Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ৩ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২ নভেম্বর, ২০১৯ ২২:৫৩

এনজিওর ঋণ পরিশোধে ব্যর্থ নারীর আত্মহত্যা

কুমিল্লা প্রতিনিধি

এনজিওর ঋণ পরিশোধে ব্যর্থ নারীর আত্মহত্যা

কুমিল্লার দাউদকান্দিতে এনজিওর ঋণের টাকা পরিশোধে ব্যর্থ হওয়ায় এনজিওকর্মীদের খারাপ ব্যবহারে চার সন্তানের জননী নাজমা আক্তার (৪১) আত্মহত্যা করেছেন। নাজমা আক্তার গৌরীপুর গ্রামের সফিকুল ইসলামের স্ত্রী। শনিবার গৌরীপুর গ্রামের পূর্বপাড়া মোল্লাবাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

সূত্র জানায়, সফিকুল ইসলামের স্ত্রী নাজমা বিভিন্ন এনজিও থেকে ঋণ নেন। তার মধ্যে গ্রামীণ ব্যাংক, আশা ব্যাংক, দিশা ব্যাংক, ব্র্যাক ব্যাংক ও ইসলামী ব্যাংক অন্যতম। নাজমার চার মেয়ের মধ্যে দুই মেয়েকে বিয়ে দিয়েছেন, দুই মেয়ে বর্তমানে স্কুলে লেখাপড়া করে। স্বামী সফিকুল ইসলাম স্থানীয় বাজারে মাছের ব্যবসা করে পরিবারের জীবিকা নির্বাহ করতেন। সম্প্রতি নাজমা আক্তার এনজিওর ঋণ সঠিক সময়ে পরিশোধ করতে পারছিলেন না। শুক্রবার আশা ব্যাংক ও গ্রামীণ ব্যাংকের কিস্তির তারিখ ছিল। নাজমা কিস্তির টাকা দিতে না পারায় আশা ব্যাংক ও গ্রামীণ ব্যাংকের লোকজন তার বাড়িতে এসে গালমন্দ করতে থাকেন। এক পর্যায়ে তার মেয়েদের সম্পর্কে খারাপ মন্তব্য করেন।

নাজমা আক্তারের পাশের ঘরে বসবাসকারী রানু বেগম জানান, শুক্রবার কিস্তির টাকার জন্য দুজন লোক আসে। নাজমা টাকা দিতে না পারায় গালমন্দ করে তারা। এক পর্যায়ে তারা বলে- ‘টাকা না দিতে পারলে মরে যান, মরে গেলে টাকা মাফ হয়ে যাবে।’

এনজিওকর্মীরা চলে যাওয়ার পর নাজমা ঘরের দরজা বন্ধ করে কান্নাকাটি করতে থাকে। গতকাল সকাল সাড়ে ১০টায় নাজমা ঘরের মধ্যে থাকা ছারপোকা মারার ট্যাবলেট খেয়ে ফেলে। পরিবারের লোকজন বিষয়টি বুঝতে পেরে তাকে গৌরীপুর মুক্তি  মেডিকেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। পরে লাশ বাড়িতে নিয়ে আসা হয়। দাউদকান্দি থানা পুলিশ বিকালে নাজমার লাশ থানায় নিয়ে আসে।

দাউদকান্দি থানার ওসি রফিকুল ইসলাম জানান, অপমৃত্যুর খবরে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর