সদস্য বিশিষ্ট শামসুজ্জামান দুদুকে আহ্বায়ক ও কৃষিবিদ হাসান জাফির তুহিনকে সদস্য সচিব করে দলের সদস্য (দফতরের দায়িত্বে) এস কে সাদী স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। এতে আরও বলা হয়, 'উল্লেখিত উপ-কমিটিসমূহের কর্মকাণ্ড সুচারুভাবে সম্পন্ন করার জন্য প্রয়োজনীয় সদস্য অন্তর্ভুক্ত করা হবে।'      

কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন, আব্দুস সালাম পিন্টু, তকদির হোসেন মো. জসিম, তোফাজ্জল হোসেন, সৈয়দ মেহেদী আহমেদ রুমী, এ কে এম মোয়াজ্জেম হোসেন, নাজিমুদ্দিন, আফতাব উদ্দিন আহমেদ মণ্ডল, জামাল উদ্দিন খান মিলন, আরিফুল হক চৌধুরী, কৃষিবিদ আনোয়ারুন্নবী মজুমদার বাবলা, কৃষিবিদ শামীমুর রহমান শামীম, গৌতম চক্রবর্তী, আবুল কালাম আজাদ সিদ্দীকি, সাইফুল ইসলাম শিশির, সৈয়দ সাবিরুল হক সাবু, কে এ এম জহিরুল হক, ইলিয়াস আহমেদ পাল, এম এ হালিম, জিয়াউল হায়দার পলাশ, টি এস আইয়ুব, নাসির হায়দার, ফেরদৌস পাটোয়ারী, অধ্যক্ষ নুর আফরোজ জ্যোতি, আবু তাহের, ওবায়েদ উল্লাহ পিন্টু, এস কে সাদী, গোলাম মোস্তফা, শরিফুল ইসলাম মোল্লা, কৃষিবিদ মিজানুর রহমান লিটু, আফসার উদ্দিন, আনোয়ারুল ইসলাম বাদশা, সিরাজুল ইসলাম, ফখরুল আলম, ফজলুর রহমান, এম এ মুছাব্বির, সালাউদ্দিন খান মিল্কি, এনায়েত উল্লাহ খোকন, লুৎফর রহমান, শহিদুল কাউনাইন টিলু, শফিউল আলম শফি, শেখ মো. মহসিন, এন এস শাহজাহান খান পাঠান, আবু জাফর সিদ্দিক, সেলিম হোসেন, আলীম হোসেন, আমিনুর রহমান দিপক, জুলফিকার আলী ভুট্টো, শফিকুল ইসলাম শফি, মাইনুল ইসলাম, নাছির উদ্দিন হাজারী, শাহিন ইকবাল সাবু, মো. আক্তার হোসেন সেন্টু, আলমগীর চৌধুরী, বায়েজিদ বোস্তামী, জহির আলী, মাহমুদুল আলম, আব্দুল কুদ্দুস, কামরুজ্জামান সেলিম, বেলাল উদ্দিন ভূঁইয়া, সলিমুল্লাহ বাহার হিরণ, রবিউল হাসান পলাশ, সুলতান ফেরদৌস, আনোয়ারুল হক, জাফরুল্লাহ, মাহবুবুর রহমান সানা, কাজী খয়রাত হোসেন, আকরাম হোসেন মণ্ডল, রফিকুল ইসলাম রফিক, আজিজুর রহমান বাচ্চু, খন্দকার মোসাদ্দেক হোসেন মান্নাফ, শ্যামল হোড়, মাহমুদুল হক সানু, আব্দুস সালাম, আবুল বাশার আকন্দ, আজিজুল হক খান, এস এম গোলাম কবির, ইসহাক কাদের চৌধুরী, শাহজাহান সিকদার, মোহাম্মদ গাদ্দাফি, বিশ্বজিৎ তঞ্চঙ্গা, ইসলাম হোসেন, এম এ রশিদ, আ ত ম মিসবাহ, আবু সাঈদ মো. খালিদ, মাহবুবুর রহমান আউয়াল, আলতাফ হোসেন তালুকদার, ইলিয়াস হোসেন, সাবির হাসান বাচ্চু, উপাধ্যক্ষ মকবুল হোসেন, রফিকুল ইসলাম রফিক, আ স ম আব্দুর রউফ, এম এ করিম মণ্ডল, আমিনুল ইসলাম আঙ্গুর, নুরুল হুদা খান বাবু, তৌফিকুর রহমান তপু, আমির হোসেন চাষী, মাহমুদুল হাসান নিজামী, নজরুল ইসলাম বাচ্চু, রওশন আলী প্রামাণিক, নজরুল ইসলাম মণ্ডল, মো. মাসুদ রানা, ইলিয়াস হোসেন, সালাউদ্দিন খান, মিয়া মো. আনোয়ার, কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন, মিজানুর রহমান মিজান, নাছির উদ্দীন ভূঁইয়া, তোফাজ্জল হোসেন, গাজী আলাউদ্দিন, মো. মোজাম্মেল হক মিন্টু, নাছির উদ্দীন আহমেদ বাচ্চু, বিলকিস আরা খাতুন রিতা, মীর মমিনুর রহমান সুজন, জহির ফারুক, শাহ নেওয়াজ রহমান লাবু, তারিকুল ইসলাম, হালিমা খান লুসি, কৃষিবিদ আবুল মোবারক, কৃষিবিদ আব্দুল মালেক, কৃষিবিদ রমজান আলী, কৃষিবিদ মো. শেরশাহ, কৃষিবিদ মো. আব্দুল হান্নান, কৃষিবিদ মো. গিয়াস উদ্দীন, খলিলুর রহমান ভিপি ইব্রাহিম, আতিকুল ইসলাম, ওয়াদুদ হাসান পিন্টু, সাইফুল ইসলাম, শিব্বির আহমেদ, আশজাদুল আরিশ ডল, হারুন শিকদার, আব্দুর রাজী, জহিরুল হক জহির, জাহাঙ্গীর আলম, জাহিদ হোসেন নেছার, রিয়াজ উদ্দীন আহমেদ, শফিকুল ইসলাম, শরীফুল ইসলাম, ওলিউল্লাহ, জামাল হোসেন, সাখাওয়াত হোসেন নান্নু, কৃষিবিদ মেহেদী হাসান পলাশ।  

এছাড়াও সম্মেলন সফল করার জন্য ছয়টি উপ-কমিটি গঠন করা হয়েছে। অভ্যর্থনা উপ-কমিটির আহ্বায়ক তকদির হোসেন মো. জসিম, সদস্য সচিব লায়ন মিয়া মো. আনোয়ার। প্রকাশনা উপ-কমিটির আহ্বায়ক মো. জামাল উদ্দিন খান মিলন, সদস্য সচিব নাসির হায়দার। দফতর উপ-কমিটির আহ্বায়ক এস কে সাদী, সদস্য সচিব শামসুর রহমান শামস। প্রচার উপ-কমিটির আহ্বায়ক মো. শরিফুল ইসলাম মোল্লা, সদস্য সচিব কৃষিবিদ মেহেদী হাসান পলাশ। শৃঙ্খলা ও সেবা উপ-কমিটির আহ্বায়ক কৃষিবিদ মিজানুর রহমান লিটু সদস্য সচিব শাহ আব্দুল্লাহ আল বাকী। আপ্যায়ন উপ-কমিটির আহ্বায়ক খলিলুর রহমান ভিপি ইব্রাহিম, সদস্য সচিব মো. আলীম হোসেন 

 

বিডি প্রতিদিন / অন্তরা কবির   


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৩:৩৮
প্রিন্ট করুন printer

পাওনা টাকা আনতে গিয়ে নিখোঁজ হয়ে লাশ মিলল মহাসড়কে

ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি

পাওনা টাকা আনতে গিয়ে নিখোঁজ হয়ে লাশ মিলল মহাসড়কে
মৃত আজাদ বিশ্বাস

ঢাকার ধামরাইয়ে ব্যবসায়ী আজাদ পাওনা টাকা ফেরত আনতে গিয়ে নিখোঁজ হন। রাতভর তার কোন খোঁজ না পেয়ে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের পাশে থেকে তার ক্ষতবিক্ষত লাশ দেখতে পান এলাকাবাসী। 

২৩ ফেব্রুয়ারি  ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের ধামরাইয়ের বাথুলি বাসস্ট্যান্ডের পাশ থেকে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ মর্গে প্রেরণ করে।পরিবারের দাবি, তাকে পরিকল্পিতভাবে খুন করার পর লাশ মহাসড়কের পাশে ফেলে পালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। 

তবে পুলিশ জানিয়েছে, এটি পরিকল্পিত হত্যা নাকি সড়ক দুঘর্টনা তা লাশের ময়না তদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পরই মৃত্যুর সঠিক কারণ বলা যাবে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, ধামরাইয়ের  কিশোরিনগর গ্রামের বাবুল বিশ্বাসের ছেলে আজাদ বিশ্বাস (২৮) বাথুলি কেবিসি কারখানায় চাকরির পাশাপাশি ধানের কুড়া ও ভোজ্যতেলের ব্যবসা করতেন। মাস তিন আগে চাকরি ছেড়ে দিয়ে ধামরাইয়ের কেবিসি ও গাজীপুরের বিভিন্ন কারখানায় ধানের কুড়া সরবরাহ করতো এই ব্যবসা করার জন্য বাবুল কয়েকটি এনজিও থেকে ঋণ তুলে প্রায় সাড়ে চার লাখ টাকা দিয়েছিলেন ছেলে আজাদকে। 

গত সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে আসরের নামাজ পড়ে নিজ বাড়ি থেকে আজাদ পাওনা টাকা আনার জন্য সাভারের নয়ারহাট যাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হন। সারারাত সে আর ফিরে আসেনি। কার কাছে টাকা পান তা বলে না যাওয়ায় খোঁজও করতে পারেনি পরিবারের লোকজন। 

বাবা বাবুল বিশ্বাস সাংবাদিকদের বলেন, 'সন্ধ্যার পর ছেলের সঙ্গে মোবাইলে আমার কয়েক দফায় কথা হয়েছে। সব শেষে রাত পৌনে ৯টায় আজাদ আমাকে বলেছে, টাকা নিয়ে আমাকে ঘুরাচ্ছে। আমি বেশি কথা বলতে পারছি না, বিপদে আছি, আমাকে নয়ারহাট থেকে ধামরাই নিয়ে যাচ্ছে। এই কথা বলার পর আর মোবাইল ফোন রিসিভ করেনি আজাদ।'

এরপর সকালেই খবর পান ধামরাইয়ের বাথুলি বাসস্ট্যান্ডের পাশে ছেলের ক্ষতবিক্ষত লাশ পড়ে আছে। তবে পরিবারের দাবি, যাদের কাছে টাকা পাবে তারাই আজাদকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে লাশ সড়কের পাশে ফেলে রেখে গেছে। 
  
ধামরাই থানার অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) আতিকুর রহমান বলেন, 'প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে অজ্ঞাত কোন গাড়ির চাপায় মারা গেছে আজাদ বিশ্বাস। তবে কেউ যদি তাকে হত্যা করে থাকে ময়না তদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পরই মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।'

 

বিডি প্রতিদিন / অন্তরা কবির 



 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ২০:২৫
প্রিন্ট করুন printer

টঙ্গীতে দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে বৃদ্ধ খুন

টঙ্গী প্রতিনিধি

টঙ্গীতে দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে বৃদ্ধ খুন

গাজীপুরের টঙ্গী মরকুন পশ্চিমপাড়া এলাকায় আজ মঙ্গলবার দুপুরে জাকির হোসেন (৬০) নামে এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে খুন করার ঘটনা ঘটেছে। খবর পেয়ে টঙ্গী পূর্ব থানা পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজ উদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

জাকির বরিশাল বরগুনা জেলার সদর থানার পাগরকাছিয়া গ্রামের মৃত আব্দুল আলী রমিজের ছেলে। সে পূবাইলের হারবাইদ গ্রামে বসবাস করতেন। এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে।

জানা যায়, আজ দুপুর ১টার সময় জাকির টঙ্গীর মরকুন পশ্চিম পাড়ায় এলাকায় গেলে একদল দুর্বৃত্ত তাকে ধরে দুই পায়ের উরুতে এবং শরীরের একাধিক স্থানে এলোপাথাড়ি ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করে টঙ্গী শহীদ আহসান উল্লাহ মাষ্টার জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে তার মৃত্যু ঘটে।

এব্যাপারে টঙ্গী পূর্ব থানার ওসি আমিনুল ইসলাম এর সাথে যোগাযোগ করলে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন এবং ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে জানান।

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১৪:৪১
প্রিন্ট করুন printer

সাভারে আইনশৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভা অনুষ্ঠিত

নাজমুল হুদা, সাভার

সাভারে আইনশৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভা অনুষ্ঠিত

সাভার উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ মঙ্গলবার দুপুরে সাভার উপজেলা পরিষদের সভা কক্ষে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান। 

সভায় উপজেলার সার্বিক আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি- মাদক, সন্ত্রাস, নারী নির্যাতন, ধর্ষণ, ইভটিজিং, কিশোর গ্যাং নিয়ে আলোচনা হয়। এ সময় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নতির বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

সাভার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামীম আরা নীপার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সাভার উপজেলাধীন সকল ইউনিয়নের চেয়ারম্যানগণ, সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ সায়েমুল হুদা, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তাসহ সমাজের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ।

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ জানুয়ারি, ২০২১ ০৮:৫০
প্রিন্ট করুন printer

ডেমরায় নারীর লাশ উদ্ধার

অনলাইন ডেস্ক

ডেমরায় নারীর লাশ উদ্ধার

রাজধানীর ডেমরায় একটি বাসার তালাবদ্ধ কক্ষ থেকে আয়শা আক্তার নামে এক নারীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ধারণা করা হচ্ছে নিহতের স্বামী তাকে হত্যা করে পালিয়েছেন।

গতকাল রবিবার বিকেলে খবর পেয়ে ডেমরা থানাধীন সরুলিয়ার পশ্চিম টেংড়া এলাকার ৫ তলা ভবনের নিচতলার একটি বাসায় তালাবদ্ধ কক্ষ থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত আয়শা ডেমরার একটি তার ফ্যাক্টরিতে কাজ করতেন। তার স্বামী জোনায়েদ একজন গাড়িচালক।

ডেমরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি খন্দকার নাসির উদ্দিন বলেন, হত্যাকাণ্ডের পর থেকে ওই নারীর স্বামী পলাতক। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। লাশ উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

তিনি প্রতিবেশীদের বরাতে আরও বলেন, ডেমরায় মৃত হাজি সিরাজ মিয়ার বাসায় তিন বছরের সন্তানসহ ভাড়া থাকতেন ওই দম্পতি। পারিবারিক কলহের জের ধরে এ খুনের ঘটনা ঘটতে পারে।

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর