শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৬ অক্টোবর, ২০২০ ২৩:৩৩

প্রশাসনের আশকারায় সরকারি দলের কর্মীরা বেপরোয়া : বিএনপি

নিজস্ব প্রতিবেদক

স্থানীয় প্রশাসনের আশকারায় সরকারি দলের নেতা-কর্মীরা বেপরোয়া হয়ে উঠেছেন বলে অভিযোগ বিএনপির। দলটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ১২ নভেম্বর অনুষ্ঠেয় জাতীয় সংসদের ঢাকা-১৮ ও সিরাজগঞ্জ-১ আসনের উপনির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিএনপির প্রার্থীদের প্রচারণায় বারবার হামলা চালানো হচ্ছে। প্রশাসনের কাছে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ করেও কোনো প্রতিকার পাওয়া যাচ্ছেনা। উপরন্তু প্রশাসনের পক্ষ থেকেই তাদের আশকারা দেওয়া হচ্ছে। গতকাল রাজধানীর নয়াপল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের পক্ষে সাংগঠনিক সম্পাদক ও দফতরের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স এ অভিযোগ করেন। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার আন্দোলনের অংশ হিসেবে বিএনপি এ উপনির্বাচনে অংশ নিচ্ছে।

বিএনপি নির্বাচনে অংশ নিলেই যেন সরকার ও আওয়ামী লীগের মধ্যে অস্থিরতা শুরু হয়। কারণ তারা জানে, অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ এবং গ্রহণযোগ্য ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন হলে তাদের ভরাডুবি সুনিশ্চিত। সেজন্য যে কোনো নির্বাচন প্রক্রিয়া শুরু হওয়ামাত্রই আওয়ামী লীগ নির্বাচনী বিধিবিধানকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে দলীয় ও রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস চালায়। বিএনপি প্রার্থী ও কর্মী-সমর্থকদের ওপর হামলা, মামলা, হুমকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শনের মাধ্যমে পরিবেশ ধ্বংস করে জনগণের ভোটাধিকার হরণ করে নির্বাচন ব্যর্থ করে দিতে চায়। বিশেষ করে ঢাকা-১৮ আসনে বিএনপি প্রার্থী এস এম জাহাঙ্গীরের পক্ষে প্রচারণায় আওয়ামী লীগ-যুবলীগ ও ছাত্রলীগের শতাধিক সশস্ত্র সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে বিএনপি নেতা-কর্মীদের মারাত্মক আহত করে এবং ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি ও লুটপাট চালায়। সিরাজগঞ্জ-১ আসনে বিএনপির প্রার্থী মো. সেলিম রেজা নির্বাচনী এলাকায় তার নিজ বাড়িতে গেলে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ ক্যাডাররা তাকে বাড়িতে অবরুদ্ধ করে রাখে। তাকে বাড়ি থেকে বের হতে দিচ্ছে না।

অন্যদিকে রবিবার রাতে রাজধানীর কলাবাগানে ক্ষমতাসীন দলের এক এমপির ছেলে ও তার সাঙ্গোপাঙ্গ কর্তৃক সশস্ত্র বাহিনীর এক কর্মকর্তা ও তার সহধর্মিণীর ওপর হামলা চালিয়ে রক্তাক্ত করার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে অবিলম্বে হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে বিএনপি।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর