শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ৩১ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩১ জানুয়ারি, ২০২০ ০১:১৯

৫ হাজার ৭৫৩ কোটি টাকায় তিন ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন

নিজস্ব প্রতিবেদক

৫ হাজার ৭৫৩ কোটি টাকায় তিন ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন

বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান থেকে মেয়াদীয় চুক্তির আওতায় ১০ লাখ ৩০ হাজার মেট্রিক টন জ্বালানি তেল আমদানি এবং বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গা যুবক-যুবতীদের সেবা প্রদান সংক্রান্ত দুটি প্রস্তাবসহ মোট  তিনটি ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। এ জন্য মোট ব্যয় হবে ৫ হাজার ৭৫৩ কোটি ৯৬ লাখ টাকা। গতকাল শেরেবাংলা নগরের এনইসি ভবনে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়। বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ  বিভাগের অতিরিক্ত সচিব নাসিমা বেগম অনুমোদিত প্রস্তাবগুলো তুলে ধরে বলেন, আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থা (আইডিএ) এবং বাংলাদেশ সরকারের মধ্যে অনুদান চুক্তির শর্তানুযায়ী ‘ইমার্জেন্সি মাল্টি-সেক্টর রোহিঙ্গা ক্রাইসিস রেসপন্স’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় নির্ধারিত কার্যক্রম সম্পাদনের জন্য সরাসরি ক্রয় চুক্তির ভিত্তিতে জাতিসংঘের বিশ্বখাদ্য সংস্থার নিয়োগ প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এ জন্য ব্যয় হবে ২৯৭ কোটি ১৪ লাখ ৯৯ হাজার ৯৮৬ টাকা।

অতিরিক্ত সচিব বলেন, দেশের জ্বালানি তেলের চাহিদা মেটাতে চলতি বছর জানুয়ারি-জুন সময়ের জন্য মোট ১০ লাখ ৩০ হাজার মেট্রিক টন বিভিন্ন ধরনের জ্বালানি তেল আমদানি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এ জন্য প্রিমিয়াম ও রেফারেন্স মূল্য বাবদ ব্যয় হবে ৫ হাজার ১৪২ কোটি ৫১ লাখ টাকা।

তিনি বলেন, ভারতের নুমালীগড় রিফাইনারি লিমিটেড (এনআরএল) থেকে পার্বতীপুর ডিপোতে রেল ওয়াগনের মাধ্যমে ২০২০ সালের জন্য ৬০ হাজার মেট্রিক টন ডিজেল আমদানি করবে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন (বিপিসি)। এ জন্য ব্যয় হবে ৩১৪ কোটি ৩০ লাখ টাকা। বিপিসি প্রতি বছর বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রায়ত্ত  প্রতিষ্ঠান থেকে মেয়াদি চুক্তির আওতায় জি-টু-জি ভিত্তিতে পরিশোধিত জ্বালানি তেল আমদানি করে থাকে। ২০২০ সালের পরিশোধিত জ্বালানি তেল আমদানি সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব গতবছর ১৩ নভেম্বর অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে অনুমোদন দেওয়া হয়।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর